এখন পড়ছেন
হোম > রাজ্য > নেত্রীর হুঁশিয়ারি অমান্য করে ফের গোষ্ঠীদ্বন্দ্ব বাসন্তীতে

নেত্রীর হুঁশিয়ারি অমান্য করে ফের গোষ্ঠীদ্বন্দ্ব বাসন্তীতে

কয়েকদিন আগেই গোষ্ঠীদ্বন্দ্বে বাসন্তী উতপ্ত হয়ে ওঠেছিলো।আর তার জেরে গুলিবিদ্ধ হয়ে মারা যায় একটি শিশু.তারপর মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় কোর কমিটির বৈঠকেও হুঁশিয়ারি দিয়ে বলেন যে আর যেন কোনো ঝামেলার কথা তিনি না শোনেন। কিন্তু তাতেও কাজ হলো না।ফের এদিন বাসন্তীর শিমুলতলায় দু’পক্ষের মধ্যে বোমাবাজি শুরু হয়। পরিস্থিতি সামাল দিতে পুলিশ গেলে তাদের দিকেও বোমা ছোড়া হয়।ঘটনায় দুই পুলিশকর্মী সামান্য জখম হয়েছেন বলে জানা গেছে।তাদের স্থানীয় হাসপাতালে নিয়ে যাওয়া হয়েছে আর অল্প কিছু চিকিৎসা করে তাদের ছেড়ে দেওয়া হয়েছে বলে জানা গেছে। এদিন বারুইপুর পুলিশ জেলার সুপার অরিজিৎ সিংহ বলেন, ‘‘পুলিশের উপরে আক্রমণের ঘটনায় জড়িত থাকার অভিযোগে রাজা গাজি, ফক্কর গাজি, লুৎফর লস্কর এবং আমির হোসেন লস্করকে গ্রেফতার করা হয়েছে।’’এই নিয়ে তৃণমূলের একাংশ অভিযোগ করেছে রবিবার রাতে শিমুলতলায় যুব কর্মীদের উপরে হামলা চালানোর জন্য প্রাক্তন ব্লক তৃণমূলের সভাপতি মন্টু গাজির অনুগামীরা একজোট হয়ে এই বোমাবাজি করে। আর যুব কর্মীরাও তা দেখে পাল্টা বোমা ছোঁড়ে।এই নিয়ে প্রাক্তন বাসন্তী ব্লক যুব তৃণমূল সভাপতি আমান লস্কর বলেন, ‘‘তৃণমূলের কিছু লোক এলাকায় দলীয় সভা করার নামে উস্কানিমূলক কথা বলে হিংসা ছড়াচ্ছে। এ দিন ওরাই আমাদের কর্মীদের উপরে পরিকল্পিত ভাবে হামলা করতে এসেছিল।’’ অন্য দিকে, মন্টুর বক্তব্য, ‘‘ওরা আমার ভাইকে মারল। আমরা প্রতিবাদ করলে বোমাবাজি করেছে। উল্টে আমার ছেলেকেই গ্রেফতার করা হল।’’ তবে এখন রাজনৈতিক মহলে প্রসহ্য উঠেছে যে তবে কি নেত্রীকেও মানছে না তাদের দলের নেতারা?নাহলে নেত্রীর করা হুঁশিয়ারির পরেও কেন আবার একই ঘটনা ঘটছে ,অবশ্য এখন দেখার যে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় এবার কি ব্যাবস্থা নেন।

আপনার মতামত জানান -
Top
error: Content is protected !!