এখন পড়ছেন
হোম > বিশেষ খবর > অর্জুন সিংয়ের ‘ঘনিষ্ঠের’ চালে বেকায়দায় বিজেপি

অর্জুন সিংয়ের ‘ঘনিষ্ঠের’ চালে বেকায়দায় বিজেপি

উত্তর ২৪ পরগনার নোয়াপাড়া থানা সংলগ্ন গারুলিয়া মন্ডলে বিজেপি কার্যালয়কে কেন্দ্র করে ফের চাঞ্চল্য শুরু হয়েছে সংশ্লিষ্ট এলাকায়। এদিন বিজেপির ওই কার্যালয়টি উদ্বোধন করার কথা ছিল রেলের রাষ্ট্রমন্ত্রী মনোজ সিনহার। কিন্ত তার আগেই গারুলি মেন রোডের উপর একটি কমন রাস্তার উপর এই কার্যালয় তৈরি হয়েছে বলে দাবী করে গত রাতে নোয়াপাড়া থানায় লিখিত অভিযোগ জানিয়েছেন গারুলিয়া পৌরসভার পুরপ্রধান সুনীল সিং, যিনি ভাটপাড়ার তৃণমূল কংগ্রেস বিধায়ক অর্জুন সিংয়ের আত্মীয় ও আসন্ন নোয়াপাড়া উপনির্বাচনে তৃণমূল কংগ্রেস প্রার্থী হতে পারেন বলে রাজনৈতিক মহলে জল্পনা। সুনীলবাবু তাঁর করা অভিযোগে স্পষ্ট করেন যে জমিটি নিয়ে যেহেতু মামলা চলছে এবং ১৪৪ ধারা জারি রয়েছে সেখানে এমতাবস্থায় সেখানে বিজেপির দলীয় কার্যালয় তৈরি বা কোনো রাষ্ট্রমন্ত্রীর দ্বারা তা উদ্বোধন করা সম্ভব হয় কি করে?
এ প্রসঙ্গে ব্যারাকপুর শিল্পাঞ্চলের দ্বায়িত্বপ্রাপ্ত তৃণমূল কংগ্রেস নেতা তথা ভাটপাড়ার বিধায়ক অর্জুন সিং তাঁর প্রতিক্রিয়ায় জানান, বিজেপি বেআইনী ভাবে ওই দলীয় কার্যালয় গড়ে তুলেছে। আদালতের নির্দেশ উপেক্ষা করে ওরা বিতর্কিত জমিতে ওদের কার্যালয় কেন্দ্রীয়মন্ত্রীকে দিয়ে উদ্বোধন করাতে চাইছে। বিষয়টি সম্পুর্ন বেআইনি। আমরা বিষয়টি পুলিশকে জানিয়েছি। কেন্দ্রীয় মন্ত্রী ওই দলীয় কার্যালয় উদ্বোধন করলে তা নিয়ম বিরুদ্ধ কাজ হবে। গোটা বিষয়টা এখন ব্যারাকপুর পুলিশ কমিশনারেটের উর্দ্ধতন কর্তৃপক্ষের দ্বায়িত্বাধীন। প্রসঙ্গত রেল প্রতিমন্ত্রী মনোজ সিনহা গতকাল শেষ পর্যন্ত ওই দলীয় কার্যালয়ের উদ্বোধনে যাননি, যা নিয়ে দলীয় কর্মীদের ক্ষোভের মুখেও পড়তে হয়। রাজনৈতিক মহলের ধারণা সুনীল সিং সামনে থেকে অভিযোগ জানালেও আসলে পিছন থেকে মাস্টারপ্ল্যান তৃণমূল নেতা অর্জুন সিংয়েরই, বর্তমানে দলের তরফে কাঁচরাপাড়া-হালিশহর অঞ্চলে তিনিই দায়িত্ত্বে আছেন এবং সেই দায়িত্ত্ব নিয়ে তিনি যে বিজেপিকে এক ইঞ্চি জমিও ছাড়বেন না গতকালের ঘটনায় তা স্পষ্ট।

আপনার মতামত জানান -
Top
error: Content is protected !!