এখন পড়ছেন
হোম > জাতীয় > অমিত শাহের সভার জন্য মিলছে না পুলিশি অনুমতি, বড়সড় আন্দোলনের পথে গেরুয়া শিবির

অমিত শাহের সভার জন্য মিলছে না পুলিশি অনুমতি, বড়সড় আন্দোলনের পথে গেরুয়া শিবির

অগষ্ট মাসে কলকাতায় দলের জাতীয় সভাপতির পৌরহিত্যে সভা করার পরিকল্পনা ছিলো গেরুয়া শিবিরের। সেই মতো কলকাতা পুলিশের কাছে আগামী ১১ই অগষ্ট সভার প্রস্তাবিত দিনে রানি রাসমনি রোডে  সভার অনুমতি ও চাওয়া হয়। কিন্তু সমস্ত পরিকল্পনায় কার্যত জল ঢেলে দিলো কলকাতা পুলিশ। সভার অনুমতি পেলোনা বিজেপি ।

যদিও গেরুয়া শিবির থেকে কলকাতা পুলিশের এই সিদ্ধান্তের বিচার চেয়ে হাইকোর্টে যাওয়ার বিষয়ে গুঞ্জন শোনা যাচ্ছে।  এদিকে রাজ্য বিজেপির তরফ থেকে এই প্রসঙ্গে জানানো হয়েছে , পুলিশ তাদের সভায় অনুমতি দিতে অসম্মত হওয়ার কারণ হিসেবে জানিয়েছে যে কংগ্রেস ঐ একই দিনে রানি রাসমনি রোডে সভার করার জন্যে আবেদন জানিয়েছিলো। তাই আগে আবেদনকারী কংগ্রেসের আবেদনকে অগ্রাহ্য করে বিজেপিকে অনুমতি দেওয়া সম্ভব নয়।  পুলিশের কাছে এমন ব্যাখ্যা শুনেই গেরুয়া শিবির আদালতে যাওয়ার বিষয়ে ভাবনা চিন্তা শুরু করে।

আরো খবর পেতে চোখ রাখুন প্রিয়বন্ধু মিডিয়া-তে

——————————————————————————————-

এবার থেকে প্রিয় বন্ধুর খবর পড়া আরো সহজ, আমাদের সব খবর সারাদিন হাতের মুঠোয় পেতে যোগ দিন আমাদের হোয়াটস্যাপ গ্রূপে – ক্লিক করুন এই লিঙ্কে।

শুধু তাই নয় অমিত শাহ’র সভার বিকল্প স্থান নিয়েও পরিকল্পনার সূত্রপাত হয়। এক্ষেত্রে উত্তর কলকাতার শ্যামবাজারের পাঁচ মাথার মোড় সংলগ্ন অঞ্চলকে সভা স্থল হিসেবে ভাবা হচ্ছে। যদিও এখনও এই বিষয়ে চূড়ান্ত কোনো সিদ্ধান্ত হয়নি। রাজনৈতিক মহল এই ঘটনার আলাদা ব্যখ্যা করছেন। তাদের মতে বাম জমানায় পুলিশকে দিয়ে একই ধরনের কাজ করা হত। অভিযোগ উঠছে বাম শিবির বিভিন্ন বাম সংগঠনের নামে বিভিন্ন জায়গা আগে থাকে বুক করে রাখতো। সেই সময়ে বিরোধী দল গুলি যদি যদি নির্দিষ্ট জায়গার জন্য আাবেদন করতেন তাহলে, দেখানো হত সেই জায়গা আগে থেকেই অন্য কর্মসূচীর জন্য নির্ধারিত হয়ে রয়েছে।

এমনিতেই অমিত শাহের রাজ্য সফরের প্রস্তাবিত দিনের পরিবর্তন হয়েছে। প্রথমে যা ছিলো ৩ রা অগষ্ট তা পরিবর্তির হয়ে ১১ ই অগষ্ট হয়েছে। গেরুয়া শিবির সূত্রে জানা গিয়েছে অমিত শাহ ছাড়াও ঐ জনসভার অন্য আকর্ষণ হবেন যুব মোর্চার সভানেত্রী পুনম মহাজন। এই জনসভার মূল উদ্দেশ্য বেকার সমস্যার সমাধান ও সন্ত্রাস মুক্ত বাংলা গঠন ইত্যাদি বিষয়ে রাজ্যের মানুষকে সচেতন করা এবং তাদের প্রাপ্য সুযোগ সুবিধা বিষয়েও তাদের ওয়াকিবহাল করা। রাজ্য বিজেপি যুব মোর্চার দাবি এই  সমাবেশে প্রায় দু’লক্ষ যুবক যোগ দেবেন।

আপনার মতামত জানান -
Top
error: Content is protected !!