এখন পড়ছেন
হোম > রাজ্য > অনুব্রত মন্ডলের বিতর্কিত মন্তব্য ঘিরে তোলপাড় রাজনৈতিকমহল

অনুব্রত মন্ডলের বিতর্কিত মন্তব্য ঘিরে তোলপাড় রাজনৈতিকমহল

যখনি মুখ খোলেন তখনি সংবাদ শিরোনামে চলে আসেন। তিনি আর কেউ নন তৃণমূলের বীরভূম জেলা সভাপতি অনুব্রত মন্ডল।এদিন সভাপতি ফের ‘জেলে ভরে’ দেওয়ার হুঁশিয়ারি দিয়ে বিতর্ক বাড়ালেন। ময়ূরেশ্বর-১ ব্লকের মহিলা সমাবেশ ছিল এদিন সেখানেই কারও বিরুদ্ধে দুর্নীতির অভিযোগ উঠলে ‘জেলে ভরে’ দেব বলে মন্তব্য করেন। তিনি বলেন, “আপনাদের বাড়ি দিয়েছেন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। এখানে কারও দালালি করার অধিকার নেই। কোনও পঞ্চায়েত সদস্য টাকা চাইলে দেবেন না। দালালি করতে এলে স্থানীয় থানাকে খবর দেবেন। থানা কথা না শুনলে মহকুমা পুলিশ আধিকারিককে জানাবেন। তিনিও যদি কাজ না করেন তাহলে আমার কাছে যাবেন। আমি তাকে জেলে ভরে দেব নিশ্চিন্তে থাকুন।”আর এখনই বিতর্ক কেননা কোনো অভিযোগ এলে প্রথমে এসডিপিও -র কাছে যেতে হয় তিনি ব্যাপারটিতে গুরুত্ত্ব না দিলে পুলিশ সুপারের কাছে যেতে হয় কিন্তু অনুব্রতবাবু বলেছে তিনি জেল এ ভোরে দেবেন। ফলে বিরোধীরা প্রশ্ন তুলেছে যে নিজেকে কি জেলা পুলিশ সুপারের সঙ্গে তুলনা করছেন অনুব্রত মণ্ডল?নাকি তিনি নিজেকে প্রশাসনের সর্বেসর্বা হয়ে গেছেন ভাবছেন ? এত সাহস দিলো কে? এই নিয়ে বিজেপির বীরভূম জেলা পপর্যবেক্ষক সমীরণ সাহা বলছেন, “অনুব্রত মণ্ডল ঠিকই বলেছেন। কারণ এসপি তো ঠুঁটো জগন্নাথ। জেলা পুলিশ সুপার তৃণমূলের কাজকর্ম দেখেন। তা না হলে ভোট লুঠ করবেন কীভাবে? কারণ, পঞ্চায়েত নির্বাচন হলে অনুব্রত মণ্ডল নিজের জন্মভিটের মানুষের ভোটও পাবেন না। তাই তো সভায় সভায় তাকে সন্ত্রাস করার কথা বলতে হচ্ছে।” যদিও এই নিয়ে অনুব্রতবাবুর কোনো প্রতিক্রিয়া পাওয়া যায়নি।

আপনার মতামত জানান -
Top
error: Content is protected !!