এখন পড়ছেন
হোম > জাতীয় > অমিত শাহ মন্ত্রীসভায় আসতেই বিজেপির অন্দরে লাখ টাকার প্রশ্ন – জাতীয় সভাপতি কে?

অমিত শাহ মন্ত্রীসভায় আসতেই বিজেপির অন্দরে লাখ টাকার প্রশ্ন – জাতীয় সভাপতি কে?

নরেন্দ্র মোদী প্রথমবারের জন্য প্রধানমন্ত্রী হতেই তৎকালীন বিজেপি সর্বভারতীয় সভাপতি রাজনাথ সিংকে কেন্দ্রীয় মন্ত্রীসভায় গুরুত্বপূর্ণ দায়িত্ব দেওয়া হয়। তাঁর স্থলাভিষিক্ত হন নরেন্দ্র মোদীর পছন্দের অমিত শাহ। অমিত শাহকে সর্বভারতীয় সভাপতি করা নিয়ে সেই সময় দলের অন্দরেই কিছু বাধা এলেও, শেষপর্যন্ত নরেন্দ্র মোদির ইচ্ছাতেই সিলমোহর দেয় গেরুয়া শিবির। আর তারপরে একের পর এক নির্বাচনে কাজ করেছে মোদী-শাহ ম্যাজিক।

নরেন্দ্র মোদিকে মুখ করে আর অমিত শাহের সাংগঠনিক দক্ষতায় ভর করে বিজেপি অনায়াসে জিতে নিয়েছে একের পর এক কঠিন নির্বাচনী লড়াই। এরপর, মোদির প্রথমবারের প্রধানমন্ত্রিত্বের শেষের দিকে অমিত শাহকে রাজ্যসভা থেকে জিতিয়ে আনে বিজেপি, তখনই জল্পনা ছড়ায় যে অমিত শাহকে এবার গুরুত্বপূর্ণ মন্ত্রক দেওয়া হবে। কিন্তু, নরেন্দ্র মোদী স্পষ্ট জানিয়ে দেন, সংসদীয় রাজনীতিতে বিশেষ করে রাজ্যসভায় বিরোধীদের সঙ্গে সমানে পাল্টা দিতেই অমিত শাহকে রাজ্যসভায় আনা হয়েছে মন্ত্রীত্ব দিতে নয়।

কিন্তু, ২০১৯ এর লোকসভা নির্বাচনের প্রার্থীতালিকা প্রকাশের সময় গুজরাটের গান্ধীনগর থেকে লালকৃষ্ণ আডবাণীর ছেড়ে যাওয়া আসনে অমিত শাহকে বিজেপি প্রার্থী করতেই স্পষ্ট হয়ে যায় যে বিজেপি জিতলে এবার কেন্দ্রীয় মন্ত্রীসভায় গুরুত্বপূর্ণ মন্ত্রকেই আসতে চলেছেন অমিত শাহ। আর বাস্তবে হলোও তাই – প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী ও রাজনাথ সিংয়ের পরেই গতকাল পূর্ণমন্ত্রী হিসাবে শপথ নিলেন অমিত শাহ। ফলে, মনে করা হচ্ছে মন্ত্রীসভার গুরুত্বপূর্ণ তিন মন্ত্রক – অর্থ, স্বরাষ্ট্র বা প্রতিরক্ষা – যে কোন একটির দায়িত্ব সামলাতে চলেছেন অমিত শাহ।

প্রিয় বন্ধু মিডিয়ার খবর আরও সহজে হাতের মুঠোয় পেতে যোগ দিন আমাদের যে কোনও এক্সক্লুসিভ সোশ্যাল মিডিয়া গ্রূপে। ক্লিক করুন এখানে – টেলিগ্রাম, হোয়াটস্যাপ, ফেসবুক গ্রূপ, ট্যুইটার, ইউটিউবফেসবুক পেজ

প্রিয় বন্ধু মিডিয়ায় প্রকাশিত খবরের নোটিফিকেশন আপনার মোবাইল বা কম্পিউটারের ব্রাউসারে সাথে সাথে পেতে, উপরের পপ-আপে অথবা নীচের বেল আইকনে ক্লিক করে ‘Allow‘ করুন।


আপনার মতামত জানান -

কিন্তু, অমিত শাহ কেন্দ্রীয় মন্ত্রীসভায় যেতেই যে প্রশ্নটা সবথেকে বড় হয়ে দেখা দিয়েছে – তা হল, গেরুয়া শিবিরের পরবর্তী সর্বভারতীয় সভাপতি কে হবেন? কেননা বিজেপি এক ব্যক্তি, এক পদ নীতিতে বিশ্বাস করে। আর রাজধানীর রাজনীতিতে কান পাতলে শোনা যাচ্ছে একাধিক নাম। তার মধ্যে সবথেকে উল্লেখযোগ্য জয়প্রকাশ নাড্ডা, যিনি গতবারে স্বাস্থ্যমন্ত্রীর দায়িত্ব সামলালেও এবারের নেই। উঠে আসছে ভূপেন্দ্র যাদবের নামও। পাশাপাশি, শোনা যাচ্ছে মধ্যপ্রদেশের এক হেভিওয়েট নেতার নামও। সবমিলিয়ে এই বছরেই মহারাষ্ট্র, হরিয়ানা সহ একাধিক গুরুত্বপূর্ণ রাজ্যে বিধানসভা নির্বাচনকে সামনে রেখে বিজেপি নিয়ে আসতে চলেছে এক নতুন সর্বভারতীয় সভাপতিকে।

আপনার মতামত জানান -
Top
error: Content is protected !!