এখন পড়ছেন
হোম > রাজ্য > কলকাতা > বৈশাখীকে কাঁদতে দেখে কি প্রতিক্রিয়া দিলেন রত্না ,জেনে নিন

বৈশাখীকে কাঁদতে দেখে কি প্রতিক্রিয়া দিলেন রত্না ,জেনে নিন


ফের সংবাদ শিরোনামে শোভন চট্টোপাধ্যায় ও তাঁর বিশেষ বান্ধবী বৈশাখী বন্ধ্যোপাধ্যায়। বিস্ফোরক অভিযোগ তুলে এদিন শোভন চট্টোপাধ্যায়কে পাশে নিয়ে মিলি আল আমিন কলেজের অধ্যক্ষ পদ থেকে ইস্তফা দিলেন বৈশাখি বন্দ্যোপাধ্যায়।

আজ বুধবার সাংবাদিক সম্মেলনে বৈশাখী বন্দ্যোপাধ্যায় দাবি করেন যে, শিক্ষামন্ত্রী পার্থ চট্টোপাধ্যায়ের নির্দেশে কলেজে তাঁকে হেনস্থা করা হয়েছে একাধিক বার। সোশ্যাল মিডিয়ায় নানা ভিডিও ছড়ানো হয়েছে তাঁকে নিয়ে। এছাড়া শিক্ষামন্ত্রী পার্থ চট্টোপাধ্যায়ের অনুরোধ মেনে শোভন চট্টোপাধ্যায় তৃণমূল কংগ্রেসে না ফেরার সিদ্ধান্তের জন্যই তাঁকে হেনস্থা করা হচ্ছে তাঁকে। এদিন বৈশাখী  পার্থ চট্টোপাধ্যায়ের উদ্দেশে বলেন, উনি রেগে গেলে আমায় বকুন কিন্তু পিছন থেকে ছুরি মারবেন না।

WhatsApp-এ প্রিয় বন্ধু মিডিয়ার খবর পেতে – ক্লিক করুন এখানে

আমাদের অন্যান্য সোশ্যাল মিডিয়া গ্রূপের লিঙ্ক – টেলিগ্রামফেসবুক গ্রূপ, ট্যুইটার, ইউটিউব, ফেসবুক পেজ

আমাদের Subscribe করতে নীচের বেল আইকনে ক্লিক করে ‘Allow‘ করুন।

এবার থেকে আমাদের খবর পড়ুন DailyHunt-এও। এই লিঙ্কে ক্লিক করুন ও ‘Follow‘ করুন।



আপনার মতামত জানান -

শুধু তাই নয়, মুখোন্ত্রীর বিরুদ্ধেও অভিযোগ তুলে বলেন যে, “দিদি আমার স্বামীকে বলেছেন, তোমার বউ শোভনকে নিয়ে যা বাড়াবাড়ি করেছে, সেজন্য শোভনকে তাড়ালাম ৷ ” অভিযোগ করতে করতে এদিন হাউ হাউ করে কেঁদে ফেলেন বৈশাখী। আর এই দেখেই নিজের প্রতিক্রিয়া দিলেন শোভন-পত্নী রত্না। জানালেন ওঁর এটাই হওয়ার ছিল।

রত্নাদেবী এদিন বলেন, “এতদিন রত্না চ্যাটার্জি কেঁদেছে। এ বার ওঁর পালা। এ বার বুঝুক, চোখের জল ফেলা কতটা কষ্টের।” সাথেই কটাক্ষের সুর শোনা যায় তাঁর গলায় তিনি বলেন যে, “যাক বাবা! বাঁচা গেল। কলেজের বাকি অধ্যাপকরা এ বার শান্তিতে পড়াতে পারবেন!”

আপনার মতামত জানান -

Top
error: Content is protected !!