এখন পড়ছেন
হোম > রাজ্য > কলকাতা > অমিতের আলোচনা, দিলীপের আমন্ত্রণ, মুকুলের ফুল-মিষ্টি! সৌরভের বিজেপি-যোগের জল্পনা উর্ধমুখীই,

অমিতের আলোচনা, দিলীপের আমন্ত্রণ, মুকুলের ফুল-মিষ্টি! সৌরভের বিজেপি-যোগের জল্পনা উর্ধমুখীই,

বাংলার মহারাজ সৌরভ গাঙ্গুলীকে ঘিরে বাঙালি আবার গর্বের শিখরে পৌঁছাল‌। এবার বিসিসিআইয়ের প্রেসিডেন্ট হতে চলেছেন ভারতের প্রাক্তন অধিনায়ক সৌরভ গঙ্গোপাধ্যায়। 23 শে অক্টোবর এর বার্ষিক সভাতেই প্রেসিডেন্ট হিসেবে দায়িত্ব নেবেন ক্রিকেটীয় মহারাজ সৌরভ গাঙ্গুলী।

সৌরভ গাঙ্গুলী যদি এবার বিসিসিআইয়ের প্রেসিডেন্ট হন, তাহলে ভারতীয় ক্রিকেটের ইতিহাসে তিনি ক্রিকেটের দ্বিতীয় অধিনায়ক যিনি বোর্ডের প্রেসিডেন্টের দায়িত্ব হাতে পাবেন। এর আগে ভারতীয় অধিনায়ক ভিজির মহারাজ কুমার বিসিসিআইয়ের পূর্ণ সভাপতির দায়িত্বে ছিলেন। ক্রিকেটের অধিনায়ক সৌরভ গাঙ্গুলী বিসিসিআইয়ের প্রেসিডেন্ট পদে দায়িত্ব নেওয়ার খবরে তাঁর বাড়িতে অসংখ্য শুভেচ্ছা বার্তা আসছে। যার মধ্যে বিজেপির হেভিওয়েট নেতারাও আছেন।

এদিন বিজেপির সর্বভারতীয় সভাপতি অমিত শাহ পরিষ্কার করে জানিয়েছেন, বিসিসিআইয়ের শর্ত ছাড়াই সৌরভ কে স্বাগত জানাবেন তাঁরা। অন্যদিকে সৌরভ গাঙ্গুলী মুম্বাইতে সংবাদ সম্মেলনে জানিয়েছেন, কোন রাজনৈতিক নেতা তাঁর সাথে যোগাযোগ করেননি। যদিও সূত্রের খবর, বঙ্গ বিজেপি নেতা মুকুল রায় ইতিমধ্যে আলাদাভাবে সৌরভ গাঙ্গুলীকে শুভেচ্ছা বার্তা পাঠিয়েছেন তাঁর বাড়িতে। ফলে সৌরভ গাঙ্গুলীকে নিয়ে যে জল্পনা শুরু হয়েছে তা তিনি নিজে না চাইলেও কোনমতেই থামছে না।

সৌরভ গঙ্গোপাধ্যায় এর বেহালার বাড়িতে এখন ক্রমাগত আসছে একের পর এক শুভেচ্ছাবার্তা। পরিবারের ঘনিষ্ঠরা জানিয়েছেন 1996 সালের লর্ডসের মাঠে ইতিহাস গড়ার পর একইভাবে গঙ্গোপাধ্যায়ের পরিবারে শুভেচ্ছার বন্যা বয়েছিল। শুভেচ্ছা প্রেরকদের মধ্যে কে না নেই! তবে তার মধ্যেই আলাদাভাবে জুড়লো মুকুল রায়ের নাম।

বাংলার বিজেপি নেতা মুকুল রায় জানিয়েছেন, ফুল মিষ্টি সহযোগে তিনি সৌরভ গাঙ্গুলীর বাড়িতে শুভেচ্ছা বার্তা পাঠিয়েছেন। একদিকে সর্বভারতীয় সভাপতি অমিত শাহের বক্তব্যে সৌরভ গাঙ্গুলির বিজেপিতে যোগদান করার জল্পনা যেরকম বেড়ে উঠছে, তাতে মুকুল রায়ের এই শুভেচ্ছা প্রেরণ অনেকটাই জোর দিল বলে মনে করছে বাংলার রাজনৈতিক মহল।

ফেসবুকের কিছু টেকনিক্যাল প্রবলেমের জন্য সব আপডেট আপনাদের কাছে সবসময় পৌঁচ্ছাছে না। তাই আমাদের সমস্ত খবরের নিয়মিত আপডেট পেতে যোগদিন আমাদের হোয়াটস্যাপ বা টেলিগ্রাম গ্রূপে।

