এখন পড়ছেন
হোম > রাজ্য > মালদা-মুর্শিদাবাদ-বীরভূম > শুভেন্দু অধিকারীর হাত ধরে আরও এক হেভিওয়েট প্রাক্তন বাম বিধায়ক শাসকদলের পথে

শুভেন্দু অধিকারীর হাত ধরে আরও এক হেভিওয়েট প্রাক্তন বাম বিধায়ক শাসকদলের পথে

নতুন বছরের শুরুতেই মজবুত হতে চলছে মালদহের তৃণমূল কংগ্রেস সংগঠন। বহুদিনের জল্পনাকে সত্যি করে প্রাক্তন বাম বিধায়ক রহিম বক্সি আগামীকাল তৃণমূলে যোগ দিতে চলেছেন। ১৯’এর ব্রিগেড সমাবেশকে নজরে রেখেই জেলাস্তরের দলীয় কাজকর্ম খতিয়ে দেখতে দুদিনের সফরে আজ মালদহে আসতে চলেছেন জেলা তৃণমূল পর্যবেক্ষক তথা মন্ত্রী শুভেন্দু অধিকারী। আজ, পুরাতন মালদহে দলের প্রধান, পঞ্চায়েত সমিতির সভাপতি ও জেলা পরিষদ সদস্যদের নিয়ে পূর্ব পরিকল্পিত বৈঠকে বসবেন তিনি।

আর, আগামীকাল অর্থাৎ ১১ ই জানুয়ারি উত্তর মালদহের পরিচিত ওই বাম বিধায়ক নেতার হাতে জোড়াফুলের পতাকা তুলে দেবেন শুভেন্দু অধিকারি – এমনটাই শাসকদল সূত্রের খবর। কানাঘুষো শোনা যাচ্ছে, লোকসভা ভোটের আগে উত্তর মালদহের রাজনীতিতে দলীয় সাংগঠনিক শক্তিবৃদ্ধি করতেই অভিজ্ঞ এবং দক্ষ ওই নেতাকে দলে যোগদান করাচ্ছে তৃণমূল। এ ব্যাপারে দলের কার্যকরী সভাপতি দুলাল সরকার (বাবলা) সংবাদমাধ্যমকে বলেন, “রহিম বক্সি’র মতো নেতা যে কোনও দলের সম্পদ। তাঁকে অবশ্য স্বাগত জানাব। তবে এনিয়ে শেষ কথা বলবেন শুভেন্দুবাবু”।

প্রসঙ্গত, মালদহে মালতীপুরের সদ্য প্রাক্তন বিধায়ক রহিম বক্সির তৃণমূলে যোগ দেওয়া নিয়ে বেশ কিছুদিন ধরেই জল্পনার ঝড় উঠেছে। চলতি মাসেরই একদম গোড়ার দিকে রহিম বক্সির বেশি কিছু ছবি সোশ্যাল মিডিয়ায় সাড়া ফেলে। সেখানে তাঁকে শীতের পোশাকে শাসকদলের দাপুটে নেতা তথা মালদহের দলীয় পর্যবেক্ষক শুভেন্দু অধিকারীর সঙ্গে সপার্ষদ হাসিমুখে দেখা যায়। এই ছবিই প্রমাণ দেয় তাঁর শাসকদল ঘনিষ্ঠতার বলে দাবি করতে থাকেন শাসকদলের একাংশ। তারপর থেকেই এই জল্পনা শুরু হয় যে – রহিম বক্সি দলবদল করছেন।

ফেসবুকের কিছু টেকনিক্যাল প্রবলেমের জন্য সব আপডেট আপনাদের কাছে সবসময় পৌঁচ্ছাছে না। তাই আমাদের সমস্ত খবরের নিয়মিত আপডেট পেতে যোগদিন আমাদের হোয়াটস্যাপ বা টেলিগ্রাম গ্রূপে।

১. আমাদের Telegram গ্রূপ – ক্লিক করুন
২. আমাদের WhatsApp গ্রূপ – ক্লিক করুন
৩. আমাদের Facebook গ্রূপ – ক্লিক করুন
৪. আমাদের Twitter গ্রূপ – ক্লিক করুন
৫. আমাদের YouTube চ্যানেল – ক্লিক করুন

