এখন পড়ছেন
হোম > রাজ্য > নদীয়া-২৪ পরগনা > জেলা নেতৃত্বের দেওয়া অভ্যার্থনা ছুড়ে ফেলে বিতর্ক বাড়ালেন অনুব্রত

জেলা নেতৃত্বের দেওয়া অভ্যার্থনা ছুড়ে ফেলে বিতর্ক বাড়ালেন অনুব্রত

বারবারই তাঁর কাজকর্ম ও মন্তব্য বিতর্কের সৃষ্টি করেছে। তাঁর চরাম চরাম থেকে শুরু করে নানা বিতর্কিত মন্তব্য তাঁকে খবরের শিরোনামে তুলে এনেছে। লোকসভা নির্বাচনের আগে বীরভূম, বর্ধমানের সঙ্গে নদিয়ার দ্বায়িত্ব পেয়েছেন তিনি সৌজন্যে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়।

আর এদিন কৃষ্ণনগরে তৃণমূলের সভা ছিল। আর সেই সভাতেই এমন কান্ড করলেন যা নিয়ে শোরগোল পরে গেছে রাজ্য রাজনীতিতে। অনুষ্ঠান শুরু আগে তৃণমূলের প্রথা মেনে উত্তরীয় পরিয়ে অনুব্রত মণ্ডলকে স্বাগত জানান কৃষ্ণনগর পুরসভার প্রাক্তন পুরপ্রধান অসীম সাহা। পাশে দাঁড়িয়ে জেলা তৃণমূল সভাপতি গৌরীশঙ্কর দত্ত। তেরঙ্গা উত্তরীয় গলায় পরাতেই তা দু’হাতে পিছনে ছুড়ে ফেলে দেন অনুব্রত মণ্ডল। দলের শীর্ষস্থানীয় নেতার এহেন আচরণে হতবম্ব হয়ে যান মঞ্চে উপস্থিত তৃণমূল নেতারাও।

ফেসবুকের কিছু টেকনিক্যাল প্রবলেমের জন্য সব আপডেট আপনাদের কাছে সবসময় পৌঁচ্ছাছে না। তাই আমাদের সমস্ত খবরের নিয়মিত আপডেট পেতে যোগদিন আমাদের হোয়াটস্যাপ বা টেলিগ্রাম গ্রূপে।

১. আমাদের Telegram গ্রূপ – ক্লিক করুন
২. আমাদের WhatsApp গ্রূপ – ক্লিক করুন
৩. আমাদের Facebook গ্রূপ – ক্লিক করুন
৪. আমাদের Twitter গ্রূপ – ক্লিক করুন
৫. আমাদের YouTube চ্যানেল – ক্লিক করুন

প্রিয় বন্ধু মিডিয়ায় প্রকাশিত খবরের নোটিফিকেশন আপনার মোবাইল বা কম্পিউটারের ব্রাউসারে সাথে সাথে পেতে, উপরের পপ-আপে অথবা নীচের বেল আইকনে ক্লিক করে ‘Allow‘ করুন।


আপনার মতামত জানান -

কেন এমনটি করলেন তিনি তা নিয়ে কিন্তু এদিন মুখ খোলেন নি অনুব্রতবাবু। পাশাপাশি মুখ খোলেন নি দলের নেতা নেত্রীরাও। তবে চাপা ক্ষোভ শুরু হয়েছে দলের অন্দরে। দলের কর্মীদেরই একাংশ শীর্ষ নেতার এহেন আচরণে খুশি নন। তবে অন্য অংশের দাবি যে দলীয় সংগঠন তেমন মজবুত নয় সেখানে তা দেখি অনুব্রতবাবু চটেছেন আর এই কারণেই এই কান্ড ঘটিয়েছেন।

আপনার মতামত জানান -
Top
error: Content is protected !!