এখন পড়ছেন
হোম > রাজ্য > আসানসোলে জাল আধার কার্ড চক্র, উদ্ধার ১০ হাজার ভুয়ো কার্ড, গ্রেপ্তার তিন

আসানসোলে জাল আধার কার্ড চক্র, উদ্ধার ১০ হাজার ভুয়ো কার্ড, গ্রেপ্তার তিন

এবার জাল আধার কার্ড তৈরিতে আসাসোলের হটন রোড থেকে এই চক্রের তিন পান্ডাকে গ্রেপ্তার করল পুলিশ। জানা গেছে, কিছুদিন আগে একটি চক্রের খোঁজ পেলেও সেটি জাল নয় বলে প্রাথমিক অনুমান করেছিলেন প্রশাসনিক আধিকারিকেরা। পরে হটন রোডের অফিসে হানা দিয়ে 10 হাজার ভুয়ো আধার কার্ড বাজেয়াপ্ত করে পুলিশ। তবে প্রথমভাগে এই আধার কার্ড জাল মনে না করার পেছনে অনেক কারনও রয়েছে। কেননা অতীতেও দুর্গাপুর,অন্ডাল সহ বেশ কটি জায়গায় হানা দিয়ে নকল আধার কার্ড হিসাবে ধরা হলেও পরে দেখা যায় যে সেই কার্ডগুলি নকল ছিল না।  

আরো খবর পেতে চোখ রাখুন প্রিয়বন্ধু মিডিয়া-তে

——————————————————————————————-

এবার থেকে প্রিয় বন্ধুর খবর পড়া আরো সহজ, আমাদের সব খবর সারাদিন হাতের মুঠোয় পেতে যোগ দিন আমাদের হোয়াটস্যাপ গ্রূপে – ক্লিক করুন এই লিঙ্কে।

আর এরপর থেকে আসানসোল পোষ্টঅফিসে বিনামূল্যে এই আধার কার্ড তৈরি হলেও কেন টাকা দিয়ে সেই আধার কার্ড নিতে সেই কেন্দ্রে এলাকার লোকেরা ভিড় করতেন তা নিয়েও উঠতে শুরু করেছে প্রশ্ন। পুলিশ সূত্রের খবর, এই আধার কার্ড তৈরির জন্য 250 থেকে 500 টাকা করে নেওয়া হত। জানা গেছে, এই ভুয়ো আধার তৈরিতে ধৃত তিন ব্যাক্তি প্রথমে আসানসোলের একটি সংস্থাতে বৈধ ভাবেই আধার কার্ড তৈরির কাজ করত। পরে ওই সংস্থার আধার কার্ড তৈরির অনুমতি বাতিল হলে ওই তিন ব্যাক্তি দীর্ঘদিন ধরে কাজ করার সুবাদে কার্ড তৈরিল সমস্ত প্রক্রিয়া জেনে নিজেরাই স্ক্যানার ও ল্যাপটপ কিনে বিগত ছ মাস ধরে এই নকল আধার কার্ড তৈরি করতে থাকে।

আরএরপরই সেই ভুয়ো আধার কার্ডের নম্বর ও যে সংস্থায় তাঁরা কাজ করত তা শুনে সন্দেহ হলে এদিন আসানসোলে ওই তিনজনের ডেরায় তল্লাশি চালিয়ে  ওই তিন ব্যাক্তি সহ 10 হাজার ভুয়ো কার্ড উদ্ধার করেছে পুলিশ। তদন্তকারীদের অনুমান, এই আধার কার্ড তৈরিতে বাজার থেকে 30 থেকে 35 লক্ষ টাকা তোলা হয়েছে। ঝাড়খন্ড এবং বিহার থেকে অনেকে এসে ভুয়ো কার্ড তৈরি করেছে বলে মত তাঁদের। এ প্রসঙ্গে আসানসোলের মহকুমাশাসক প্রলয় রায়চৌধুরী বলেন, “আধারকার্ড দপ্তর উদ্ধার কার্ডগুলিকে জাল বলে জানিয়েছে। বিষয়টি তদন্ত চলছে।”

 

আপনার মতামত জানান -
Top
error: Content is protected !!