এখন পড়ছেন
হোম > জাতীয় > এবার বাংলার বুকে দাঁড়িয়ে খোদ তৃণমূলনেত্রীকেই “অগণতান্ত্রিক” বলে তীব্র আক্রমণ রাহুল গান্ধীর

এবার বাংলার বুকে দাঁড়িয়ে খোদ তৃণমূলনেত্রীকেই “অগণতান্ত্রিক” বলে তীব্র আক্রমণ রাহুল গান্ধীর

জাতীয় রাজনীতিতে মোদি ও বিজেপি বিরোধিতায় কংগ্রেসের সর্বভারতীয় সভাপতি রাহুল গান্ধী এবং তৃণমূল নেত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় এক সুরে কথা বললে প্রায় সকলেই ভেবেছিল, আসন্ন লোকসভা নির্বাচনে বাংলায় তৃণমূল ও কংগ্রেস পৃথকভাবে লড়লেও কংগ্রেস হাইকমান্ডের পক্ষ থেকে এই বাংলায় নির্বাচনী প্রচারে এসে সেইভাবে শাসক দল তৃণমূলের বিরুদ্ধে সুর চড়ানো হবে না।

কিন্তু না, গতকাল মালদহের চাচোলের নির্বাচনী জনসভা থেকে একদিকে যেমন কেন্দ্রের বিজেপি সরকারের বিরুদ্ধে সুর চড়ালেন কংগ্রেসের সর্বভারতীয় সভাপতি রাহুল গান্ধী, ঠিক তেমনই রাজ্যের শাসক দল তৃণমূল কংগ্রেস ও মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের বিরুদ্ধেও তীব্র আক্রমণ শানাতে দেখা গেল তাঁকে।

সূত্রের খবর, গতকাল এই সভাতে উপস্থিত হয়ে রাজ্য প্রদেশ কংগ্রেস নেতারা যে সুরে রাজ্যের শাসক দল তৃণমূল কংগ্রেস ও কেন্দ্রের শাসক দল বিজেপির বিরুদ্ধে বক্তব্য রাখছিলেন, সেই একই সুরে বক্তব্য রেখে মোদী ও মমতাকে একযোগে বিধেন রাহুল গান্ধী। প্রথমেই বিজেপি এবং আরএসএসের বিরুদ্ধে বিভাজনের রাজনীতির অভিযোগ তুলে কংগ্রেসের সর্বভারতীয় সভাপতি বলেন, “ওরা ধর্মের নামে মানুষকে খুন করছে। চুরি ধরা পড়ার পরে এখন সবাই চৌকিদার হয়ে গেছেন। নরেন্দ্র মোদী অবশ্যই চৌকিদার। কিন্তু অনিল আম্বানি, মেহুল চোকসি ও নীরব মোদির চৌকিদার। সাধারণ মানুষের জন্য উনি কিছুই করেননি।”

এদিকে কেন্দ্রের শাসক দল বিজেপির বিরুদ্ধে রাহুল গান্ধীর এই বক্তব্য স্বাভাবিকভাবে গ্রহণ করলেও আশ্চর্যজনকভাবে সারাদেশে বিজেপি বিরোধিতায় সেই কংগ্রেসের রাহুল গান্ধীর সঙ্গে হাতে হাত ধরে চলা রাজ্যের শাসক দল তৃণমূল কংগ্রেস সুপ্রিমো মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের বিরুদ্ধেও এদিন বাংলার মাটিতে পা রেখে তীব্র আক্রমণ রাহুল গান্ধী। তিনি বলেন, “এখানে একজনের কথাতেই সব চলে। প্রতিদিন এখানে আমাদের কর্মীদেরকে হত্যা করা হয়। বাংলার মানুষকে বলছি বাম আমলে আপনারা কিছুই পাননি। এখন মমতাজি এসেছেন। কিন্তু আপনারা এই কয় বছরে কি এমন পেয়েছেন! নরেন্দ্র মোদী এবং মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় এই দুইজনই নিজেদের জন্য মিথ্যে প্রচার করে।”