প্রিয় বন্ধু মিডিয়ায় প্রকাশিত খবরের নোটিফিকেশন আপনার মোবাইল বা কম্পিউটারের ব্রাউসারে সাথে সাথে পেতে, উপরের পপ-আপে অথবা নীচের বেল আইকনে ক্লিক করে ‘Allow‘ করুন।

আপনার মতামত জানান -

তৃণমূল সূত্রের খবর দাবী করছে, ডিসেম্বরের শেষের দিকে প্রাক্তন ওই বিধায়ক তৃণমূলের নেতৃত্বের সঙ্গে একটি বৈঠকে বসেছিলেন। তবে উত্তর মালদহের কিছু রাজনৈতিক কারণে তিনি কিছুদিন পরে তৃণমূলে যোগ দেবেন বলে জানিয়েছিলেন। ফলত রহিম বক্সির তৃণমূলে আসা নিয়ে নিশ্চিত হওয়া গেলেও যোগদানের সময় নিয়ে অস্বচ্ছতা ছিল। তারপরই সামনে আসে ১১ জানুয়ারি শুভেন্দুবাবুর পাকুয়ায় সভা করার কথা। এই প্রেক্ষিতে শুভেন্দুবাবুর সভা থেকেই রহিম বক্সিকে তৃণমূলের যোগদান করানোর সিদ্ধান্তকে একটি রাজনৈতিক চাল হিসাবেই মনে করছেন রাজনৈতিক বিশ্লেষকরা।

অন্যদিকে, ১১ ই জানুয়ারির বিরোধী দলের নেতাকে তৃণমূল যোগদান পর্বের আগের দিন অর্থাৎ ১০ জানুয়ারী পুরাতন মালদহের একটি রিসর্টে পূর্বনির্ধারিত একটি পঞ্চায়েত বৈঠকে বসবেন শুভেন্দু অধিকারী। জেলার পঞ্চায়েত স্তরে দলীয় উন্নয়নমূলক কাজের খুঁটিনাটির রিপোর্ট পেতেই পঞ্চায়েতের নির্বাচিত প্রতিনিধিদের উপস্থিতিতে এই বৈঠক করার সিদ্ধান্ত নিয়েছেন তিনি বলে জানা গেছে। সম্প্রতি দলের জেলা সম্মেলনে এসে শুভেন্দু বাবু জানিয়ে গিয়েছিলেন এবারের লোকসভা নির্বাচনের প্রেক্ষিতে পঞ্চায়েতের প্রতিনিধিদের বিশেষ ভূমিকা রয়েছে।

নির্বাচনে কোন দায়িত্ব তাঁরা পালন করবেন সে ব্যাপারে স্বচ্ছ ধারনা দিতেই এই বিশেষ বৈঠকে বসতে চলেছেন শুভেন্দু অধিকারী – এমনটাই দাবী ওয়াকিবহালমহলের। দলীয় সূত্রের খবর, এদিন জেলার মাটিতে পা রেখেই সন্ধ্যেয় ওই সভাতে যোগ দেবেন শুভেন্দু অধিকারী। তার আগে বা পরে পুরসভার কাউন্সিলরদের সঙ্গে দুটো বৈঠক করবেন তিনি। তারপর আগামীকাল পাকুয়ায় রহিম বক্সিতে দলে যোগদান করানোর পর দু’দিনের জেলা সফর শেষ করে ফিরে যাবেন তিনি।

তবে, আপাতত রহিম সাহেবের তৃণমূলে যোগদান নিয়ে জোর চর্চা শুরু হয়েছে রাজনৈতিকমহলে। একজন দক্ষ সংগঠন হিসাবে বামশিবিরে বেশ খ্যাতি রয়েছে রহিম বক্সি’র। তাই তাঁর এভাবে লোকসভা ভোটের আগে দলবদলের খবর প্রকাশ্যে আসায় স্বাভাবিকভাবেই চাপে পড়ে গিয়েছে লালশিবির। তবে, যাঁর দলবদল নিয়ে এতো জল্পনা এ বিষয়ে সেই রহিম বক্সির মন্তব্য, “আমার তৃণমূল কংগ্রেসে যাওয়া নিয়ে গুঞ্জন আমিও শুনেছি। তবে মানুষকে নিয়ে মানুষের কাজ করি। ফলে লুকিয়ে চুরিয়ে তো কিছু করতে পারব না। তাই অন্য কোনও দলে গেলে মানুষ দেখতেই পাবেন। এর বাইরে আর কী বলব”!

আপনার মতামত জানান -
Top
error: Content is protected !!