এখন পড়ছেন
হোম > রাজ্য > কলকাতা > ফের বাংলার মুকুটে‌ নয়া পালক, সাধারনকে সোশ্যাল মিডিয়ায় ধন্যবাদ জ্ঞাপন মুখ্যমন্ত্রীর

ফের বাংলার মুকুটে‌ নয়া পালক, সাধারনকে সোশ্যাল মিডিয়ায় ধন্যবাদ জ্ঞাপন মুখ্যমন্ত্রীর

গত 2011 সালে বাম সরকারকে বিদায় জানিয়ে তৃণমূল সরকার ক্ষমতায় আসার পরই বিভিন্ন ক্ষেত্রে সারা দেশের মধ্যে বাংলা প্রথম স্থান অধিকার করেছে বলে জাতীয় স্তরে পুরস্কার অর্জন করতে দেখা গেছে রাজ্যকে। যা নিয়ে বরাবরই সেই কৃতিত্বের ঘটনা রাজ্যবাসীর সঙ্গে ভাগ করে নিয়েছেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়।

100 দিনের কাজ থেকে কন্যাশ্রী, বিভিন্ন প্রকল্পে কখনও জাতীয় স্তরে, আবার কখনও বা আন্তর্জাতিক স্তরে বাংলার সেরার সেরা খেতাব পাওয়ার ঘটনা গৌরবান্বিত করেছে গোটা রাজ্যবাসীকে। আর এবার দেশে বৃদ্ধির নিরিখে পশ্চিমবাংলার স্থান প্রথমে হওয়ায় গোটা বিষয়টি সোশ্যাল মিডিয়ায় পোস্ট করে রাজ্যবাসীকে আন্তরিক ধন্যবাদ জানালেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়।

ফেসবুকের কিছু টেকনিক্যাল প্রবলেমের জন্য সব আপডেট আপনাদের কাছে সবসময় পৌঁচ্ছাছে না। তাই আমাদের সমস্ত খবরের নিয়মিত আপডেট পেতে যোগদিন আমাদের হোয়াটস্যাপ বা টেলিগ্রাম গ্রূপে।

১. আমাদের Telegram গ্রূপ – ক্লিক করুন
২. আমাদের WhatsApp গ্রূপ – ক্লিক করুন
৩. আমাদের Facebook গ্রূপ – ক্লিক করুন
৪. আমাদের Twitter গ্রূপ – ক্লিক করুন
৫. আমাদের YouTube চ্যানেল – ক্লিক করুন

প্রিয় বন্ধু মিডিয়ায় প্রকাশিত খবরের নোটিফিকেশন আপনার মোবাইল বা কম্পিউটারের ব্রাউসারে সাথে সাথে পেতে, উপরের পপ-আপে অথবা নীচের বেল আইকনে ক্লিক করে ‘Allow‘ করুন।

সূত্রের খবর, এদিন সোশ্যাল মিডিয়ায় একটি পোস্ট করে মুখ্যমন্ত্রী বলেন, “ভারত সরকারের দেওয়া তথ্য অনুযায়ী 2018-19 আর্থিক বছরে রাজ্যের বৃদ্ধি 12.58 শতাংশ। যা দেশের মধ্যে সবথেকে বেশি।” আর রাজ্যের কৃতিত্বের কথা যেমন সোশ্যাল সাইটে পোস্ট করেছেন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়, ঠিক তেমনই দেশে মন্দার বাজার চলছে এবং এর জন্য কেন্দ্রীয় সরকারের নীতিকেই দায়ী করেছেন তিনি।

পাশাপাশি এদিন পোস্টে কেন্দ্রের বিরুদ্ধে কঠোর পদক্ষেপের কথা উল্লেখ করে অর্ডন্যান্স ফ্যাক্টরি বোর্ড, বিএসএনএল এবং চিত্তরঞ্জন লোকোমোটিভের নাম টেনে এনেছেন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। কেন্দ্রের বিরুদ্ধে সরব হয়ে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় বলেন, “মন্দার কারণে দেশের অটোমোবাইল শিল্পে তিন লক্ষ চাকরি ছাঁটাই হতে চলেছে।কেন্দ্রের অ্যাজেন্ডার তালিকায় এখন শুধুই রাজনীতি।” সব মিলিয়ে একদিকে রাজ্যের সাফল্য তুলে ধরা, আর অন্যদিকে কেন্দ্রকে বিধলেন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়।

Top
error: Content is protected !!