এখন পড়ছেন
হোম > রাজ্য > ‘বিরোধীদের’ প্রার্থী খোঁজা ও মনোনয়ন জমা দেওয়ার ‘দায়িত্ত্ব’ নিলেন অনুব্রত মন্ডল

‘বিরোধীদের’ প্রার্থী খোঁজা ও মনোনয়ন জমা দেওয়ার ‘দায়িত্ত্ব’ নিলেন অনুব্রত মন্ডল

শুক্রবার বর্ধমানের গুসকরা বাসস্ট্যাণ্ডে তৃণমূল মহিলা কংগ্রেসের সভা অনুষ্ঠিত হলো। অনুষ্ঠানের অন্যতম প্রধান বক্তা ছিলেন অনুব্রত মণ্ডল। সভায় উপস্থিত অনুব্রত বাবু , বিরোধীপক্ষ কে রামনবমী প্রসঙ্গে কড়া ভাষায় তোপ দেগে বললেন ”গুসকরাতে ধূমধাম করেই রামনবমী পালিত হবে। দেবতা কারও একার নয়। মানুষের জন্যই দেবতা। তাতে কে কি বলল, আমাদের কিছুই এসে যায় না।” এরপরে তিনি রাজ্যের প্রধান বিরোধী দুই দল সিপিএম ও বিজেপি তে এক তাঁবুতে এনে তাচ্ছিল্যের সুরে বললেন, ”সিপিএম নেতা মদন ঘোষ অনেকবার আমাকে খুন করার চেষ্টা করেছে। পারেনি। বিজেপি কি ভয় দেখাবে? আমাকে মারতে পারে একমাত্র ঈশ্বর, আল্লা। তা ছাড়া কাউকে আমি ভয় পাই না।”

আরো খবর পেতে চোখ রাখুন প্রিয়বন্ধু মিডিয়া-তে

চরম আত্মবিশ্বাসের সাথে পঞ্চায়েত নির্বাচনে বিরোধীদের অবস্থান প্রসঙ্গে এদিন তিনি বললেন, ”পঞ্চায়েত নির্বাচনে আউশগ্রাম, মঙ্গলকোট এবং কেতুগ্রামের মোট ১৬৭টি আসনে বিনা প্রতিদ্বন্দ্বিতায় জয়ী হবে তৃণমূল কংগ্রেস। বিজেপি, সিপিএম কেউই প্রার্থী দিতে পারবে না। তবে আমি চাই ওরা মনোনয়নপত্র জমা দিক।” মহিলা তৃণমূল কংগ্রেসের এই সভায় দলনেত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের ভূয়সী প্রশংসা করে এবং সমাজে তথা সংসারে নারীর সঠিক অবস্থান নির্ণয় করে বললেন, “এতদিন মহিলাদের নিয়ে কেউ ভাবেনি। তরকারি খারাপ হলে বাড়ির মেয়ে বৌদের গঞ্জনা শুনতে হয়। অথচ তাঁরাই সংসারকে ধরে রাখেন, ছেলেমেয়ে মানুষ করে, তাদের লেখাপড়া শেখান। কিন্তু মহিলাদের এতদিন কোনও সম্মান ছিল না। মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় এই সংসারের কারিগর। আগে না খেতে পেয়ে মানুষ মরত। দিদি তাদের মুখে খাবার তুলে দিয়েছেন। স্কুলের ছেলেমেয়েদের খাবারের ব্যবস্থা করে দিয়েছেন। অভাবী মানুষের মেয়ে-ছেলের বিয়ের জন্য রপশ্রী চালু করেছেন। বিয়ের সময় ২৫ হাজার টাকা পাবেন তাঁরা।” এরপরে আউশগ্রামের বিধায়ক অভেদানন্দ থাণ্ডার নাম না করেই স্থানীয় নেতাদের উদ্দেশ্যে বললেন, ”অভেদানন্দ ভাল ছেলে। তবে ও যদি কোনও কাজ না করে আমাকে বলবেন। আমি বকে দেবে।” এছাড়াও এদিনের সভায় তিনি পঞ্চায়েত ভোটের পর আউশগ্রামে আড়াই হাজার বাড়ি নির্মানের আশ্বাস দিলেন।

আপনার মতামত জানান -
Top
error: Content is protected !!