এখন পড়ছেন
হোম > রাজ্য > মালদা-মুর্শিদাবাদ-বীরভূম > অনুব্রত মন্ডলের গাঁজা কেসে অ্যারেস্ট করানোর বার্তার বিরুদ্ধে মুখ খুললেন নেত্রী – দেখে নিন ভিডিওতে

অনুব্রত মন্ডলের গাঁজা কেসে অ্যারেস্ট করানোর বার্তার বিরুদ্ধে মুখ খুললেন নেত্রী – দেখে নিন ভিডিওতে

তৃনমূল ছেড়ে বিজেপিতে আসার পরই প্রায়শই মুকুল রায় অভিযোগ করতেন যে, “বিজেপি কর্মীদেরকে নারকোটিক মামলায় ফাঁসাচ্ছে রাজ্যের শাসকদল।” এবার কি তাহলে বীরভূমের তৃনমূল সভাপতি অনুব্রত মন্ডলের বার্তাতে সেই মুকুল রায়ের কথারই প্রতিফলন ঘটল? সূত্রের খবর, গতকাল বীরভূমে তৃনমূলের জেলা কমিটির বৈঠক ছিল। আর সেই বৈঠকেই সঙ্গীতা চক্রবর্তী, উজ্বল চট্টোপাধ্যায়কে গ্রেপ্তারের নির্দেশ দেন অনুব্রত মন্ডল।

শুধু তাই নয় আউশগ্রামের বিধায়ক অভেদানন্দ থান্ডারকে উদ্দেশ্য করে এদিনের বৈঠকে বীরভূমের জেলা সভাপতি বলেন, “ফাইভ ম্যান কমিটি থেকে যে ছেলেটিকে বাদ দিলাম না, ওকে অ্যারেষ্ট করিয়ে দে।” আর এরপরই সঙ্গীতা চক্রবর্তী সম্পর্কে মুখ খুলে অনুব্রত মন্ডল বলেন, “মোটা করে মেয়েটা! কি যেন নাম?- সঙ্গীতা। ও কিন্তু বিজেপি করে। ওকে গাঁজা কেসে অ্যারেস্ট করিয়ে দে।” তবে শুধু বৈঠকে এই বার্তাই নয়, আউশগ্রামের আইসি এবং বর্ধমানের এসপিকে এই ব্যাপারে ফোন করে পদক্ষেপ নেওয়ার কথা বলেছেন জেলা তৃনমূলের সভাপতি।

ফেসবুকের কিছু টেকনিকাল প্রবলেমের জন্য সব খবর আপনাদের কাছে পৌঁছেছে না। তাই আরো খবর পেতে চোখ রাখুন প্রিয়বন্ধু মিডিয়া-তে

এবার থেকে প্রিয় বন্ধুর খবর পড়া আরো সহজ, আমাদের সব খবর সারাদিন হাতের মুঠোয় পেতে যোগ দিন আমাদের হোয়াটস্যাপ গ্রূপে – ক্লিক করুন এই লিঙ্কে

স্বাভাবিক ভাবেই বীরভূমের কেষ্টর এহেন কীর্তি প্রকাশিত হতেই সোরগোল পড়ে যায় সর্বত্র। অনুব্রত মন্ডলকে চাপে ফেলে দিয়ে সাথে সাথে সোশাল মিডিয়ায় একটি ভিডিও পোস্ট করেন ভারতীয় মানবাধিকার সংরক্ষন সংঘের রাজ্য সভানেত্রী সঙ্গীতা চক্রবর্তী। এদিন পূর্বের একটি ঘটনার কথা উল্লেখ করে সঙ্গীতাদেবী তাঁর ভিডিও পোস্টে বলেন, “দেড় বছর আগে আমার হাত পা ভেঙ্গে দিয়ে আমার বাড়ি এবং দোকানে বোমাবাজে করা হয়েছিল। যার পেছনে হাত রয়েছে এই অনুব্রত মন্ডলেরই। এখন আমার শরীরে প্লেট বসানো। তাই আমি এবং আমার পরিবারের যদি কিছু হয় তার জন্য দায়ী থাকবেন অনুব্রত মন্ডল।” স্বাভাবিকভাবেই জেলা তৃনমূল সভাপতির হুমকির পর সঙ্গীতা চক্রবর্তী সেই অনুব্রত মন্ডলের বিরুদ্ধে মুখ খোলায় চরম জলঘোলা তৈরি হয় জেলার রাজনীতিতে। রাজনৈতিক মহলের মতে, বিরোধী কন্ঠস্বরকে দমাতে শাসকদলের জেলা সভাপতি যেভাবে বিরোধী কর্মীদের গ্রেপ্তারির ভয় দেখাচ্ছেন, বাংলার সংস্কৃতি তা বড়ই বেমানান।

নিচের ভিডিওতে দেখে নিন সঙ্গীতা চক্রবর্তীর বক্তব্য–

 

আমাকে গাঁজা কেস দিয়ে arrest করার নিদান দিলেন অনুব্রত মণ্ডল বাবু…..https://m.facebook.com/story.php?story_fbid=478096709372133&id=100015154237635

Posted by Sangita Chakraborty on Sunday, 2 September 2018

 

Top
error: Content is protected !!