এখন পড়ছেন
হোম > বিশেষ খবর > তৃণমূল নেতা-বিধায়কদের বিরুদ্ধে কয়লা মাফিয়া ও গরু পাচারের অভিযোগ বাবুল সুপ্রিয়র

তৃণমূল নেতা-বিধায়কদের বিরুদ্ধে কয়লা মাফিয়া ও গরু পাচারের অভিযোগ বাবুল সুপ্রিয়র

গতকাল রাজ্যের সাংবিধানিক প্রধান রাজ্যপাল কেশরীনাথ ত্রিপাঠীর সঙ্গে দেখা করে কেন্দ্রীয় প্রতিমন্ত্রী বাবুল সুপ্রিয় পঞ্চায়েত নির্বাচনে সন্ত্রাস, গোটা রাজ্যে চোরাচালানে প্রত্যক্ষ মদত এবং প্রশাসনিক অসহযোগিতা-সহ একগুচ্ছ অভিযোগ করলেন। কোনো রকম রাখঢাক না করেই সরাসরি নাম নিলেন তৃণমূল কংগ্রেস বিধায়ক ও নেতাদের বিরুদ্ধে। আসানসোলের মেয়র তথা তৃণমূল বিধায়ক জিতেন্দ্র তিওয়ারি, পশ্চিম বর্ধমান জেলা তৃণমূলের সভাপতি ভি শিবদাসন (দাসু) ও বারাবনির তৃণমূল বিধায়ক বিধান উপাধ্যায় – এই তিনজন তৃনামল কংগ্রেস নেতা ও আসানসোলের এক পুলিশ অফিসারের বিরুদ্ধে তিনি বিস্ফোরক অভিযোগ করলেন রাজ্যপালের কাছে।

আরো খবর পেতে চোখ রাখুন প্রিয়বন্ধু মিডিয়া-তে

রাজভবন থেকে বেরিয়ে সংবাদমাধ্যমের সামনে মুখ খুলে কেন্দ্রীয় প্রতিমন্ত্রী বাবুল সুপ্রিয় বলেন, লালা, রাজু ঝা-সহ সব কয়লা মাফিয়া এখন তৃণমূলের ছাতার তলায়। শাসক দলের নেতারা কয়লা মাফিয়াদের হয়ে যে ভাবে সওয়াল করছেন, তাতে মাফিয়াদের সঙ্গে ওঁদের যোগসাজস স্পষ্ট হয়ে গিয়েছে। শুধু কয়লা নয়, রাজ্য জুড়ে গরু পাচারও চলছে তৃণমূলের প্রত্যক্ষ মদতে। এনামুল নামে এক মাফিয়া সম্প্রতি সিবিআই-এর হাতে গ্রেফতারও হয়েছে। কিন্তু এত দিন ধরে পুলিশ তার বিরুদ্ধে কোনও পদক্ষেপ করেনি। সব চোরাকারবারি তৃণমূলের ছাতার তলায়। তাই রাজ্যের পুলিশ এদের বিরুদ্ধে কোনও পদক্ষেপ করে না। এই সমস্ত তথ্যই রাজ্যপালের কাছে অভিযোগ আকারে জমা দেওয়া হয়েছে। আসানসোলের এক পুলিশ অফিসারের নাম করে আমি অভিযোগ জানিয়েছি। আমাকে কী ভাবে ওই পুলিশকর্তা হেনস্থা করেছেন, সে কথাই অভিযোগে জানাতে চেয়েছি। কিন্তু পুলিশ কিছুতেই এফআইআর নিচ্ছে না। আমি রাজ্যপালকে বিষয়টি জানিয়েছি। আদালতের পথেও যাচ্ছি। যত দূর যেতে হয় যাব। রাজ্যপালের সঙ্গে কেন্দ্রীয় প্রতিমন্ত্রীর প্রায় মিনিট ২০ বৈঠক হয়, তাঁর সমস্ত অভিযোগই রাজ্যপাল শুনেছেন বলে বাবুল সুপ্রিয় দাবি করেছেন।

আপনার মতামত জানান -
Top
error: Content is protected !!