এখন পড়ছেন
হোম > রাজ্য > অনুব্রতের সুরে সুর মেলালেন বিজেপি নেতা,জোর শোরগোল রাজ্যে

অনুব্রতের সুরে সুর মেলালেন বিজেপি নেতা,জোর শোরগোল রাজ্যে

যাদের বিরুদ্ধে আইন শৃঙ্খলার অবনতির অভিযোগ তুলে প্রতিবাদে বনধ ডেকেছিল বিজেপি,এবার তাঁদের সুরেই সুর মেলাতে দেখা গেল গেরুয়া শিবিরের এক হেভিওয়েট নেতাকে। পুলিশকে বোমা মারার হুমকি দিলেন বিজেপি যুব নেতা শ্যামল রায়। বললেন,গোষ্ঠীদ্বন্দ্বের জেরে তৃণমূল বিপর্যস্ত। অনেক তৃণমূল কর্মী এর জন্য জেলে আটক রয়েছেন। এরপরই তিনি পুলিশকে বোমা মারার নিদান দিলেন। উল্লেখ্য, বিজেপি নেতা শ্যামল রায়ের মতো সম্প্রতি তৃণমূলের বীরভূম জেলা সভাপতি অনুব্রত মন্ডলও পুলিশকে বোমা মারার নিদান দিয়েছিলেন। যদিও তাঁর বিরুদ্ধে প্রশাসনের তরফ থেকে কোনো পদক্ষেপ নেওয়া হয়নি। এই একইরকম হুমকিতে বিজেপি-তৃণমূল নেতার সাদৃশ্য পাওয়া গেল। একথা প্রকাশ্যে আসার পর থেকেই রাজ্য রাজনীতিতে শোরগোল পড়ে গিয়েছে।

প্রসঙ্গত,ইসলামপুরের দাড়িভিট স্কুলে পুলিশের গুলিতে দুজন ছাত্র মৃত্যুর প্রতিবাদে গত ২৬ সেপ্টেম্বর রাজ্য জুড়ে ১২ ঘন্টার বনধ ডেকেছিল বিজেপি। অন্যান্য বনধ সমর্থকদের সঙ্গে বনধের দিনই শ্যামলবাবুকে গ্রেফতার করে বর্ধমান থানার পুলিশ। পরে তিনি জামিনে ছাড়া পেয়ে গেলেও রাজ্য পুলিশের বিরুদ্ধে যাবতীয় ক্ষোভ উগড়ে দেন এদিন। বর্ধমানের পারবিরহাটায় বিজেপি বিক্ষোভ সমাবেশের আয়োজন করেছিল ইসলামপুরের ছাত্র মৃত্যুর জন্য পুলিশ এবং প্রশাসনের বিরুদ্ধে প্রতিবাদ জানাতেই। সেখানেই বক্তব্য রাখতে গিয়ে পুলিশের বিরুদ্ধে হুঁসায়ারী দেন তিনি। সভায় প্রধান বক্তা হিসাবে রাজ্য বিজেপি সভাপতি দিলীপ ঘোষ উপস্থিত ছিলেন। তার আগে বক্তব্য রাখার পালা ছিল শ্যামলবাবুর। জনসভা থেকেই গর্জে উঠে দলীয় কর্মীদের উদ্দেশ্যে বার্তা দিতে গিয়ে বলেন,”লড়াই করুন। সামনে তৃণমূল আসুক আর পুলিশ আসুক, মারুন লাঠি, মাথা ফাটান। বোমা মারুন। পুলিশকে হটান, পুলিশকে দরকার নেই। পুলিশকে বলুন ওদের চামচাগিরি করতে। লড়াই দিন। কেস খাবেন, মার খাবেন, বর্ধমান হাসপাতাল আছে।”

ফেসবুকের কিছু টেকনিকাল প্রবলেমের জন্য সব খবর আপনাদের কাছে পৌঁছেছে না। তাই আরো খবর পেতে চোখ রাখুন প্রিয়বন্ধু মিডিয়া-তে

এবার থেকে প্রিয় বন্ধুর খবর পড়া আরো সহজ, আমাদের সব খবর সারাদিন হাতের মুঠোয় পেতে যোগ দিন আমাদের হোয়াটস্যাপ গ্রূপে – ক্লিক করুন এই লিঙ্কে

যারা এতোদিন তৃণমূলের হুঁসিয়ারী মন্তব্যের সমালোচনা করতো,সেই বিজেপির গলা থেকেই ঝড়ে পড়ল তৃণমূলের বানী। চাঁচাছোলা মন্তব্যে তৃণমূলের হেভিওয়েট নেতা অনুব্রত বাবু পুলিশকে বোমা মারার নিদান দিয়েছিলেন। এবার সেই একই নিদান শোনা গেল এক বিজেপি নেতার কন্ঠেও। বিজেপির এই আচরণ আরো একবার প্রমাণ করে দিল আসলে তৃনমূল ও বিজেপি একই মুদ্রার এপিঠ-ওপিঠ। তৃণমূল যদিও বিজেপি নেতার এই মন্তব্যের কড়া নিন্দা করেছে। বলেছে,বর্ধমান শহরে অশান্তির পরিবেশ সৃষ্টি করছে বিজেপি। এরপর কোনো কোনো গন্ডোগোল হলে বিজেপিকেই কাঠগড়ায় তোলা হবে। তবে বিজেপির বিরুদ্ধে তৃণমূলের এই মন্তব্যের থেকে রাজ্যরাজনীতিতে বেশি গুরুত্ব পাচ্ছে অনুব্রতের সুরে বিজেপি নেতার সুর মেলানোর প্রসঙ্গটিতে। এ নিয়ে জোর চর্চা শুরু হয়েছে রাজনৈতিকমহলে।

আপনার মতামত জানান -
Top
error: Content is protected !!