এখন পড়ছেন
হোম > রাজ্য > মালদা-মুর্শিদাবাদ-বীরভূম > অনুব্রত গড়ে তৃণমূল নেতাদের বাড়ি লক্ষ্য করে বোমা-গুলি, অভিযোগের তির বিজেপির দিকে

অনুব্রত গড়ে তৃণমূল নেতাদের বাড়ি লক্ষ্য করে বোমা-গুলি, অভিযোগের তির বিজেপির দিকে

এ যেন বাঘের খাস তালুকেই হামলা হলো সেই বাঘের বাচ্চাদের ওপরে। হ্যাঁ, বীরভূমের তৃণমূল জেলা সভাপতি অনুব্রত মণ্ডল এক কথায় রাজনৈতিক বাঘ বললেই চলে। যার দাপটে বিরোধী তো দূর অস্ত, শাসকদলের কর্মীরাও রীতিমতো তটস্থ হয়ে থাকেন। কিন্তু এবারে সেই অনুব্রত মণ্ডলেরই গড় বীরভূমের সাঁইথিয়ার বহড়াপুর গ্রামের তৃণমূল ব্লক সভাপতি এবং পঞ্চায়েত প্রধানের বাড়ি লক্ষ্য করে ব্যাপক বোমাবাজির জেরে উত্তপ্ত হল এলাকা।

সূত্রের খবর, গত সোমবার সকাল দশটা নাগাদ তৃণমূল ব্লক সভাপতি সাবের আলি ও তারই ভাইপোর স্ত্রী তথা ফুলুর গ্রাম পঞ্চায়েতের প্রধান লাভলি বেগমের বাড়িতে হঠাৎই আক্রমণ চালায় কিছু দুষ্কৃতী।

জানা যায়, সেই সময় সেই সাবের আলী বাড়িতে না থাকায় রীতিমতো আতঙ্কিত হয়ে পড়েন অন্যান্য সদস্যরা।চলে ব্যাপক বোমাবাজি। আর এরপরই পরিবারের অন্যান্য সদস্যরা সেই সাবির আলিকে ফোন করে বাড়িতে ডাকলে সেই দুষ্কৃতীদের সঙ্গে তার প্রবল লড়াই শুরু হয়।

এদিকে এই গোটা পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে গতকাল সকালে পুলিশ এলেও তাদের সামনেই চলতে থাকে দু’পক্ষের এই লড়াই। পরে অবশ্য বিশাল পুলিশবাহিনী এসে গোটা পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনে। ‌ কিন্তু এই ভাবে ঠিক কে বা কারা শাসকদলের ব্লক সভাপতির প্রতি হামলা চালালো?

একাংশের ধারণা, স্থানীয় তৃণমূল ব্লক সভাপতি সাবের আলি তার ঘনিষ্ঠ আত্মীয়কেই এবার পঞ্চায়েতে প্রধান করেছেন। আর যার জেরে কিছু তৃণমূল কর্মী বিক্ষোভ দেখান এলাকায়। তাই এই দ্বন্দ্ব আসলে শাসকদলের নেতাদের মধ্যেই। যদিও বা শাসক দলের দাবি যে, বিজেপিই এই ঘটনার সাথে জড়িত।

এদিন এ প্রসঙ্গে সেই তৃণমূল ব্লক সভাপতি সাবের আলী বলেন, “বিজেপির দুষ্কৃতীরাই এই পুরো ঘটনা ঘটিয়েছে। দলকে আমি সমস্ত বিষয়টি জানিয়েছি।” অন্যদিকে শাসকদলের গোষ্ঠী সংঘর্ষের জেরেই এই খুন। তাই বিজেপির বিরুদ্ধে অভিযোগ সর্বৈব ভিত্তিহীন বলে দাবি করেছেন জেলা বিজেপির সভাপতি রামকৃষ্ণ রায়। কিন্তু যেই জেলাকে কার্যত নখদর্পণে রাখেন তিনি, ঠিক সেইখানেই কেন হামলা হল তৃণমূল কংগ্রেস কর্মীর ওপর?

ফেসবুকের কিছু টেকনিকাল প্রবলেমের জন্য সব খবর আপনাদের কাছে পৌঁছেছে না। তাই আরো খবর পেতে চোখ রাখুন প্রিয়বন্ধু মিডিয়া-তে

 

এবার থেকে প্রিয় বন্ধুর খবর পড়া আরো সহজ, আমাদের সব খবর সারাদিন হাতের মুঠোয় পেতে যোগ দিন আমাদের হোয়াটস্যাপ গ্রূপে – ক্লিক করুন এই লিঙ্কে

এদিন এই প্রসঙ্গে জেলা তৃণমূল সভাপতি অনুব্রত মণ্ডল বলেন, “বিজেপি ও আরএসএসের পাল্লায় পড়ে স্থানীয় কিছু ছেলে আমাদের ব্লক সভাপতির বাড়ি ভাঙচুর করেছে। তবে জেলায় কোথাও কোনো গোষ্ঠী দ্বন্দ্ব নেই।” সব মিলিয়ে এবার খোদ অনুব্রত গড়ে শাসক-বিরোধী সংঘর্ষ প্রবল উত্তেজনা ছড়ালো।

আপনার মতামত জানান -
Top
error: Content is protected !!