এখন পড়ছেন
হোম > বিশেষ খবর > বিরোধীদের মনোনয়ন জমা না দিতে জনতাকে আইন হাতে তুলে নিতে বললেন অনুব্রত

বিরোধীদের মনোনয়ন জমা না দিতে জনতাকে আইন হাতে তুলে নিতে বললেন অনুব্রত

রাজ্যের এক বিশেষ ‘শক্তির’ স্নেহচ্ছায়া তাঁর মাথার উপর আছে, আর তাই তিনি যা খুশি তাই করতে পারেন, যা খুশি তাই বলতে পারেন। বীরভূম জেলা তৃণমূল কংগ্রেস সভাপতি অনুব্রত মন্ডল আগেও তা প্রমান করে দিয়েছেন। আবারো পুলিশকে সামনে রেখেই একের পর এক প্রকাশ্য হুমকি দিয়ে গেলেন। তাঁর দল মুখে বলে তাঁর কথা সমর্থন করে না, অথচ কোনো ব্যবস্থাও নেওয়া হয় না তাঁর বিরুদ্ধে। তাই তিনি দোর্দণ্ডপ্রতাপ এবং নির্বাচন যত এগিয়ে আসে তত প্রকাশ্যে আসে তাঁর বচন। যে বচনে পুলিশ-প্রশাসন-সাধারণ মানুষ-বিরোধী কাউকেই রেয়াত করেন না তিনি। যথারীতি পঞ্চায়েত ভোট আসন্ন এবং অনুব্রত-বুলি অব্যাহত। এবারে তিনি বললেন –

১. আগামী পঞ্চায়েত নির্বাচনে মনোনয়ন পত্র কেবল আমরাই জমা দেব
২. অন্য কোনও দলকে মনোনয়ন জমা দিতে দেবেন না
৩. অন্যরা বাংলার কোনও উন্নয়ন করেনি, তাই ভোটে দাঁড়ানোর কোনও অধিকার তাঁদের নেই
৪. কোনও ঘটনা ঘটলে পুলিশকেই যে সবসময় ব্যবস্থা নিতে হবে তার কোনও মানে নেই
৫. জনগণ রয়েছেন, তাঁরাও ব্যবস্থা নিতে পারেন, মনে রাখবেন সবার হাত পা আছে
৬. কানা বেগুনের নাম শুনেছেন? গাছে মাঝে মধ্যে কানা বেগুন হয়
৭. আমাদের দলে কিছু কানা বেগুন ছিল, একটা কানা বেগুনকে আমরা ছুঁড়ে ফেলে দিয়েছি, সে পালিয়ে গেছে
৮. ছবছরে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় দেখিয়ে দিয়েছেন উন্নয়ন কাকে বলে
৯. কই বিজেপি শাসিত রাজ্যগুলো তো সবুজসাথী, খাদ্যসাথী দিতে পারছেন না
১০. ওরা শুধু চিরকাল মানুষকে ভাঁওতা মেরে গেল
১১. রাজস্থানে যেভাবে কুপিয়ে পুড়িয়ে খুন করা হল তাতে স্পষ্ট, বিজেপি শাসিত রাজ্যগুলিতে আইনের শাসন বলে কিছু নেই
১২. সংখ্যালঘু বলেই কি এই আক্রমণ? এরা শাসক না দুঃশাসন?

আপনার মতামত জানান -
Top