এখন পড়ছেন
হোম > রাজ্য > মত্‍স্যমন্ত্রীর বাড়ি থেকে ফেরার পথে আক্রান্ত তৃণমূল নেতা অভিযোগের তীর অনুব্রতর দিকে

মত্‍স্যমন্ত্রীর বাড়ি থেকে ফেরার পথে আক্রান্ত তৃণমূল নেতা অভিযোগের তীর অনুব্রতর দিকে

এটা কি ‘দাদা’র শিক্ষা দেবার কৌশল নাকি কারুর রোষের শিকার হলেন তৃণমূলের জেলা নেতা ত্রিদিব ভট্টাচার্য।শুক্রবার রাত ১১ টাই কলহপুর গ্রামে মত্‍স্যমন্ত্রী চন্দ্রনাথ সিংহ-র বাড়ি থেকে ফেরার পথে গুসকিরায় আক্রান্ত হন ত্রিদিববাবু। ধানের বস্তা ফেলে রাস্তা অবরুদ্ধ করে তাকে তার গাড়ি থেকে জোর করে নামিয়ে চড় থাপ্পড় মেরে মোবাইল ও টাকা পয়সা কেড়ে নেয় একদল দুষ্কৃতী।ঘটনার পরিপ্রেক্ষিতে মত্‍স্যমন্ত্রী চন্দ্রনাথ সিংহ থানায় অভিযোগ দায়ের করেছে।
এই ঘটনাকে কেন্দ্র করে রাজনৈতিক মহলে চর্চার তরজা এখন উচ্চে। দলের একাংশের মতে ‘বেয়াড়া’ ত্রিদিবকে ‘সবক’ শেখাতে সবটাই ‘দাদা’র নির্দেশে।অনুব্রত অনুগামীরা বলছেন, ”সোজা আঙুলে ঘি না উঠলে আঙুল বাঁকাতেই অভ্যস্ত আমাদের ‘দাদা’। এক্ষেত্রেও সেটাই করেছেন।”এমনকি পুলিশ সূত্রেও উঠে এসেছে  অভিহিত ত্রিদীপবাবুর অভিযোগের ভিত্তিতে যে আটজনের নাম জানা গেছে তারা প্রত্যেকেই অনুব্রতর অনুগামী হিসেবেই পরিচিত।প্রকৃতপক্ষে রামুরহাট রাস্তার ওপরেই প্রকাশ্যে লরি থামিয়ে সেখান থেকে ‘বখরা’ আদায় করতেন ত্রিদিব অনুগামীরা।আর এই তোলাবাজির চরম বিরুদ্ধে অনুব্রত।এই নিয়ে ত্রিদিবের উপর  তার যথেষ্ট ক্ষোভ ছিল তার।কিছু দিন আগে অনুব্রত এক জনসভায় জানিয়েছিলেন এই সমস্ত জিনিস বরদাস্ত করা হবে না. দলের মধ্যে তাই গুঞ্জন উঠছে যে শিক্ষা দেবার উদ্যেশেই অনুব্রত পরোক্ষ ভাবে এটি তিনি  করিয়েছেন।তবে বিষয়টি নিয়ে অনুব্রত বা ত্রিদিব কেউই মুখলতে নারাজ।
ঘটনাটি এখনও অর্ধেক জলে।পুলিশের সম্পূর্ণ তদন্তের পরেই বোঝা যাবে আসল অভিযুক্ত কে।
আপনার মতামত জানান -
Top
error: Content is protected !!