এখন পড়ছেন
হোম > রাজ্য > কলকাতা > মুখ্যমন্ত্রী আটকাতে চাইলেও ঘুরপথে বাংলার মানুষের জন্য “আয়ুষ্মান প্রকল্পের” ব্যবস্থা করে দিল কেন্দ্র – জানুন বিস্তারিত

মুখ্যমন্ত্রী আটকাতে চাইলেও ঘুরপথে বাংলার মানুষের জন্য “আয়ুষ্মান প্রকল্পের” ব্যবস্থা করে দিল কেন্দ্র – জানুন বিস্তারিত

রাজ্য টাকা দিলেও কেন্দ্র নিজেদের বলেই সমস্ত কিছু প্রচার করছে – কদিন আগেই এই অভিযোগ করে কেন্দ্রের আয়ুষ্মান ভারত প্রকল্প থেকে নিজেদের অংশীদারিত্ব প্রত্যাহার করে নেওয়ার কথা ঘোষণা করেছিলেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। কিন্তু এবারে সেই আয়ুষ্মান ভারত প্রকল্পের রাজ্য নিজেদের অংশীদারিত্ব প্রত্যাহার করে নিলেও কেন্দ্র সেই প্রকল্পে অন্তর্ভুক্ত থাকা রাজ্যের মানুষদের চিকিৎসার খরচ যোগানোর কথা বলায় আশার আলো দেখছেন অনেকেই।কিন্তু কিভাবে এই অসম্ভব দিকটি সম্ভব হবে?

সূত্রের খবর, পশ্চিমবঙ্গের যে সমস্ত গরিব পরিবাররা এই আয়ুষ্মান ভারতের আওতায় রয়েছেন তারা অন্য রাজ্যে গিয়ে হাসপাতালে ভর্তি হলে তাদের চিকিৎসার খরচ সরকারি বীমার টাকা থেকেই কেন্দ্র দেবে। তবে এর জন্য রাজ্যের কোনো হাসপাতালে নয়, বরঞ্চ যেখানে এই আয়ুষ্মান ভারত প্রকল্পের সুবিধা রয়েছে সেই রাজ্যের হাসপাতালে গিয়েই বাংলার মানুষকে ভর্তি হতে হবে।

প্রসঙ্গত উল্লেখ্য, পশ্চিমবঙ্গে প্রায় 1 কোটি 12 লক্ষ পরিবার এই স্বাস্থ্য বীমা আয়ুষ্মান ভারত প্রকল্পের সুবিধা পাবে। যার মধ্যে গ্রামের 96 লক্ষ 24 হাজার এবং শহরের প্রায় 14 লক্ষ পরিবার রয়েছে। জানা গেছে, মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের সরকারের উদ্যোগে সাধারণ মানুষদের চিকিৎসার জন্য স্বাস্থ্যসাথী নামে প্রকল্প চালু হলেও কেন্দ্রের এই আয়ুষ্মান ভারত প্রকল্পে সব থেকে বড় সুবিধা হল যে, এই কার্ড যার কাছে থাকবে সেই ব্যক্তি এবং পরিবার দেশের যেকোনো জায়গায় গিয়ে হাসপাতালে ভর্তি হলে বছরে 5 লক্ষ টাকা পর্যন্ত বিমার সুবিধা পাবেন।

ফেসবুকের কিছু টেকনিক্যাল প্রবলেমের জন্য সব আপডেট আপনাদের কাছে সবসময় পৌঁচ্ছাছে না। তাই আমাদের সমস্ত খবরের নিয়মিত আপডেট পেতে যোগদিন আমাদের হোয়াটস্যাপ বা টেলিগ্রাম গ্রূপে।

১. আমাদের Telegram গ্রূপ – ক্লিক করুন
২. আমাদের WhatsApp গ্রূপ – ক্লিক করুন
৩. আমাদের Facebook গ্রূপ – ক্লিক করুন
৪. আমাদের Twitter গ্রূপ – ক্লিক করুন
৫. আমাদের YouTube চ্যানেল – ক্লিক করুন

কিন্তু সম্প্রতি কেন্দ্রের সেই আয়ুষ্মান ভারত প্রকল্পে রাজ্য নিজেদের অংশীদারিত্ব দেওয়ার ব্যাপারে না করে দিয়েছে। যার কারণ হিসেবে রাজ্যের দাবি যে, এই আয়ুষ্মান ভারতে রাজ্য টাকা দিলেও তা প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদির ছবি দিয়েই প্রচার করা হচ্ছে। এদিকে স্বাস্থ্য ব্যবস্থায় কেন্দ্রের এহেন প্রকল্পে রাজ্য নিজেদের অংশীদারিত্ব তুলে নিলে রাজ্যকে বিষয়টি পুনর্বিবেচনা করার ব্যাপারে আবেদন জানায় কেন্দ্র।

শেষমেষ এই ব্যাপারে রাজ্যের পক্ষ থেকে আর কোনো সবুজ সংকেত না পেয়ে অবশেষে এই আয়ুষ্মান ভারত প্রকল্পে যাতে রাজ্যের মানুষ বঞ্চিত না হয় সেই ব্যাপারে উদ্যোগ নিল দেশের কেন্দ্রীয় সরকার। সূত্রের খবর, এই আয়ুষ্মান ভারত প্রকল্প কার্যকর করার দায়িত্ব প্রাপ্ত সংস্থা ন্যাশনাল হেলথ অথরিটি বা স্বাস্থ্যমন্ত্রকের তরফে জানা গেছে, পশ্চিমবঙ্গের কোনো বাসিন্দা যদি এবার থেকে ভিন রাজ্যে গিয়ে অসুস্থ হয়ে হাসপাতালে ভর্তি হন তাহলে তার বিমার অঙ্কের খরচ যোগাবে কেন্দ্র সরকার।

আর এতেই কিছুটা আশার আলো দেখতে শুরু করেছেন এই রাজ্যের আয়ুষ্মান ভারত প্রকল্পের আওতাধীন মানুষেরা। কেননা রাজ্য এই কেন্দ্রের প্রকল্প থেকে নিজেদের অংশীদারিত্ব তুলে নিলে তারা ঠিক কোথায় যাবেন তা ভেবে পাচ্ছিলেন না কেউই। তাই শেষ পর্যন্ত রাজ্যের বাইরে কোনো হাসপাতালে ভর্তি হলে কেন্দ্রই যে তাদের খরচ বহন করবে সেই কথায় হাসি ফুটছে সেই রাজ্যের আয়ুষ্মান ভারত প্রকল্পের আওতাধীন মানুষদের মুখে।

Top
error: Content is protected !!