এখন পড়ছেন
হোম > রাজ্য > কলকাতা > পশ্চিমবঙ্গে কি এবার রক্তক্ষয়ী রাজনীতি শুরু হয়েই গেল?

পশ্চিমবঙ্গে কি এবার রক্তক্ষয়ী রাজনীতি শুরু হয়েই গেল?

2011 সালের আগে রাজ্যের তৎকালীন বাম সরকারের বিরুদ্ধে সিঙ্গুর, ভাঙ্গর থেকে নন্দীগ্রাম – বিভিন্ন জায়গায় আন্দোলন করে রাজ্য সর্বনাশের দিকে এগিয়ে যাচ্ছে বলে বিভিন্ন সময়েই বাম সরকারের বিরুদ্ধে গর্জে উঠতে দেখা গেছে তৎকালীন বিরোধী নেত্রী তথা রাজ্যের বর্তমান মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়কে।

এমনকি বিগত বাম আমলে যে জঙ্গলমহলের মানুষগুলির সকাল হত রক্ত দেখে, সেই জঙ্গলমহলে শান্তি প্রতিষ্ঠার জন্য ও খুনের রাজনীতি বন্ধের জন্য তৎকালীন শাসক দলের নেতা-নেত্রীদের ওপর চাপ সৃষ্টি করেছিল রাজ্যের বর্তমান শাসকদল তথা তৎকালীন বিরোধী দল তৃণমূল কংগ্রেস।

এদিকে 2011 সালে রাজ্যে পালাবদলের পর ক্ষমতায় বসে তৃণমূল কংগ্রেস। বিরোধী নেত্রী থেকে মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। কিন্তু তৃণমূল কংগ্রেস ক্ষমতায় আসলেও রাজ্যে খুন ও সন্ত্রাসের রাজনীতি এক চুলও বন্ধ হয়নি বলে বিভিন্ন সময়েই অভিযোগ করতে দেখা যায় বিরোধী দলগুলোকে। এমনকি একের পর এক নির্বাচনে বাংলার গণতন্ত্রকে প্রহসনে পরিণত করছেন রাজ্যের শাসক দলের কর্মী-সমর্থকরা বলেও বিভিন্ন সময় অভিযোগ করেন রাজ্যের বর্তমান বিরোধী দল বিজেপি থেকে বাম ও কংগ্রেসের নেতা কর্মীরা।

ফেসবুকের কিছু টেকনিক্যাল প্রবলেমের জন্য সব আপডেট আপনাদের কাছে সবসময় পৌঁচ্ছাছে না। তাই আমাদের সমস্ত খবরের নিয়মিত আপডেট পেতে যোগদিন আমাদের হোয়াটস্যাপ বা টেলিগ্রাম গ্রূপে।

১. আমাদের Telegram গ্রূপ – ক্লিক করুন
২. আমাদের WhatsApp গ্রূপ – ক্লিক করুন
৩. আমাদের Facebook গ্রূপ – ক্লিক করুন
৪. আমাদের Twitter গ্রূপ – ক্লিক করুন
৫. আমাদের YouTube চ্যানেল – ক্লিক করুন

তবে শাসক দল তৃণমূলের তরফে অবশ্য বারেবারেই দাবি করা হয় যে, রাজ্যের বর্তমান সরকারের আমলে নতুন সকাল ফুটেছে। এখন আর জঙ্গলমহল ও পাহাড়ে খুনের রাজনীতি হয় না। বরঞ্চ সেখানে উন্নয়নের নতুন ভোর এনেছেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। তবে শাসকদলের পক্ষ থেকে যে দাবিই করা হোক না কেন, বাগদেবীর আরাধনার দিন কৃষ্ণগঞ্জের তৃণমূল বিধায়ক সত্যজিৎ বিশ্বাস খুনে এবার রাজ্য রাজনীতিতে ফের কালো মেঘ দেখা দিতে শুরু করেছে বলেই মনে করছেন রাজনৈতিক মহলের একাংশ।

বিরোধীদের দাবি, রাজ্যে তৃণমূল কংগ্রেস ক্ষমতায় থাকলেও সেই তৃণমূলের বিধায়ক সত্যজিৎ বিশ্বাস খুনেই প্রমাণিত হয়ে যাচ্ছে যে রাজ্যে নিরাপত্তা ব্যবস্থা ঠিক কতটা মজবুত রয়েছে! সমালোচকদের মতে, রাজ্যে শাসকের পরিবর্তন হলেও শোষকের কোনো পরিবর্তন হয়নি। আর তাইতো এবার রাজ্যের নিরাপত্তা ব্যবস্থা সুষ্ঠ রয়েছে বলে মুখ্যমন্ত্রী ও শাসকদলের হেভিওয়েট নেতা, মন্ত্রীরা দাবি করলেও সেই তৃণমূল বিধায়ককে গুলি করে খুনের ঘটনায় শাসকদলের সেই দাবি বজ্র আঁটুনি ফস্কা গেরোর মত আলগা হয়ে গেল বলেই মনে করছেন অনেকে।

তাহলে কি বাম আমলের শেষের দিকে ঠিক যেভাবে রাজ্যে রক্তক্ষয়ী আন্দোলন মাথা চাড়া দিয়েছিল বলে দাবি করেছিল রাজ্যের তৎকালীন বিরোধী দল তথা বর্তমান শাসকদল তৃণমূল কংগ্রেস, ঠিক একইভাবে সেই তৃণমূল কংগ্রেসের আমলেও আসন্ন লোকসভা নির্বাচনের আগে খুনের রাজনীতি বঙ্গে শুরু হয়ে গেল! তৃণমূল বিধায়ক সত্যজিৎ বিশ্বাস খুনের পর কাঁথির এক হেভিওয়েট তৃনমূল নেতা খুনের ঘটনায় সেই জল্পনাই আরও তীব্র থেকে তীব্রতর হয়ে উঠতে শুরু করেছে।

Top
error: Content is protected !!