এখন পড়ছেন
হোম > রাজ্য > জল্পনা বাড়িয়ে অনুব্রতর গড়ে দাঁড়িয়েই অনুব্রতর বিরুদ্ধে বিস্ফোরক অভিযোগ তৃণমূল সাংসদের

জল্পনা বাড়িয়ে অনুব্রতর গড়ে দাঁড়িয়েই অনুব্রতর বিরুদ্ধে বিস্ফোরক অভিযোগ তৃণমূল সাংসদের

বীরভূমের জেলা সভাপতি অনুব্রত মণ্ডল। হুমকি দিয়ে কথা বলার জন্য যিনি বারবারই খবরের শিরোনামে উঠে আসেন। কখনো বলেন চরাম চরাম ঢাক বাজানোর কথা আবার কখনো পুলিশকে প্রকাশ্যে বোম মারতে চান। বহুবার বহু বিতর্কে নাম জড়িয়েছে তাঁর। যে দলের নেতারা ও তার বিরুদ্ধে এনেছেন অভিযোগ, তবু অনুব্রত আছেন অনুব্রততেই।

দলের সংসদ শতাব্দি রায় এবার মুখ খুললেন অনুপাত ওর বিরুদ্ধে। এমনিতেই অনুব্রত-শতাব্দি বহুদিন ধরেই চলে আসছে‌। এদিন তাতে নয়া মাত্রা যোগ করলেন শতাব্দি রায়। অনুব্রত কে প্রকাশ্যে ‘কুকথার ব্র্যান্ড, ট্যাগ লাইন’ বললেন শতাব্দি। জেলা সভাপতি ও জেলার সাংসদের মধ্যে এই কোন দলে অস্বস্তি’ বাড়লো তৃণমূল শিবিরে। এমনিতেই এই জেলায় ইতিমধ্যে বিজেপির বাড়বাড়ন্ত শুরু হয়ে গেছে।

বিজেপি নেতৃত্ব এই মুহূর্তে বীরভূম জেলার দুটি আসনেই খুব সম্ভাবনাময় বলে গ্রহণ করছে। আর এই মুহূর্তে দাঁড়িয়ে লোকসভা ভোটের প্রাকমুহুর্তে দলের এই অন্তর্দ্বন্দ্বে স্বাভাবিকভাবেই চাপ বাড়ছে তৃণমূলে, এমনটাই মনে করছেন বিশেষজ্ঞ মহল।

বৃহস্পতিবার সন্ধ্যায় রামপুরহাটে একটি অনুষ্ঠানে অংশগ্রহণ করেন বীরভূম জেলার সাংসদ শতাব্দী রায়। রামপুর হাটের কালীপুজো উদ্বোধন করেন তিনি। সেখান থেকে বেরোনোর সময় রাজনৈতিক নেতাদের কথা নিয়ে শতাব্দীকে প্রশ্ন করেন সাংবাদিকরা। সেখানেই তিনি অনুব্রতকে এহেন ভাষায় আক্রমণ করেন। তিনি স্পষ্টই বলেন,রাজনৈতিক নেতাদের কথা বলার ক্ষেত্রে সবসময় মার্জিত হওয়া প্রয়োজন। ভাষা ব্যবহারের ক্ষেত্রে সংযত হওয়া উচিত। কিন্তু অনেক ক্ষেত্রেই তা হয়না।

ফেসবুকের কিছু টেকনিকাল প্রবলেমের জন্য সব খবর আপনাদের কাছে পৌঁছেছে না। তাই আরো খবর পেতে চোখ রাখুন প্রিয়বন্ধু মিডিয়া-তে

 

এবার থেকে প্রিয় বন্ধুর খবর পড়া আরো সহজ, আমাদের সব খবর সারাদিন হাতের মুঠোয় পেতে যোগ দিন আমাদের হোয়াটস্যাপ গ্রূপে – ক্লিক করুন এই লিঙ্কে

এরপরই তিনি সরাসরি ফরেন তৃণমূল জেলা সভাপতিকে। তিনি বলেন,-অনুব্রতবাবু তো কুকথার ট্যাগ লাইন হয়ে উঠেছেন। এখন কুকথায় ওনার ব্র্যান্ড। এ বিষয়ে উনি স্টার। আর সংবাদমাধ্যমও এটাকে হাতিয়ার করে মুনাফা লুটছে।”এ কথা বলার পাশাপাশি, তিনি অনুব্রত মণ্ডলের অনেক ভালো দিক রয়েছে বলেও দাবি করেন। তবে দলে সাংসদের এ হেন খুল্লামখুল্লা অভিযোগের সম্বন্ধে অনুব্রতবাবু এখনো কোনো প্রতিক্রিয়া দেননি

Top
error: Content is protected !!