এখন পড়ছেন
হোম > রাজ্য > মালদা-মুর্শিদাবাদ-বীরভূম > অগ্নিগর্ভ অনুব্রত-গড়! প্রবল বিস্ফোরণে কাঁপল লাল মাটির দেশ

অগ্নিগর্ভ অনুব্রত-গড়! প্রবল বিস্ফোরণে কাঁপল লাল মাটির দেশ

ফের বোমা বিস্ফোরণের ঘটনায় আতঙ্ক বাংলায়। এবার বীরভূম জেলা তৃণমূল সভাপতি অনুব্রত মন্ডলের গড়ে বোমা বিস্ফোরণে তীব্র চাঞ্চল্য ছড়িয়ে পড়ল। সূত্রের খবর, এই বোমা বিস্ফোরণে তৃণমুলের পঞ্চায়েত সদস্যের ঘরের চালা উড়ে গেছে। শনিবার খয়রাশোল ব্লকের কাঁকরতলা

গ্রামের বড়রা গ্রামের সদস্য শেখ মহিবুলের বাড়িতে ঘটা এই বিস্ফোরণে দুটি ঘরের মাঝে থাকা এজবেস্টসের চালা উড়ে যায়। আর এই ঘটনায় আহত হন সেই সদস্যের স্ত্রী আফিয়া বিবি। এদিন এই প্রসঙ্গে জেলা সভাধিপতি ও খয়রাশোলের দায়িত্বে থাকা বিকাশ রায়চৌধুরি বলেন, “এটা বিরোধীদের চক্রান্ত। পাশেই ঝাড়খণ্ড। সেখান থেকে বিজেপির দুষ্কৃতীরা এসে অশান্তি সৃষ্টি করতে চাইছে।”

অন্যদিকে এই প্রসঙ্গে বিজেপির জেলা সভাপতি শ্যামাপদ মণ্ডল বলেন, ‘আমরা আগেই বলেছি পুলিশি নিষ্ক্রিয়তায় বারুদের স্তূপের দাঁড়িয়ে আছে বীরভূম। এখন কর্মীদের বাড়িতে বোমা বেরচ্ছে। সঠিক তল্লাশি হলে নেতাদের বাড়ি থেকে গুলি, বোমা-বন্দুক বেরবে।” এদিন এই প্রসঙ্গে বীরভূম জেলা পুলিশ সুপার শ্যাম সিং বলেন, একটি বিস্ফোরণের ঘটনা ঘটেছে। পুলিশ সবদিক থেকে খতিয়ে দেখছে।”

ফেসবুকের কিছু টেকনিক্যাল প্রবলেমের জন্য সব আপডেট আপনাদের কাছে সবসময় পৌঁচ্ছাছে না। তাই আমাদের সমস্ত খবরের নিয়মিত আপডেট পেতে যোগদিন আমাদের হোয়াটস্যাপ বা টেলিগ্রাম গ্রূপে।

১. আমাদের Telegram গ্রূপ – ক্লিক করুন
২. আমাদের WhatsApp গ্রূপ – ক্লিক করুন
৩. আমাদের Facebook গ্রূপ – ক্লিক করুন
৪. আমাদের Twitter গ্রূপ – ক্লিক করুন
৫. আমাদের YouTube চ্যানেল – ক্লিক করুন

প্রিয় বন্ধু মিডিয়ায় প্রকাশিত খবরের নোটিফিকেশন আপনার মোবাইল বা কম্পিউটারের ব্রাউসারে সাথে সাথে পেতে, উপরের পপ-আপে অথবা নীচের বেল আইকনে ক্লিক করে ‘Allow‘ করুন।


আপনার মতামত জানান -

প্রসঙ্গত, বিগত তিনদিন আগেই জামিন পেয়ে জেল থেকে মুক্ত হয়েছেন পঞ্চায়েত সদস্য শেখ মহিবুল। তিনি এলাকায় আজফারের ঘনিষ্ঠ বলে পরিচিত। কয়েকমাস আগে এই আফজারের বাড়িতে রাত্রে বোমা গুলি-সহ আক্রমণের পাশাপাশি বড়রা তৃণমূল পার্টি অফিসে মজুত বোমা ফেটে সেটি ধ্বসের মুখে পরে। আর এই সব ঘটনায় অন্যতম অভিযুক্ত ছিলেন সেই আফজার । আর তারই সঙ্গী হিসাবে শেখ মহিবুল তিনদিন আগে বিস্ফোরণ কাণ্ডে জেল থেকে ছাড়া পেয়ে বাড়ি আসলে শনিবারই তার বাড়িতে থাকা বোমা ফেটে উড়ে যায় বাড়ির একাংশ।

এদিন এই প্রসঙ্গে সেই মহিবুলের স্ত্রী আফিয়া বিবি বলেন, “দুপুরে বৃষ্টি শুরুর আগে বজ্রপাত শুরু হয়। তারই জেরে বোমা গুলি ফেটে যায় একসঙ্গে। সেই সময় আমি ঘরের ভিতরে ছিলেন। বিস্ফোরণে ঘরের একটি ভাঙা চাঙর এসে আমার গায়ে লাগে। আর তাতেই জখম হয়েছি।”

এদিকে বোমা ফাটার আওয়াজ শুনতে পাওয়ার পরই এলাকাজুড়ে তীব্র আতঙ্কের সৃষ্টি হয়। যে যার মতো করে প্রাণ বাঁচাতে পালাতে শুরু করে। আর একের পর এক বোমা বিস্ফোরণে যখন বীরভূমের খয়রাশোল এলাকার মানুষ তীব্র আতঙ্কে রয়েছে, তখনই এই ব্যাপারে শাসক দলকে কটাক্ষ করে পাল্টা মাঠে নামতে শুরু করেছে গেরুয়া শিবির। এদিন এই প্রসঙ্গে বিজেপি নেতা শ্যামাপদ মণ্ডল বলেন, “সারা বীরভূম জুড়ে পুলিশি তল্লাশিতে বোমা বন্দুক উদ্ধার হচ্ছে তৃণমূলের ঘর থেকে। আর মিথ্যা মামলায় ফাঁসানো হচ্ছে স্থানীয় বিজেপি নেতাকে।”

তবে বিজেপির এই অভিযোগকে সম্পূর্ণরূপে অস্বীকার করেছে তৃণমূল। এদিন এই প্রসঙ্গে তৃণমূল নেতা বিকাশ রায়চৌধুরি বলেন, ‘আমরা পুলিশকে বলেছি বহিরাগতরা কীভাবে বারেবারে বড়রা এলাকায় ঢূকে অশান্তি করছে, তা খতিয়ে দেখতে। কারণ মিথ্যা অভিযোগে আমাদের কর্মী সমর্থকদের উপর হামলা চালাচ্ছে বিজেপি।”

তবে রাজনীতির কারবারিরা এই নিয়ে একে অপরের বিরুদ্ধে মন্তব্য করলেও সাধারণ মানুষ চাইছেন যে খয়রাশোল এলাকা শান্ত থাকুক। ফলে ক্ষমতায় থাকা নেতারা এখন খয়রাশোলকে শান্ত করতে ঠিক কি পদক্ষেপ নেন, এখন সেদিকেই তাকিয়ে সকলে।

আপনার মতামত জানান -
Top
error: Content is protected !!