এখন পড়ছেন
হোম > রাজ্য > কলকাতা > শোভন-কাণ্ডে নয়া মোড়! এবার বান্ধবী বৈশাখী আইনি ব্যবস্থা নিতে চলেছেন হেভিওয়েট তৃণমূল বিধায়কের বিরুদ্ধে!

শোভন-কাণ্ডে নয়া মোড়! এবার বান্ধবী বৈশাখী আইনি ব্যবস্থা নিতে চলেছেন হেভিওয়েট তৃণমূল বিধায়কের বিরুদ্ধে!

রাজনীতি ও পারিবারিক গন্ডগোল যখন এক সূত্রে এসে দাঁড়ায় তখন ভবিষ্যৎ হয়ে যায় অনিশ্চিত। বর্তমানে কলকাতার প্রাক্তন মেয়র শোভন চট্টোপাধ্যায় বনাম তার স্ত্রী রত্না চট্টোপাধ্যায় ও শশুর দুলাল দাসের বিবাদ এমনই এক পর্যায়ে পৌঁছে গিয়েছে যে সকালে খবরের কাগজের পাতা খুললেই শিরোনামে উঠে আসছে সেই ঘটনা। বান্ধবী বৈশাখী বন্দ্যোপাধ্যায়ের দাপটেই শোভনবাবুর জীবন লন্ডভন্ড হয়েছে বলে বিভিন্ন সময় দাবি করে এসেছেন শোভন চট্টোপাধ্যায়ের স্ত্রী রত্না চট্টোপাধ্যায় ও শোভনবাবুর শ্বশুরমশায় ও রত্নাদেবীর বাবা তথা মহেশতলার তৃণমূল বিধায়ক দুলাল দাস।

বিভিন্ন সময়ে এই ব্যাপারে শোভন চট্টোপাধ্যায়ের ঘনিষ্ঠ বান্ধবী বলে পরিচিত বৈশাখী বন্দ্যোপাধ্যায় সরবও হয়েছিলেন। কিন্তু নিজের অবস্থান থেকে যে এক চুলও নড়েননি তৃণমূল কংগ্রেস বিধায়ক দুলাল দাস তা ফের আরও একবার প্রমাণ করলেন তিনি। প্রসঙ্গত উল্লেখ্য, গত শুক্রবার মহেশতলার এই তৃণমূল বিধায়ক তথা শোভন চট্টোপাধ্যায়ের শ্বশুরমশায় দুলাল দাস বৈশাখী বন্দ্যোপাধ্যায়ের উদ্দেশ্যে বলেছিলেন, “শিক্ষিকা হয়ে তিনি এত গয়না কোথা থেকে পেলেন তার তদন্ত হওয়া উচিত”। আর দুলালবাবুর এহেন মন্তব্যেই রীতিমত ক্ষিপ্ত বৈশাখীদেবী বলে সূত্রের খবর।

আর চুপ করে বসে থাকা নয়, এবার মহেশতলার তৃণমূল বিধায়ক দুলাল দাসের বিরুদ্ধে মহিলা কমিশনের যাওয়ার প্রস্তুতি নিচ্ছেন শোভন চট্টোপাধ্যায়ের ঘনিষ্ট বান্ধবী বলে পরিচিত বৈশাখীদেবী। এদিন এই প্রসঙ্গে বৈশাখী বন্দ্যোপাধ্যায় বলেন, “রত্না চট্টোপাধ্যায় ওনার মেয়ে, শোভন চট্টোপাধ্যায় ওনার জামাই। ওদের নিয়ে উনি যা কিছু বলুন, তাতে ক্ষতি নেই। কিন্তু আমাকে নিয়ে কুৎসা রটানোর অধিকার দুলালবাবুর নেই”। তাহলে, সত্যিই কি তিনি দুলাল দাসের বিরুদ্ধে আইনি ব্যবস্থা নিতে চলেছেন?

