এখন পড়ছেন
হোম > রাজ্য > বর্ধমান > অনুব্রতর বিরুদ্ধে অভিযোগ তুলে দল ছাড়ার পোস্ট, হেভিওয়েট নেত্রীর, পরে ডিলিট, জোর জল্পনা

অনুব্রতর বিরুদ্ধে অভিযোগ তুলে দল ছাড়ার পোস্ট, হেভিওয়েট নেত্রীর, পরে ডিলিট, জোর জল্পনা

Priyo Bandhu Media

একটি ফেসবুক পোস্টকে কেন্দ্র করে চাঞ্চল্য ছড়ালো বর্ধমানের গুসকরায়।এই পোস্টটি করেন গুসকরা পৌরসভার প্রাক্তন তৃণমূল কাউন্সিলর মল্লিকা চোঙদার।ফেসবুকে করা সেই পোস্টের সঙ্গে তিনি জড়িয়ে দিলেন বীরভূমের বিতর্কিত তৃণমূল নেতা অনুব্রত মণ্ডলের নাম। সরাসরি অনুব্রত মণ্ডলের বিরুদ্ধে অভিযোগ করে সোশ্যাল মিডিয়ায় দল ছাড়ার বার্তা দিয়ে মল্লিকা চোঙদার লেখেন- “অনুব্রত মণ্ডলের দুর্ব্যবহারে তৃণমূল কংগ্রেস দল ছাড়ার সিদ্ধান্তই নিলাম। ১৯৯৮ সাল থেকে দল করে ভালো সম্মান পেলাম!”

WhatsApp-এ প্রিয় বন্ধু মিডিয়ার খবর পেতে – ক্লিক করুন এখানে

আমাদের অন্যান্য সোশ্যাল মিডিয়া গ্রূপের লিঙ্ক – টেলিগ্রামফেসবুক গ্রূপ, ট্যুইটার, ইউটিউব, ফেসবুক পেজ

আমাদের Subscribe করতে নীচের বেল আইকনে ক্লিক করে ‘Allow‘ করুন।

এবার থেকে আমাদের খবর পড়ুন DailyHunt-এও। এই লিঙ্কে ক্লিক করুন ও ‘Follow‘ করুন।



আপনার মতামত জানান -

প্রসঙ্গত,গতকাল আউসগ্রাম এক নম্বর ব্লকের বিল্বগ্রাম অঞ্চলে তৃণমূলের একটি কর্মিসভা ছিল।এই সভাতেই মল্লিকা অনুব্রত মন্ডলের কাছে অভিযোগ করেন, লোকসভা নির্বাচনের ফল প্রকাশের পর থেকে জেলার বিভিন্ন জায়গায় বিজেপির আক্রমণের শিকার হচ্ছেন তৃণমূলকর্মীরা।

কিন্তু বারবার তৃণমূল শীর্ষ নেতৃত্বের কাছে বিষয়টি জানানো হলেও কোনও ব্যবস্থা নেওয়া হয়নি।শীর্ষ নেতৃত্বের সদর্থক ভূমিকা না নেওয়ার জন্য তৃণমূল কর্মী সমর্থকরা নিরাপত্তাহীনতায় ভুগছেন। সেইসময়েই এই বিষয়টি নিয়ে অনুব্রতর সঙ্গে বচসায় জড়িয়ে পড়েন মল্লিকা।

এরপর গতকাল রাতেই অনুব্রতর বিরুদ্ধে নিজের ফেসবুক টাইমলাইনে ক্ষোভ উগড়ে দেন মল্লিকা ।তিনি ফেসবুক পোস্টে অনুব্রত মন্ডলকে সরাসরি দায়ী করে দল ছাড়ার কথা ঘোষণা করেন। বিষয়টি নিয়ে অনুব্রত মন্ডলের বক্তব্য চাইলে তিনি নিজের বিরুদ্ধে ওঠা অভিযোগ উড়িয়ে দিয়ে স্বভাবসিদ্ধভঙ্গিতে বলেন, “ও কি করল তাতে আমার বয়েই গেল। ও দল করলেই বা কি আর না করলেই বা কি ।” যদিও পোস্টটি নিয়ে বিতর্ক বাড়ায় পরে ডিলিট করে দেন মল্লিকা ।

আপনার মতামত জানান -

Top
error: Content is protected !!