ফেসবুকের কিছু টেকনিক্যাল প্রবলেমের জন্য সব আপডেট আপনাদের কাছে সবসময় পৌঁচ্ছাছে না। তাই আমাদের সমস্ত খবরের নিয়মিত আপডেট পেতে যোগদিন আমাদের হোয়াটস্যাপ বা টেলিগ্রাম গ্রূপে।

১. আমাদের Telegram গ্রূপ – ক্লিক করুন
২. আমাদের WhatsApp গ্রূপ – ক্লিক করুন
৩. আমাদের Facebook গ্রূপ – ক্লিক করুন
৪. আমাদের Twitter গ্রূপ – ক্লিক করুন
৫. আমাদের YouTube চ্যানেল – ক্লিক করুন

প্রিয় বন্ধু মিডিয়ায় প্রকাশিত খবরের নোটিফিকেশন আপনার মোবাইল বা কম্পিউটারের ব্রাউসারে সাথে সাথে পেতে, উপরের পপ-আপে অথবা নীচের বেল আইকনে ক্লিক করে ‘Allow‘ করুন।

আপনার মতামত জানান -

আর কেন্দ্রের বিজেপি সরকার ও রাজ্যের তৃণমূল সরকারের বিরুদ্ধে সোচ্চার হয়ে রাজ্য এবং কেন্দ্রে আসন্ন লোকসভা নির্বাচনে কংগ্রেসকে আনলেই প্রকৃত উন্নয়ন হবে বলে সাধারণ মানুষের কাছে আহ্বান জানান রাহুল গান্ধী। এদিকে এদিনের এই মালদহের সভা থেকে রাহুল গান্ধীর আক্রমণের মুখে পড়েছিলেন সদ্য কংগ্রেস ত্যাগী বর্তমানে উত্তর মালদহের তৃণমূল প্রার্থী মৌসম বেনজির নূর। নাম না করে মৌসমকে কটাক্ষ করে রাহুল গান্ধী বলেন, “আপনাদের সঙ্গে একদিন একজন বিশ্বাসঘাতকতা করেছে। মাথায় রাখবেন কংগ্রেস বিশ্বাসঘাতককে কেউ ক্ষমা করে না।”

রাজনৈতিক পর্যবেক্ষকদের মতে, আসন্ন লোকসভা নির্বাচনের আগে বাংলায় এসে কংগ্রেসের একদা শক্ত ঘাঁটি বলে পরিচিত মালদার নির্বাচনী সভা থেকে একদিকে যেমন কেন্দ্রের শাসকদলের বিরুদ্ধে সোচ্চার হতে দেখা গেল কংগ্রেসের সর্বভারতীয় সভাপতিকে, ঠিক তেমনই বাংলায় তৃণমূলের সাথে যে তাদের কোনো বোঝাপড়াই হবে না তা ফের একবার নিজের বক্তব্যের মধ্যে দিয়ে তৃণমূল নেত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের বিরুদ্ধে সোচ্চার হয়ে স্পষ্ট করে দিলেন রাহুল গান্ধী। পাশাপাশি সদ্য দলত্যাগী মৌসমকেও দিলেন খোঁচা।

আর রাহুল গান্ধীর বক্তব্যের পাল্টা জবাব দিয়েছেন সেই মৌসম বেনজির নূর। এদিন তিনি বলেন, “রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় মালদহের মানুষের জন্য ঝাঁপিয়ে পড়েছেন। জেলার মানুষকে বিজেপির হাত থেকে বাঁচাতে এবং উন্নয়নের জন্যই আমি তৃণমূলে যোগ দিয়েছি। আর আমি বিশ্বাসঘাতকতা করেছি কিনা তার জবাব মানুষ দেবে।” সব মিলিয়ে এবার মালদহে নির্বাচনী জনসভায় এসে একযোগে মোদী, মমতা ও মৌসমকে প্রবল কটাক্ষ করে রাজ্য রাজনীতিতে ঝড় তুলে দিলেন কংগ্রেসের সর্বভারতীয় সভাপতি রাহুল গান্ধী।

আপনার মতামত জানান -
Top
error: Content is protected !!