এখন পড়ছেন
হোম > রাজ্য > মালদা-মুর্শিদাবাদ-বীরভূম > ফের গোষ্ঠীদ্বন্দ্বে উত্তপ্ত অনুব্রত-গড়, যুব সভাপতির অনুগত ‘নব্য’ তৃণমূলীর বাড়ি পুড়ল

ফের গোষ্ঠীদ্বন্দ্বে উত্তপ্ত অনুব্রত-গড়, যুব সভাপতির অনুগত ‘নব্য’ তৃণমূলীর বাড়ি পুড়ল



জেলায় জেলায় যখন শাসকের বিরুদ্ধে সুর চড়িয়ে পথে নামছে গেরুয়া শিবির ঠিক তখনই শাসক বনাম শাসকের লড়াইয়ে উত্তপ্ত হল বীরভূমের নানুরের চন্ডীপুর গ্রাম।

সূত্রের খবর, জেলা তৃনমূলের যুব সভাপতি গদাধর হাজরার অনুগামী আনারুল শেখের সাথে শাসকদলেরই একসময়কার দাপুটে যুব নেতা কাজলের অনুগামী হোসেন শেখের বিবাদ দীর্ঘদিনের।

জানা যায়, গত 2016 সালের বিধানসভা ভোটের পরে এই কাজলবাবু নিষ্ক্রিয় হয়ে পড়লে তাঁর বিরুদ্ধে মাঠে নামে তৃনমূলেরই ব্লক সভাপতি সুব্রত ভট্টাচার্যের অনুগামীরা। আর এই গোষ্টীদ্বন্দ্ব আরও প্রকট হয়ে ওঠে যখন এই হোসেন শেখ সেই সুব্রত ভট্টাচার্যের বিরুদ্ধ গোষ্টীতে নাম লেখান।

এদিকে দীর্ঘদিন ধরে এলাকায় সিপিএম কর্মী বলে পরিচিত আনারুল শেখ গত বিধানসভা নির্বাচনের পরে জেলা তৃনমূলের যুব সভাপতি গদাধর হাজরার মাধ্যমে তৃণমূলে নাম লেখালে আরও তীব্র হয় গোষ্টীদ্বন্দ্ব। অভিযোগ, এই আনারুল শেখ আসার পরেই আদি তৃনমূল কর্মী হোসেন শেখ কোণঠাসা হয়ে পড়েন।

সম্প্রতি পঞ্চায়েত নির্বাচনকে কেন্দ্র করে এই আনারুল এবং হাসনের মধ্যে দ্বন্দ্ব আরও তীব্র হয়ে ওঠে। জানা যায়, বড়া-সাওতা গ্রাম থেকে এবার আনারুলকে শেখকে প্রার্থী করে তৃনমূল। বিনা প্রতিদ্বন্দ্বিতায় জিতেও যান যিনি। আর এরপরেই গোষ্ঠীদ্বন্দ্ব আরও প্রকাশ্যে চলে আসে। এদিকে এরই মাঝে বিনা প্রতিন্দ্বন্দ্বীতায় জয়ী প্রার্থীদের ব্যাপারে নতুন করে আর ভোট হবে না বলে সুপ্রিম কোর্ট রায় দিলে ২৪ আগস্ট বিজয় মিছিল করাকে কেন্দ্র করে চরম বোমাবাজি চলে।

অভিযোগ, আনারুল শেখের অনুগামীরা হোসেন শেখের অনুগামী হিঙ্গুল শেখের বাড়ি পুড়িয়ে দেয়। এমনকী বেশ কয়েকজন গ্রামছাড়াও হয়ে পড়েন। সূত্রের খবর, তিন দিন আগে পুলিশের হস্তক্ষেপে তারা গ্রামে ফিরলে আনারুল শেখের এক অনুগামীর বাড়িতে বোমা বাঁধা হচ্ছিল বলে অভিযোগ করে গ্রামবাসীরা।

ফেসবুকের কিছু টেকনিকাল প্রবলেমের জন্য সব খবর আপনাদের কাছে পৌঁছেছে না। তাই আরো খবর পেতে চোখ রাখুন প্রিয়বন্ধু মিডিয়া-তে

এবার থেকে প্রিয় বন্ধুর খবর পড়া আরো সহজ, আমাদের সব খবর সারাদিন হাতের মুঠোয় পেতে যোগ দিন আমাদের হোয়াটস্যাপ গ্রূপে – ক্লিক করুন এই লিঙ্কে

এদিকে হোসেন শেখের লোকেরাই পুলিশকে এই খবর জানিয়েছে বলে আনারুল শেখের অনুগামীরা ফের চড়াও হন সেই শেখ হোসেন অনুগামীদের উপরে। আর এরপরই রাত দুটোর সময়ে আনারুল শেখের বাড়িতে আগুন জ্বলতে দেখা যায়। চলে বোমাবাজিও। যার ফলে তীব্র হয়ে উঠেছে শাসকদলে। তবে এই ব্যাপারে সুব্রত ভট্টাচার্য এবং গদাধর হাজরা কেউই গোষ্ঠীদ্বন্দ্বের কথা স্বীকার করেননি। সব মিলিয়ে শাসক বনাম শাসকের বিবাদে উত্তপ্ত অনুব্রত গড়।

আপনার মতামত জানান -

Top
error: Content is protected !!