এখন পড়ছেন
হোম > জাতীয় > দুর্নীতি রুখতে এবার নজিরবিহীন পরিকল্পনা অমিত শাহের – উত্তাল হতে চলেছে জাতীয় রাজনীতি

দুর্নীতি রুখতে এবার নজিরবিহীন পরিকল্পনা অমিত শাহের – উত্তাল হতে চলেছে জাতীয় রাজনীতি

ক্ষমতায় আসার পরই “এক দেশ এক ভাষার” প্রতি জোর দিয়েছিল কেন্দ্রের বর্তমান বিজেপি সরকার। আর এবার এক দেশ এক কার্ডের প্রস্তাব দিলেন স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী অমিত শাহ। আর কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্রমন্ত্রীর প্রস্তাবের পরই প্রশ্ন উঠতে শুরু করেছে, যেখানে আধার কার্ডের তথ্য ফাঁস হয়ে যাওয়ার একাধিক অভিযোগ আসতে শুরু করে, সেখানে ওই কার্ড ঠিক কতটা সুরক্ষিত থাকবে!

বস্তুত, পৃথিবীর প্রায় বহু উন্নয়নশীল দেশগুলোতেই নাগরিকদের পরিচয়ের জন্য একটি কার্ড ব্যবহার করা হয়। যে কার্ডের নম্বরের ভিত্তিতে সেই নির্দিষ্ট ব্যক্তির সমস্ত তথ্য সংরক্ষিত করে রাখা হয়। এমনকি কোনো ব্যক্তি যদি কোনো অপরাধমূলক কাজের সঙ্গে জড়িত থাকে, তাহলে তাকে ধরতেও অনেকটাই সাহায্য করে সেই কার্ড। আর এবার পৃথিবীর অন্যান্য দেশগুলি এই ব্যাপারে যে পদ্ধতি অবলম্বন করেছে, সেই একই পদ্ধতি ভারতে করার ব্যাপারে সওয়াল করতে দেখা গেল কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী অমিত শাহকে।

প্রিয় বন্ধু মিডিয়ার খবর আরও সহজে হাতের মুঠোয় পেতে যোগ দিন আমাদের যে কোনও এক্সক্লুসিভ সোশ্যাল মিডিয়া গ্রূপে। ক্লিক করুন এখানে – টেলিগ্রামফেসবুক গ্রূপ, ট্যুইটার, ইউটিউবফেসবুক পেজ

যোগ দিন আমাদের হোয়াটস্যাপ গ্রূপে – ক্লিক করুন এখানে

প্রিয় বন্ধু মিডিয়ায় প্রকাশিত খবরের নোটিফিকেশন আপনার মোবাইল বা কম্পিউটারের ব্রাউসারে সাথে সাথে পেতে, উপরের পপ-আপে অথবা নীচের বেল আইকনে ক্লিক করে ‘Allow‘ করুন।


আপনার মতামত জানান -

সূত্রের খবর, এদিন রেজিস্টার জেনারেল অফ ইন্ডিয়ার নতুন ভবনের শিলান্যাস করতে এসে কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী বলেন, “জনগণনার সময় কারও আধার, ভোটার কার্ড, ড্রাইভিং লাইসেন্স, প্যান বা ব্যাংক সম্পর্কিত যাবতীয় তথ্য সংগ্রহ করে তা কেবল একটি কার্ডে সংরক্ষিত করা সম্ভব। ওই ব্যবস্থা কার্যকর হলে বহু কার্ড নিয়ে ঘোরার প্রয়োজন পড়বে না।”

বিশেষজ্ঞদের অনেকে বলছেন, অতীতে ইউপিএ সরকারের আমলে এই ব্যাপারে একবার পদক্ষেপ গ্রহণ করা হয়েছিল। আর 2021 সালের জনগণনার আগে কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্রমন্ত্রীর এই এক দেশ এক কার্ডের মন্তব্য অত্যন্ত তাৎপর্যপূর্ণ বলে মনে করছে একাংশ। অনেকে বলছেন, অমিত শাহ এমনি এমনি এই এক দেশ এক কার্ডের পক্ষে সওয়াল করেননি। দেশে যেখানে অপরাধপ্রবণতা বাড়ছে, সেখানে সেই অপরাধকে কমাতে এই কথা শোনা গেছে তার মুখ থেকে। কিন্তু এই সিস্টেম প্রয়োগ হলে সেই কার্ড কি সুরক্ষিত থাকবে?

এদিন এই প্রসঙ্গে সাইবার বিশেষজ্ঞ কুমার বিক্রম সিংহ বলেন, “গোটা ব্যাপারটাই নির্ভর করছে কার্ডের নিরাপত্তা দিকটা কতটা সুরক্ষিত তার ওপরে। যদি কার্ডের শক্তিশালী সুরক্ষা বিধি থাকে, তাহলে তথ্য চুরির ভয় কম। কিন্তু আজকের দিনে হ্যাকাররা অত্যন্ত চালাক। তাই কার্ডের তথ্য কিভাবে সুরক্ষার মোড়কে প্যাকেট বন্দি করে রাখা হচ্ছে, তা সব থেকে গুরুত্বপূর্ণ।” সব মিলিয়ে দেশে দুর্নীতি এবং অপরাধপ্রবণতা কমাতে এক দেশ এক কার্ডের পক্ষে কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্রমন্ত্রীর সওয়াল করলেও তা আদৌ প্রয়োগ করা হয় কিনা, এখন সেদিকেই তাকিয়ে সকলে।

আপনার মতামত জানান -
Top