এখন পড়ছেন
হোম > জাতীয় > এ রাজ্যে যাদের রাজনৈতিক শক্তি শূন্য, তারাই ঠিক করছে রাজ্যের নাম পরিবর্তন হবে কিনা! মুখ্যমন্ত্রীর ক্ষোভ,

এ রাজ্যে যাদের রাজনৈতিক শক্তি শূন্য, তারাই ঠিক করছে রাজ্যের নাম পরিবর্তন হবে কিনা! মুখ্যমন্ত্রীর ক্ষোভ,

প্রশাসনিক কাজে সুবিধার কারণে অনেকদিন ধরেই পশ্চিমবঙ্গের নাম “বাংলা” করার পক্ষে জোর সওয়াল করছেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। এই নিয়ে কেন্দ্রের কাছে বারে বারে প্রস্তাবও পাঠিয়েছেন তিনি।কিন্তু সেই কেন্দ্রের বিজেপি সরকার রাজ্যের নাম পরিবর্তনে কোনো রকম মনোযোগই দিচ্ছেন না বলে এদিন সোশ্যাল নেটওয়ার্কিং সাইটে সেই কেন্দ্রের বিরুদ্ধেই তোপ দাগলেন মুখ্যমন্ত্রী।

প্রসঙ্গত উল্লেখ্য, স্বাধীনতার পর থেকে নিজেদের সুবিধার কারণে বেশ কিছু শহর ও রাজ্যের নাম পরিবর্তন হয়েছে। যেমন,ওড়িষ্যা- ওড়িশা, পন্ডিচেরি-পুদুচেরি, বম্বে-মুম্বাই, ব্যাঙ্গালোর- বেঙ্গালুরু করা হয়েছে। আর তাই নিজেদের সুবিধার্থে বেশ কিছুদিন আগে বাংলায় বাংলা, হিন্দিতে “বঙ্গাল” এবং ইংরেজিতে “বেঙ্গল” করার একটি প্রস্তাব কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্রমন্ত্রককে দেয় এই রাজ্য।

কিন্তু রাজ্যের পাঠানো এই প্রস্তাবে কেন্দ্রের পক্ষ থেকে জানিয়ে দেওয়া হয় যে, সব ভাষাতে একটি নামই রাখতে হবে। আর তারপরেই রাজ্য বিধানসভায় সর্বসম্মতিক্রমে রাজ্যের নাম পশ্চিমবঙ্গ থেকে “বাংলা” রাখার ব্যাপারে সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়। রাজ্য বিধানসভায় তা পাশ হয়ে গেলেও পরবর্তীতে তা কেন্দ্রর কাছে পাঠিয়ে দেওয়া হলেও তা নিয়ে এখনও পর্যন্ত দেশের সরকার নিশ্চুপ রয়েছে বলে অভিযোগ করেন মুখ্যমন্ত্রী।

পাশাপাশি সম্প্রতি দেশের বিভিন্ন ঐতিহাসিক স্থানগুলির নাম পরিবর্তন করা হলেও কেন বাংলার জন্য প্রয়োজনীয় নাম পরিবর্তনের সায় দিচ্ছে না কেন্দ্র তা নিয়ে এদিন গেরুয়া শিবিরের কটাক্ষের সুর শোনা যায় বঙ্গের প্রশাসনিক প্রধানের গলায়।

সূত্রের খবর, এদিন ফেসবুকে গেরুয়া শিবিরের উদ্দেশ্যে তোপ দেগে মুখ্যমন্ত্রী বলেন, “অবিভক্ত বাংলার রাজধানী ছিল এই কলকাতা। ভারত ও বাংলাদেশের জাতীয় সংগীত লিখেছেন এই বাংলারই সন্তান কবিগুরু রবীন্দ্রনাথ ঠাকুর। তাই আমরা যেমন বাংলাদেশকে ভালোবাসি তেমনি বাংলাকেও ভালোবাসি। কিন্তু এই রাজ্যে এমন একটি রাজনৈতিক দল আছে যাদের শক্তি শূন্য থাকা সত্ত্বেও তারাই নাকি ঠিক করবে যে রাজ্যের নাম পরিবর্তন হবে কিনা! বাংলার মানুষ অবিলম্বে এই রাজ্যের নাম বাংলা’ করার জন্য কেন্দ্রের সদর্থক ভূমিকা আশা করে।”

ফেসবুকের কিছু টেকনিকাল প্রবলেমের জন্য সব খবর আপনাদের কাছে পৌঁছেছে না। তাই আরো খবর পেতে চোখ রাখুন প্রিয়বন্ধু মিডিয়া-তে

 

এবার থেকে প্রিয় বন্ধুর খবর পড়া আরো সহজ, আমাদের সব খবর সারাদিন হাতের মুঠোয় পেতে যোগ দিন আমাদের হোয়াটস্যাপ গ্রূপে – ক্লিক করুন এই লিঙ্কে

রাজনৈতিক মহলের মতে, নাম না করলেও এদিন কার্যত এই বাংলা নামের বিরুদ্ধে থাকা বিজেপির রাজ্য সভাপতি দিলীপ ঘোষকে কটাক্ষ করলেন মুখ্যমন্ত্রী।পাশাপাশি বাংলা নাম যে এই রাজ্যের ক্ষেত্রে অত্যন্ত প্রয়োজনীয় তা নিয়ে রাজ্যের মানুষের ভাবাবেগকে উস্কে দিয়ে ফের কেন্দ্রের ওপর চাপ বাড়ানোর চেষ্টা করলেন বাংলার প্রশাসনিক প্রধান। সব মিলিয়ে এখন পশ্চিমবাংলার নাম বাংলা করতে প্রবল উদ্যোগী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়।

আপনার মতামত জানান -
Top
error: Content is protected !!