ফেসবুকের কিছু টেকনিক্যাল প্রবলেমের জন্য সব আপডেট আপনাদের কাছে সবসময় পৌঁচ্ছাছে না। তাই আমাদের সমস্ত খবরের নিয়মিত আপডেট পেতে যোগদিন আমাদের হোয়াটস্যাপ বা টেলিগ্রাম গ্রূপে।

১. আমাদের Telegram গ্রূপ – ক্লিক করুন
২. আমাদের WhatsApp গ্রূপ – ক্লিক করুন
৩. আমাদের Facebook গ্রূপ – ক্লিক করুন
৪. আমাদের Twitter গ্রূপ – ক্লিক করুন
৫. আমাদের YouTube চ্যানেল – ক্লিক করুন

প্রিয় বন্ধু মিডিয়ায় প্রকাশিত খবরের নোটিফিকেশন আপনার মোবাইল বা কম্পিউটারের ব্রাউসারে সাথে সাথে পেতে, উপরের পপ-আপে অথবা নীচের বেল আইকনে ক্লিক করে ‘Allow‘ করুন।

আপনার মতামত জানান -

এই প্রসঙ্গে বৈশাখী বন্দ্যোপাধ্যায় বলেন, “হঠাৎ কোনো এক শীতের দুপুরে গায়ে চাদর জড়িয়ে ওনার মনে হলো আমার নামে কুৎসা করতে হবে, আর আমি সেটা সহ্য করব, এটা ঠিক নয়। আমি মহিলা কমিশনে অভিযোগ জানানোর পাশাপাশি মুখ্যমন্ত্রীকেও এই ব্যাপার একটি চিঠি দেব। কেননা তাঁর দলের বিধায়ক কিভাবে একজন মহিলা সম্পর্কে দিনের পর দিন এই আপত্তিকর মন্তব্য করতে পারেন”? এদিকে এদিন দুলালবাবুর কন্যা রত্না চট্টোপাধ্যায়ের হিসেব বহির্ভূত সম্পত্তি নিয়েও প্রবল তোপ দাগেন বৈশাখীদেবী। এমনকি ২০০৪ সাল পর্যন্ত বাৎসরিক আয় চার লক্ষ টাকার বেশি থাকলেও ২০১৮ সালের মধ্যে তা কি করে ২৮ কোটি টাকায় পৌঁছলো এদিন সেই সম্পর্কেও প্রশ্ন তোলেন তিনি।

পাশাপাশি ইডির তদন্ত প্রসঙ্গে সম্প্রতি মেয়ে রত্না চট্টোপাধ্যায়ের পাশে দাঁড়িয়ে মহেশতলার তৃণমূল বিধায়ক দুলাল দাস বলেছিলেন, “কোথাও কোনো সমস্যা থাকলে আয়কর দপ্তর আমাদের জানাক। ৫০-৬০ কোটি টাকা জমা দিয়ে আমরা হিসেব মিটিয়ে দেব”। আর দুলালবাবুর মন্তব্যের পাল্টা এদিন বৈশাখী বন্দ্যোপাধ্যায় বলেন, “একজন জনপ্রতিনিধি কিভাবে প্রকাশ্যে টাকা দেওয়ার কথা বলতে পারেন”? রাজনৈতিক মহলের মতে, দুলালবাবু শুধু সম্পর্কে শোভন চট্টোপাধ্যায়েরশ্বশুরমশায়ই নন, তিনি রাজ্যের শাসকদলের গুরুত্ত্বপূর্ন বিধায়কও বটে। তাই তাঁর বিরুদ্ধে বৈশাখীদেবী সরাসরি মহিলা কমিশনে গেলে বা আইনি ব্যবস্থা নিলে – রাজ্য রাজনীতিতে নতুন কি ঝড় ওঠে সেদিকেই তাকিয়ে এখন সংশ্লিষ্ট মহল।

আপনার মতামত জানান -
Top
error: Content is protected !!