১. আমাদের Telegram গ্রূপ – ক্লিক করুন
২. আমাদের WhatsApp গ্রূপ – ক্লিক করুন
৩. আমাদের Facebook গ্রূপ – ক্লিক করুন
৪. আমাদের Twitter গ্রূপ – ক্লিক করুন
৫. আমাদের YouTube চ্যানেল – ক্লিক করুন

প্রিয় বন্ধু মিডিয়ায় প্রকাশিত খবরের নোটিফিকেশন আপনার মোবাইল বা কম্পিউটারের ব্রাউসারে সাথে সাথে পেতে, উপরের পপ-আপে অথবা নীচের বেল আইকনে ক্লিক করে ‘Allow‘ করুন।


আপনার মতামত জানান -

অন্যদিকে রাজ্য বিজেপি সভাপতি দিলীপ ঘোষ প্রাক্তন ক্রিকেট অধিনায়ক সৌরভ গাঙ্গুলীকে শুভেচ্ছাবার্তার সাথে বিজেপিতে যোগদানের বার্তাও দিয়েছেন। তিনি জানিয়েছেন, সৌরভ গাঙ্গুলীর জন্য বিজেপি দরজা সর্বকালের জন্য খোলা। এদিন দিলীপ ঘোষ বলেন, রাজনীতিতে সমাজের বিভিন্ন ক্ষেত্রের প্রতিষ্ঠিত মানুষরা যদি এগিয়ে আসেন, তাহলে রাজনীতির সংকীর্ণতা মিটে যাবে।

সূত্রের খবর, বিসিসিআইয়ের প্রেসিডেন্টের পদ নিয়ে দীর্ঘ আলোচনা চলে শনিবার রাতে দিল্লিতে। প্রেসিডেন্ট পদের দৌড়ে অমিত শাহের ছেলে জয় শাহও ছিলেন। তবে 2021 এর বিধানসভা নির্বাচনকে মাথায় রেখেই বাংলার কথা ভেবে বোর্ডের কর্তাব্যক্তিদের কাছে নির্দেশ আসে সৌরভকেই বোর্ড প্রেসিডেন্ট হিসেবে বেছে নেওয়ার জন্য। এবং তারপরেই জল্পনা শুরু হয় সৌরভ গঙ্গোপাধ্যায়ের বিজেপিতে যোগ দেওয়ার। তবে প্রাক্তন অধিনায়ক তা সম্পূর্ণ খারিজ করে দিয়েছেন।

এদিন অমিত শাহ এক সাক্ষাৎকারে সৌরভ গাঙ্গুলীকে বিজেপিতে যোগদান করার বার্তা দিয়ে জানিয়েছেন, বিসিসিআইয়ের প্রধানের পদের জন্য কোন শর্ত সাপেক্ষে নয়, সৌরভ গঙ্গোপাধ্যায়কে নিঃশর্তে বিজেপি দলে নিতে প্রস্তুত। অন্যদিকে, কলকাতায় বিজেপি নেতা মুকুল রায়ের শুভেচ্ছাবার্তা এবং রাজ্য বিজেপি সভাপতি দিলীপ ঘোষের আহ্বান বার্তা বাংলার রাজনীতিতে জল্পনার উদ্রেক করছে ক্রমশ।

সম্পূর্ণ ঘটনাকে নজরে রেখে রাজনৈতিক বিশেষজ্ঞদের দাবি, প্রাক্তন অধিনায়ক যদি রাজনীতিতে যোগদান করেন, তাতে বিজেপি দলেরই ভালো হবে। কারণ সম্পূর্ণ অন্য স্তর থেকে রাজনীতিতে যোগদান করার ফলে রাজনীতির মধ্যে যে সংকীর্ণতা আছে বলে মনে করা হয়, তা দূরীভূত হবে। তবে প্রাক্তন অধিনায়ক সৌরভ গাঙ্গুলির তরফ থেকে তাঁর রাজ্য রাজনীতিতে যোগদান করার যেকোনো রকম জল্পনাকে সম্পূর্ণ খারিজ করে দেওয়া হয়েছে। স্বয়ং মহারাজ রাজনীতির বিষয়টি সম্পূর্ণ অস্বীকার করেছেন। তবে রাজনৈতিক মহলের একাংশের দাবি, এই মুহূর্তে হয়তো প্রাক্তন অধিনায়ক সিদ্ধান্ত নিচ্ছেন না। তবে ভবিষ্যতে কি হবে, তা এখনই বলা যাচ্ছে না। সমগ্র পরিস্থিতির দিকে নজর রাখছে বাংলার রাজনৈতিক মহল।

আপনার মতামত জানান -
Top
error: Content is protected !!