এখন পড়ছেন
হোম > জাতীয় > অসম থেকে বিজেপি যাঁদের তাড়াবে, তাঁদের আশ্রয় দেবে বাংলা : মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়

অসম থেকে বিজেপি যাঁদের তাড়াবে, তাঁদের আশ্রয় দেবে বাংলা : মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়

সাম্প্রদায়িক ইস্যুতে প্রথম থেকেই কেন্দ্রের বিজেপি সরকারের প্রতি ক্ষুব্ধ বাংলার মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়।বিভাজনের রাজনীতি করে বিজেপি জাতি এবং ধর্মের মধ্যে ভাঙ্গন ধরাচ্ছে বলেও বারবার অভিযোগ করেছেন তিনি।

আর তাইতো কদিন আগেই অসমে এই এনআরসির নামে 40 লক্ষ নাগরিককে বিতাড়িত করার যে ফর্মুলা জারি করেছিল কেন্দ্রের বিজেপি সরকার তার বিরোধিতা করে মাঠে নেমেছিল বাংলার শাসকদল তৃণমূল কংগ্রেস। দলীয় সাংসদদের সেই অসমে পাঠিয়ে দুর্গত মানুষদের পাশে দাঁড়িয়ে সেই বিজেপির বিরুদ্ধে প্রতিবাদেও নেমেছিলেন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়।

এমনকি অসম থেকে যদি তাদের বিতাড়িত করা হয় তাহলে বাংলা সেই সব মানুষকে আশ্রয় দেবে বলেও জানিয়ে দিয়েছিলেন বঙ্গের প্রশাসনিক প্রধান। কিন্তু অসমের সেই এনআরসি প্রক্রিয়ার বেশ কিছু দিন পেরিয়ে গেলেও নিজের অবস্থান থেকে যে তিনি একচুলও নড়েননি গতকাল কোচবিহারের রাসমেলার ময়দানে জনসভা থেকে ফের সেই বার্তা দিলেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়।

সূত্রের খবর, এদিন কোচবিহারের রাসমেলা ময়দানে সরকারী পরিষেবা প্রদান অনুষ্ঠানে এনআরসি ইস্যুতে কেন্দ্রের বিজেপি সরকারকে তুলোধোনা করেন মুখ্যমন্ত্রী। পাশাপাশি অসমের মানুষদের পাশে যে বাংলা সব সময় আছে এদিন সেকথাও বুঝিয়ে দেন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। এদিন তিনি বলেন, “আত্মমর্যাদার অধিকার রক্ষার লড়াইয়ে ভাই বোনেদের উপর অত্যাচার হলে বাংলা সব সময় তাদের পাশে থাকবে। অসম থেকে বিজেপি যাদের তারাবে তাদের আশ্রয় দেবে বাংলা।”

পাশাপাশি গুজরাটেও যে বাঙালি খেদাও শুরু হয়েছে তাতেও বাংলা সেই দুর্গত মানুষদের পাশে থাকবে বলে এ দিন আশ্বাস দিয়েছেন তিনি। প্রসঙ্গত উল্লেখ্য, এবারের লোকসভা নির্বাচনে বাংলাকেই পাখির চোখ করেছে বিজেপি। সেই মতো আগামী ডিসেম্বরে থেকে এই বাংলার তিন প্রান্ত থেকে রথযাত্রার কর্মসূচিও নিয়েছে গেরুয়া শিবির। তবে বিজেপির এইসব নাটক ছাড়া আর কিছুই নয় বলে মনে করেন তৃণমূল সুপ্রিমো।

এদিনধের সভা থেকে সেই সেই ইস্যুতেও উপস্থিত দর্শকদের সমর্থন পান তিনি। আর এরপরই মুখ্যমন্ত্রী বলেন, “শরীরের সব অঙ্গ নিয়ে যেমন একটা দেহ, ঠিক তেমনই কালো সাদা সবাইকে নিয়ে একটা দেশ। ভাষা আলাদা, সংস্কৃতি আলাদা হলেও আমরা সবাই মানুষ। আর এই সহজ সত্যটাকে ভুলিয়ে দিতে হিন্দু-মুসলমানে ভাগাভাগি করতে চাইছে কেন্দ্রের বিজেপি সরকার।”

ফেসবুকের কিছু টেকনিকাল প্রবলেমের জন্য সব খবর আপনাদের কাছে পৌঁছেছে না। তাই আরো খবর পেতে চোখ রাখুন প্রিয়বন্ধু মিডিয়া-তে

 

এবার থেকে প্রিয় বন্ধুর খবর পড়া আরো সহজ, আমাদের সব খবর সারাদিন হাতের মুঠোয় পেতে যোগ দিন আমাদের হোয়াটস্যাপ গ্রূপে – ক্লিক করুন এই লিঙ্কে

পাশাপাশি গান্ধীজি, মৌলানা আজাদ, ভগৎ সিং, রবীন্দ্র-নজরুল কেউ ভুলিয়ে দেওয়া হচ্ছে বলে কেন্দ্রের বিজেপি সরকারের বিরুদ্ধে তোপ দাগেন বাংলার মুখ্যমন্ত্রী। রাজনৈতিক মহলের মতে, এই কোচবিহার জেলায় ধীরে ধীরে নিজেদের রাজনৈতিক ভিত শক্ত করছে গেরুয়া শিবির। আর তাই প্রশাসনিক সভাকে ব্যবহার করে সেই বিজেপির বাঙ্গালী খেদাও অভিযান কে তুলে এনে বাংলার সরকার যে সব সময় সাধারন মানুষের পাশে আছে তা এ দিনের সভার মধ্যে দিয়ে ফের প্রমাণ করে নিজের ভোট ব্যাংক শক্ত করতে চাইলেন তৃণমূল সুপ্রিমো তথা মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় এমনটাই মত রাজনৈতিকমহলের।

Top
error: Content is protected !!