এখন পড়ছেন
হোম > রাজ্য > কলকাতা > বাংলার মাটি আর নয় দুর্জয় ঘাঁটি প্রমানে কলকাতায় পা রাখলেন অমিত শাহ

বাংলার মাটি আর নয় দুর্জয় ঘাঁটি প্রমানে কলকাতায় পা রাখলেন অমিত শাহ

বাংলার মাটি চিরকালই বেশ রুক্ষ-সুক্ষ থেকেছে গেরুয়া শিবিরের কাছে। বিজেপির আগমন যে জনসঙ্ঘ থেকে তার প্রবর্তক শ্যামাপ্রসাদ মুখোপাধ্যায়ের রাজনৈতিক ক্ষেত্র এই বঙ্গদেশ হলেও তা বরাবরই বিমুখ থেকেছে গেরুয়া শিবিরের কাছে। কখনো মাঝে সাঝে দু-একটি লোকসভা আসন মিললেও, তা হয় অন্য স্থানীয় দলের সহায়তায় বা নেহাতই বরাত জোরে। কিন্তু এখন পরিস্থিতি পাল্টেছে, গেরুয়া শিবিরের বিশ্বাস বাংলার মাটি আর তাদের কাছে মোটেই দুর্জয় ঘাঁটি নয়। বিগত পঞ্চায়েতেই ইঙ্গিত মিলেছে এবং আগামী লোকসভা নির্বাচনেই নাকি প্রমান হয়ে যাবে বাংলায় ‘পরিবর্তনের পরিবর্তন’ শুধুমাত্র সময়ের অপেক্ষা। কিন্তু মুখে এই কথা বললেও কাজটা যে মোটেই সহজ নয় তা ভালো করেই জানেন গেরুয়া শিবিরের নেতারা। আর তাই রীতিমত অঙ্ক করে, পরিকল্পনা সাজিয়ে সেই কঠিন কাজকেই বাস্তবে করে দেখাতে দুদিনের বঙ্গ-সফরে আজ কলকাতায় পা রাখলেন বিজেপির সর্বভারতীয় সভাপতি অমিত শাহ।

এবার থেকে প্রিয় বন্ধুর খবর পড়া আরো সহজ, আমাদের সব খবর সারাদিন হাতের মুঠোয় পেতে যোগ দিন আমাদের হোয়াটস্যাপ গ্রূপে – ক্লিক করুন এই লিঙ্কে

পূর্ব নির্ধারিত সময়েই তিনি এসে উপস্থিত হন কলকাতা বিমানবন্দরে। তাঁকে স্বাগত জানাতে একদিকে যেমন সমর্থকদের জনজোয়ার নেমেছিল অন্যদিকে তখন রাজ্য নেতৃত্ত্বের সব শীর্ষ নেতারাই হাজির ছিলেন। কে নেই সেই তালিকায়? লকেট চট্টোপাধ্যায় থেকে মুকুল রায়, রাহুল সিনহা থেকে চন্দ্রকুমার বসু – নবীনে-প্রবীনে, হেভিওয়েট থেকে তরুণ তুর্কিতে গোটা কলকাতা বিমানবন্দর কার্যত তখন গেরুয়া শিবিরের দখলে। নিজের দলের সর্বভারতীয় সভাপতিকে কপালে লাল তিলক পরিয়ে সুগত জানান বিজেপির মহিলা মোর্চার রাজ্য-সভানেত্রী লকেট চট্টোপাধ্যায়। মুকুল রায়কে সামনে দেখেই উচ্ছ্বসিত অমিত শাহ উষ্ণভাবে কুশল বিনিময় করেন। এরপরেই গেরুয়া শিবিরে কর্মী-সমর্থকদের স্বতঃস্ফূর্ত আবেগা সঙ্গী করে পূর্ব নির্ধারিত পরিকল্পনা অনুযায়ী তাঁর কনভয় রওনা হয় পোর্ট গেস্ট হাউসের দিকে। সেখানে রাজ্যের শীর্ষ নেতৃত্ত্বের সঙ্গে একান্ত বৈঠক দিয়েই বঙ্গ-বিজয়ের পরিকল্পনা শুরু করবেন নরেন্দ্র মোদীর সেনাপতি।

আপনার মতামত জানান -
Top
error: Content is protected !!