এখন পড়ছেন
হোম > রাজ্য > কলকাতা > সুপ্রিম কোর্টের রায়ের ‘উন্নয়নের’ জয়, কি বলছেন ‘রাস্তায় উন্নয়ন দাঁড় করানো’ অনুব্রত মন্ডল?

সুপ্রিম কোর্টের রায়ের ‘উন্নয়নের’ জয়, কি বলছেন ‘রাস্তায় উন্নয়ন দাঁড় করানো’ অনুব্রত মন্ডল?

অবশেষে রাজ্যের পঞ্চায়েত নিয়ে ফয়সালা হল সুপ্রিম কোর্টে – আর রায় বেরোতেই দেখা গেল হাসি চওড়া হয়েছে রাজ্যের শাসকদল তৃণমূল কংগ্রেসের। অন্যদিকে, বড়সড় ধাক্কা খেল – বিজেপি, বামফ্রন্ট সহ বিরোধী দলগুলো। সুপ্রিম কোর্টের রায়ে স্পষ্ট – নতুন করে কোনও ভোট করা হবে না। ফলে, বিনা প্রতিদ্বন্দ্বিতায় ভোটে জয়ী প্রার্থীদের নামও ঘোষণা করা যাবে এবার। আর তাই বোর্ড গঠনেও আর কোনো বাধা রইলো না।

প্রসঙ্গত, রাজ্যে পঞ্চায়েত নির্বাচনের নির্ঘন্ট ঘোষণা হতেই বিজেপি-বামফ্রন্ট-কংগ্রেস সকলেই মিলিতভাবে রাজ্যের শাসকদল তৃণমূল কংগ্রেসের বিরুদ্ধে ‘সন্ত্রাসের’ অভিযোগ তুলেছিল। এমনকি রাজ্যের যে প্রায় ৩৪% আসনে শাসকদল বিনা প্রতিদ্বন্দ্বিতায় জিতেছে – তার পরিপ্রেক্ষিতে দাবি ছিল, শাসকদলের ‘লাগামহীন সন্ত্রাসের’ ফলেই সেখানে বিরোধীরা প্রার্থী দিতে পারে নি। যদিও শাসকদল প্রতিটি ক্ষেত্রেই সেই দাবি উড়িয়ে জানিয়েছিল – বিরোধীরাই প্রার্থী খুঁজে পায় নি।

আরো খবর পেতে চোখ রাখুন প্রিয়বন্ধু মিডিয়া-তে

এবার থেকে প্রিয় বন্ধুর খবর পড়া আরো সহজ, আমাদের সব খবর সারাদিন হাতের মুঠোয় পেতে যোগ দিন আমাদের হোয়াটস্যাপ গ্রূপে – ক্লিক করুন এই লিঙ্কে

আর শাসকদলের এই ‘সন্ত্রাসের’ অভিযোগে যাঁর দিকে আঙুল সবথেকে বেশি উঠেছিল – তিনি হলেন বীরভূমের তৃণমূল কংগ্রেস জেলা সভাপতি অনুব্রত মন্ডল। কেননা তিনি প্রথমদিন থেকেই রাস্তাজুড়ে উন্নয়ন দাঁড় করানোর তত্ত্ব বলে এসেছিলেন। আর বিরোধীদের দাবি ছিল, অনুব্রতবাবু আদতে রাস্তায় তৃণমূলের ‘গুন্ডাবাহিনী’ দাঁড় করিয়ে রাখার কথা বলছেন। অন্যদিকে, অনুব্রতবাবুর নিজের দাবি ছিল – মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় যে উন্নয়ন করেছেন – তা সাধারণ মানুষ রাস্তায় বেরোলেই দেখতে পান, তিনি আদতে সেই উন্নয়নের কথায় বলেছেন।

অনুব্রতবাবুর জেলাতেই বিনা প্রতিদ্বন্দ্বিতায় জেতা প্রার্থীর সংখ্যা সবথেকে বেশি। এমনকি জেলা পরিষদে তো তাঁর দলের বিরুদ্ধে কেউ দাঁড়াতেই পারেননি। আর তাই আজ পঞ্চায়েত মামলার রায় বেড়োতেই আবারো উন্নয়নের জয়গান শোনা গেল অনুব্রত মন্ডলের গলায়। তিনি এদিন স্বভাবসিদ্ধ ভঙ্গিতে বলেন, উন্নয়ন জিতেছে – এই জয় মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের উন্নয়নের জয়।

কিন্তু, বিজেপি রাজ্য সভাপতি দিলীপ ঘোষ আজকের রায়ের পরিপ্রেক্ষিতে জানান, ৩৪% আসনে বিনা প্রতিদ্বন্দ্বীতায় জিতছে তৃণমূল, এটা ভাবার বিষয়। যেখানে ভোট হয়েছে আমরা ৪০% ভোট পেয়েছি। রাজ্যের ৬ হাজার আসনে আমরা জিতেছি। আমি চ্যালেঞ্জ জানাচ্ছি, লোকসভা ভোটে শান্তিপূর্ণ ভোট করে দেখাক। কার কত দম লোকসভা ভোটে দেখে নেব। যার পরিপ্রেক্ষিতে তৃণমূলের ‘কেষ্টদার’ ছোট্ট জবাব, ও সব পাগলের প্রলাপ!

আপনার মতামত জানান -
Top
error: Content is protected !!