এখন পড়ছেন
হোম > জাতীয় > আসামে যাওয়া তৃণমূলের প্রতিনিধিদলের বিরুদ্ধে এফআইআর – বিতর্ক ক্রমশ তুঙ্গে উঠছে

আসামে যাওয়া তৃণমূলের প্রতিনিধিদলের বিরুদ্ধে এফআইআর – বিতর্ক ক্রমশ তুঙ্গে উঠছে

অসমে তৃণমূলের প্রতিনিধি দলের বিরুদ্ধে উঠল পুলিস নিগ্রহের অভিযোগ। ভারতীয় দণ্ডবিধির ৩২৩ ও ৩৩৮ ধারায় অভিযোগ করেছেন অসম পুলিশের কর্মী রুবি দাস। তাঁর অভিযোগ তৃণমূল সাংসদ মহুয়া মৈত্র বিমানবন্দরে তাঁকে শারীরিক নিগ্রহ করেছেন যার জন্য তাঁকে হাসপাতালে ছুটতে হয়েছে। শুক্রবার এক সাংবাদিক বৈঠকে অসম পুলিশের ডিজি কূলধর সাইকিয়াও জানিয়েছিলেন তৃণমূল নেতাদের হাতে নিগৃগীত হয়েছেন মহিলা পুলিশকর্মীদের কয়েকজন। তাঁদের হাসপাতালে ভর্তি করতে হয়েছে বলেও দাবি করেছিলেন সাইকিয়া।

আরো খবর পেতে চোখ রাখুন প্রিয়বন্ধু মিডিয়া-তে

——————————————————————————————-

এবার থেকে প্রিয় বন্ধুর খবর পড়া আরো সহজ, আমাদের সব খবর সারাদিন হাতের মুঠোয় পেতে যোগ দিন আমাদের হোয়াটস্যাপ গ্রূপে – ক্লিক করুন এই লিঙ্কে।

তৃণমূল সাংসদদের বিরুদ্ধে অপর একটি এফ আই আরে অসম প্রশাসন ভারতীয় দণ্ডবিধির ১০৭ ধারায় তৃণমূলের নেতাদের ওপর পুলিশকর্মীদের মারধর করার অভিযোগ এনেছে। দু-দুটি এফআইআরই দায়ের হয়েছে অসমের কাছাড় জেলার উদরবন্দ থানায়। এই ঘটনাকে কেন্দ্র করে তৃণমূল ও বিজেপি দুই দলই একে অপরকে দোষারোপ করে চলেছে। এই দুটি এফ আই আরের আগেই তৃণমূল বিমানবন্দর থানাতে অসমের মুখ্যমন্ত্রী সর্বানন্দ সনোয়ালের বিরুদ্ধে অভিযোগ দায়ের করেছিল।

বিমানবন্দরে তাঁদের শারীরিক হেনস্থা করেছে অসম পুলিশ এবং তার পিছনে রয়েছে সোনোয়ালের প্রত্যক্ষ মদত – এই ছিল তৃণমূলের বক্তব্য। তারপরেই অসম পুলিসের পক্ষ থেকে এই এফ আই আর ২ টি দায়ের করা হয়। বিজেপি ও তৃণমূলের এই চাপান উতরের খেলায় আসল বিষয়টি থেকেই নজর সরে যাচ্ছে এমনই মত ওয়াকিবহাল মহলের।

আপনার মতামত জানান -
Top
error: Content is protected !!