এখন পড়ছেন
হোম > রাজ্য > উত্তরবঙ্গ > অশোকের বিরুদ্ধে দাঁড়াতে তৃণমূলের হুড়োহুড়ি, ভোট কাটাকাটিতে জিতবে বাম! জোর জল্পনা!

অশোকের বিরুদ্ধে দাঁড়াতে তৃণমূলের হুড়োহুড়ি, ভোট কাটাকাটিতে জিতবে বাম! জোর জল্পনা!

Priyo Bandhu Media

দীর্ঘদিন ধরেই শিলিগুড়ি পৌরসভা বামেদের দখলে রয়েছে। যেখানে অশোক ভট্টাচার্যের মত হেভিওয়েট বাম নেতাকে মুখ করে বারবার এই পৌরসভায় সাফল্য পেয়েছে কাস্তে-হাতুড়ি শিবির। তবে এবার পৌরসভা নির্বাচনে শিলিগুড়ি পৌরসভা বামেদের থেকে নিজেদের দখলে নিতে নানা ব্লুপ্রিন্ট সাজাতে শুরু করেছে তৃণমূল কংগ্রেস। কিন্তু আশ্চর্যজনকভাবে তৃণমূল সাফল্য পাবার চেষ্টা করলেও, সেই অশোক ভট্টাচার্যকে হারানোর জন্য তৃণমূলের নেতাদের তার ওয়ার্ডে দাঁড়ানোর প্রতিদ্বন্দ্বীতা বড়সড় চিন্তায় ফেলেছে ঘাসফুল শিবিরকে।

বিশেষজ্ঞরা বলছেন, অশোক ভট্টাচার্যের বিরুদ্ধে তৃণমূলের বেশিরভাগ নেতা প্রার্থী হতে চাইছেন। তার মূল কারণ, বামেদের এই হেভিওয়েট নেতাকে হারিয়ে তৃণমূলের সেই নেতা সর্বোচ্চ জায়গায় পৌঁছতে চাইছেন। আর তাই বেছে বেছে অশোক ভট্টাচার্যকে হারানোর জন্য তার ওয়ার্ডকেই বেছে নিচ্ছেন তৃণমূলের সিংহভাগ নেতা বলে মত একাংশের। কিন্তু একটি ওয়ার্ডে তো একজন প্রার্থী দাঁড়াবেন। সেদিক থেকে তৃণমূল কংগ্রেস যদি কোনো একজনকে স্থির করে এবং বাকিরা যদি হতাশ হন এবং তার পরিপ্রেক্ষিতে যদি তৃণমূলে বিতর্ক দানা বাঁধে, তাহলে অশোক ভট্টাচার্যকে হারানো অত্যন্ত সমস্যা হবে বলেই মত বিশ্লেষকদের।

সূত্রের খবর, বামেদের অশোক ভট্টাচার্যের বিরুদ্ধে দাঁড়ানোর জন্য তৃণমূলের তরফে উদ্যোগ নিতে দেখা গেছে অরূপরতন ঘোষকে‌। এছাড়াও যুবনেতা নিরঞ্জন সরকার, জেলা তৃণমূলের নেতা মিলন দত্ত, মহম্মদ আলম এই দৌড়ে রয়েছেন বলে খবর। আর বামেদের মেয়র তথা হেভিওয়েট নেতা অশোক ভট্টাচার্যকে হারানোর জন্য যেভাবে তৃণমূলের নেতারা টিকিট পেতে উদ্যোগী হয়েছেন, তাতে বিরম্বনা বাড়বে তৃণমূলের বলেই দাবি রাজনৈতিক মহলের।

এদিন এই প্রসঙ্গে দার্জিলিং জেলা তৃণমূলের সভাপতি তথা শিলিগুড়ি পৌরসভার বিরোধী দলনেতা রঞ্জন সরকার বলেন, “আমরা এই আসনটিকে অত্যন্ত গুরুত্ব দিয়ে দেখছি। গতবারের সমস্যা এবার হবে না। একাধিক দাবিদার থাকতেই পারে। তবে সমস্যা মিটে যাবে।” তবে তার বিরুদ্ধে তৃণমূলের যে হেভিওয়েট নেতাই দাঁড়ানোর চেষ্টা করুক না কেন, শেষ পর্যন্ত তিনিই শেষ হাসি হাসবেন বলে দাবি করেছেন অশোক ভট্টাচার্য।

WhatsApp-এ প্রিয় বন্ধু মিডিয়ার খবর পেতে – ক্লিক করুন এখানে

আমাদের অন্যান্য সোশ্যাল মিডিয়া গ্রূপের লিঙ্ক – টেলিগ্রামফেসবুক গ্রূপ, ট্যুইটার, ইউটিউব, ফেসবুক পেজ

আমাদের Subscribe করতে নীচের বেল আইকনে ক্লিক করে ‘Allow‘ করুন।

এবার থেকে আমাদের খবর পড়ুন DailyHunt-এও। এই লিঙ্কে ক্লিক করুন ও ‘Follow‘ করুন।



আপনার মতামত জানান -

এদিন তিনি বলেন, “প্রার্থী হতে গেলে আমি সবার আগে পছন্দ করব এই ওয়ার্ড থেকে দাঁড়াতে। 2011 সালে বিধানসভা ভোটে হেরে যাওয়ার পর থেকে এখান থেকছ দাঁড়িয়েই পৌরভোটে কামব্যাক করেছি। এই ওয়ার্ডের মানুষ বিপদে আমার পাশে থেকেছেন। তাদের কাছে আমি কৃতজ্ঞ। সব কাজ করতে পেরেছি, কখনই বলব না। তবে এলাকার মানুষকে মর্যাদা দিয়ে দেখি। তাদের সমস্যাগুলো গুরুত্ব দিয়ে সমাধানের চেষ্টা করি।”

রাজনৈতিক বিশেষজ্ঞরা বলছেন, অশোক ভট্টাচার্যের বিরুদ্ধে তৃণমূলের সিংহভাগ নেতা দাঁড়ানোর জন্য যতই তদ্বির করুন না কেন, এতে অশোক ভট্টাচার্যের চিন্তা কম। বরঞ্চ তৃণমূলের চিন্তা বেশি। কেননা বামেদের মেয়রের বিরুদ্ধে তৃণমূলের যারা দাঁড়াতে ইচ্ছা প্রকাশ করেছেন, তাদের মধ্যে যদি কেউ দাঁড়াতে না পারে, তাহলে তারা নির্দল হয়ে এই ওয়ার্ডে দাড়াতে পারেন। যার ফলে ভোট কাটাকুটিতে শেষ পর্যন্ত শেষ হাসি হাসতে পারেন সেই অশোক ভট্টাচার্য। এখন গোটা পরিস্থিতি কোনদিকে গড়ায়, সেদিকেই নজর থাকবে সকলের।

আপনার মতামত জানান -

Top
error: Content is protected !!