এখন পড়ছেন
হোম > বিশেষ খবর > শিলিগুড়ির উন্নয়নের কথা ভেবে এবার গৌতম দেবের ‘হাত ধরতে’ চান অশোক ভট্টাচার্য

শিলিগুড়ির উন্নয়নের কথা ভেবে এবার গৌতম দেবের ‘হাত ধরতে’ চান অশোক ভট্টাচার্য

রাজনৈতিক মতাদর্শের দিক থেকে দুজনে সম্পূর্ণ দুই ভিন্ন মেরুর। কিন্তু শিলিগুড়ির উন্নয়নের স্বার্থে এবার তৃণমূল কংগ্রেস নেতা তথা রাজ্যের পর্যটনমন্ত্রী গৌতম দেবের ‘হাত ধরতেও’ পিছপা নন শিলিগুড়ির মেয়র তথা বাম-বিধায়ক অশোক ভট্টাচার্য। সূত্রের খবর রাজ্য সরকারের উপর চাপ বাড়াতে গৌতমবাবুকে সঙ্গী করে এবার শিলিগুড়ি পুরসভার জন্য অর্থ আদায়ে দরবার করতে চাইছেন তিনি। অশোকবাবু জানিয়েছেন, পর্যটনমন্ত্রীর নেতৃত্বে রাজ্য সরকারের কাছে কলকাতা যেতে চাই। বঞ্চনা শুধু আমাকেই করা হচ্ছে তা নয়, এই শহরের মন্ত্রীকেও করা হচ্ছে, চিঠি দিয়ে তাঁর সহযোগিতা চাইব। ২০১৭-১৮ অর্থবর্ষে পকিল্পনা খাতে রাজ্য পুরসভাগুলির জন্য ১০ হাজার কোটি টাকা বরাদ্দ করেছে। রাজ্যের সমস্ত পুরসভা সেই টাকা পেয়েছে, কিন্তু শিলিগুড়ি পুরসভা এক টাকাও পায়নি। এই খাতে অন্তত ৩০০ কোটি টাকা রাজ্য সরকারের কাছে পাওনা রয়েছে। সমস্ত বিষয়গুলি নিয়ে পুরমন্ত্রী ফিরহাদ হাকিমের সঙ্গে বহুবার সাক্ষাৎ করেছি, কোনও ইতিবাচক অগ্রগতি নেই। আমি সমস্ত কাউন্সিলারদের নিয়ে অর্থ আদায়ের জন্য পুরমন্ত্রীর কাছে যেতে চাই, আমি এনিয়ে সবাইকে চিঠি দিয়েছি, পুরমন্ত্রী সময় দিচ্ছেন না। তাই গৌতমবাবুর নেতৃত্বে কলকাতা যেতে চাইছি। বঞ্চনার বিষয়টি জানাতে আগামী ১৭ জানুয়ারি মেয়র পরিষদ সদস্যদের নিয়ে রাজ্যপালের সঙ্গে দেখা করব।
অন্যদিকে অশোকবাবুর এই আবেদন পত্রপাঠ নাকচ করে দিয়েছেন রাজ্যের পর্যটনমন্ত্রী গৌতম দেব। গৌতমবাবুর বক্তব্য, বাম আমলে বিরোধী দলের নেতাদের নিয়ে প্রাপ্য আদায়ে কোনও দিন অশোকবাবু জ্যোতি বসু বা বুদ্ধদেব ভট্টাচার্যের কাছে যাননি। তা ছাড়া রাজ্য সরকার শিলিগুড়ি পুরসভাকে যথেষ্ট অর্থ দিচ্ছে। আমি রাজ্য মন্ত্রিসভার সদস্য। কেন মেয়রকে নিয়ে অর্থ আদায়ের জন্য যাব?

আপনার মতামত জানান -
Top
error: Content is protected !!