এখন পড়ছেন
হোম > রাজ্য > কলকাতা > আর নয় ‘সুচাগ্র মেদিনীও’, মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের ঘুম ওড়াতে দলীয় কর্মীদের বিশেষ পরিকল্পনার নির্দেশিকা অমিত শাহের

আর নয় ‘সুচাগ্র মেদিনীও’, মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের ঘুম ওড়াতে দলীয় কর্মীদের বিশেষ পরিকল্পনার নির্দেশিকা অমিত শাহের

রাজ্যের কোনায় কোনায় মমতা-বিরোধী ঝড় আরো জোরদার করার লক্ষ্যে ব্লক এবং জেলাস্তরে বিক্ষোভ সমাবেশের সংখ্যা দ্বিগুণ বৃদ্ধি করতে হবে, এমনটাই এদিন নির্দেশ দিলেন জাতীয় বিজেপি সভাপতি অমিত শাহ। প্রতিটি সমাবেশে রাজ্য নেতৃত্বদের সরাসরি তৃণমূল সুপ্রিমো মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়কে টার্গেট করে চাঁচাছোলা ভাষায় আক্রমণের নিদান দিলেন শাহ।

বিশেষ করে বিজেপির নেতা-কর্মীদের উপর তৃণমূল কংগ্রেসের হামলা-সন্ত্রাসের অভিযোগ তুলে প্রতিবাদে সরব হবেন গেরুয়াশিবির কর্তারা,এমনটাই জানা গিয়েছে দলীয় সূত্রের খবরে।

এ ব্যাপারে বিজেপির অন্যতম কেন্দ্রীয় সম্পাদক তথা পশ্চিমবঙ্গের দায়িত্বপ্রাপ্ত দলের সহনেতা সুরেশ পূজারি বিশ্লেষণ করে বলেন, যদি কোনো ব্লকে ইতিপূর্বে ১০ টি সভা করার পরিকল্পনা থাকে,তাহলে সেখানে ১৭ টি সমাবেশ করা হবে এবার। আগামী লোকসভা ভোট পর্যন্ত একনাগাড়ে বিক্ষোভ সমাবেশ করে বাংলার মুখ্যমন্ত্রীর মুখোশ খুলে দেওয়া হবে রাজ্যবাসীর কাছে,এমনটাই সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে।

দলীয় সূত্রে আরো জানা গিয়েছে, দলীয় শীর্ষ নেতাদের সঙ্গে বৈঠক করতে আজ কোলকাতায় আসবেন সর্বভারতীয় সভাপতি অমিত শাহ। এদিনের বৈঠকেই ব্লক এবং জেলাস্তরে বর্ধিত বিক্ষোভ সমাবেশ সম্পর্কিত যাবতীয় সিদ্ধান্ত নেবেন শাহ। দলীয় কর্মীদের লাগাতার হামলা- সন্ত্রাসের অভিযোগ তুলে তৃণমূল কংগ্রেস বিরোধী আন্দোলনকে আরো জোরদার করা এবং কেন্দ্রীয় সরকারের বিভিন্ন জনস্বার্থমুখী প্রকল্পগুলো নিয়ে প্রচার করতেই এই সমাবেশ করবে বিজেপি, এমনটাই জানা যাচ্ছে।

ফেসবুকের কিছু টেকনিকাল প্রবলেমের জন্য সব খবর আপনাদের কাছে পৌঁছেছে না। তাই আরো খবর পেতে চোখ রাখুন প্রিয়বন্ধু মিডিয়া-তে

এবার থেকে প্রিয় বন্ধুর খবর পড়া আরো সহজ, আমাদের সব খবর সারাদিন হাতের মুঠোয় পেতে যোগ দিন আমাদের হোয়াটস্যাপ গ্রূপে – ক্লিক করুন এই লিঙ্কে

এই প্রেক্ষিতে একটি স্বাভাবিক প্রশ্ন ওঠে। রথযাত্রার মতোই কি ব্লক ও জেলাস্তরের অধিকাংশ সমাবেশেই অমিত শাহকে নিয়ে আসার পরিকল্পনা রয়েছে রাজ্য বিজেপির? সেটা সম্ভব নয় বলেই জানিয়েছেন নামপ্রকাশে অনিচ্ছুক বিজেপির এক কেন্দ্রীয় নেতা। কারণ দলের সর্ব ভারতীয় সভাপতিকে দিয়ে ব্লকস্তরের প্রচার করানো সম্ভব নয়।

তবে রাজ্যস্তরের প্রচার কর্মসূচিতে বিজেপির কেন্দ্রীয় নেতারা উপস্থিত থাকবেন বলেই জানিয়েছেন নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক বিজেপির এক কেন্দ্রীয় নেতা। প্রাথমিকভাবে এসব বিক্ষোভ সমাবেশে উপস্থিত থাকার জন্যে কেন্দ্রীয় মন্ত্রী স্মৃতি ইরানি, উত্তরপ্রদেশের মুখ্যমন্ত্রী যোগী আদিত্যনাথ, অসমের মুখ্যমন্ত্রী সর্বানন্দ সোনওয়াল, ঝাড়খণ্ডের মুখ্যমন্ত্রী রঘুবর দাস এবং ত্রিপুরার মুখ্যমন্ত্রী বিপ্লব দেবের নাম তালিকাবদ্ধ করা হয়েছে।

রথযাত্রা কর্মসূচির মাধ্যমে রাজ্যের সমস্ত বিধানসভা এবং লোকসভা কেন্দ্র প্রচার করার পরিকল্পনা আগেই ছিল বিজেপির। এবার সেই পরিকল্পনার আরো একধাপ এগিয়ে বাংলায় প্রবল গেরুয়া ঝড় তোলার বার্তা দিল গেরুয়াশিবির, এমনটাই জানা যাচ্ছে দলীয় অন্দরের খবরে।

উল্লেখ্য, বাংলার মাটিতে বিজেপির বহু কাঙ্খিত রথযাত্রা আপাতত অনিশ্চয়তার মুখে। তাই সম্ভবত এর বিকল্প হিসাবে সমাবেশের সংখ্যা বৃদ্ধি করার পরিকল্পনা করেছে বিজেপি। এমনটাই মনে করছেন রাজনৈতিক বিশেষজ্ঞরা। তবে রাজ্যে “গনতন্ত্র বাঁচাও” কর্মসূচির মাধ্যমে সাংগঠনিক শক্তি প্রদর্শনের যে কৌশল করেছিল বিজেপি, তা শুধুমাত্র বিক্ষোভ সমাবেশের মাধ্যমে কতোটা সম্ভব হবে তা নিয়ে যথেষ্ট সংশয় রয়েছে দলীয় অন্দরেই।

আপনার মতামত জানান -
Top
error: Content is protected !!