এখন পড়ছেন
হোম > জাতীয় > অমিত শাহ-র হাত ধরতে চিঠি দিলেন তৃণমূলের প্রাক্তন বিধায়ক মন্ত্রী

অমিত শাহ-র হাত ধরতে চিঠি দিলেন তৃণমূলের প্রাক্তন বিধায়ক মন্ত্রী

২০১৯ এর লোকসভা ভোটের দামামা বাজার আর বেশি দিন বাকি নেই। ইতিমধ্যে কেন্দ্র থেকে মোদী সরকারকে হটাতে বিরোধীরা যেমন জোট বেঁধে আক্রমণ করতে মরিয়া,ঠিক একইভাবে ক্ষমতার রাশ নিজেদের হাতে ধরে রাখতে উদ্যোগ নিতে দেখা যাচ্ছে পদ্মবাহিনীদের মধ্যে। কারণ বিজেপি জানে, বিরোধী জোটের হাওয়ার মুখে কেন্দ্রে পদ্ম ফুটিয়ে রাখতে তাঁদের এবার বেশ বেগ পেতে হবে। ২০১৪ এর সেই মোদী ম্যাজিক এর প্রভাব ২০১৮ তে এসে উবে গেছে। তারই প্রমান দিয়েছে সম্প্রতি দেশের বিভিন্ন প্রান্তে হওয়া নির্বাচন উপনির্বাচনগুলো। এমতাবস্থায় শরিকদলের প্রতি আস্থা রেখেই বিজেপি ভোট-বৈতরণী পার করতে চায়। দিকে দিকে আসন বন্টন নিয়েও বিজেপির সঙ্গে শরিকদলগুলোর মন কষাকষি চলছে,যার ফলে বহু শরিকই বিজেপির সঙ্গ ছেড়েছে ইতিমধ্যেই। এই উভয় সংকট পরিস্থিতিতে একটি আশার বার্তা দিলেন ইসলামপুরের ন’বারের বিধায়ক তথা প্রাক্তণ মন্ত্রী আব্দুল করিম চৌধুরী।

আরো খবর পেতে চোখ রাখুন প্রিয়বন্ধু মিডিয়া-তে

——————————————————————————————-

 এবার থেকে প্রিয় বন্ধুর খবর পড়া আরো সহজ, আমাদের সব খবর সারাদিন হাতের মুঠোয় পেতে যোগ দিন আমাদের হোয়াটস্যাপ গ্রূপে – ক্লিক করুন এই লিঙ্কে

রাজনৈতিক সূত্রের খবর থেকে জানা যাচ্ছে,আসন্ন লোকসভা নির্বাচনে এনডিএ দলের সঙ্গে পথ হাঁটতে চান করিম সাহেব। এজন্যে তিনি এদিন জাতীয় পদ্ম নেতৃত্ব অমিত শাহকে চিঠিও দিয়েছেন। এ প্রসঙ্গে তিনি স্পষ্ট করে আরো জানালেন যে, বিজেপি নয়,এনডিএতে শরিক হতে চাইছেন তিনি। এর জন্যেই তিনি বিজেপির পশ্চিমবঙ্গের পর্যবেক্ষক কৈলাশ বিজয়বর্গীয় এবং জাতীয় বিজেপি সুপ্রিমো অমিত শাহকে চিঠি দিয়েছে। আরো জানান যে, লোকসভা ভোটে তিনি রায়গঞ্জ আসনটিতে বাংলার বিকাশবাদী দলের হয়ে এনডিএ’র সমর্থনে লড়বেন তিনি।

উল্লেখ্য, এই প্রাক্তণ মন্ত্রীই প্রথমে কংগ্রেস ছেড়ে তৃণমূলের টিকিট কেটেছিলেন। সেখান থেকে জিতে মন্ত্রী ও হন কিন্তু পরে আবার হেরে যাওয়ায় তৃণমূলের সাথে দূরত্ত্ব বাড়ে তাই পরে আবার তৃণমূল ছেড়ে বাংলা বিকাশবাদী কংগ্রেস তৈরি করেন। তবে তাঁর বিজেপির জোট সরকারে যোগ দেওয়া একদিকে যেমন বিজেপির শক্তি বৃদ্ধিতে সাহায্য করবে। সংখ্যালঘুদের ভোটকে কুক্ষীগত করতে মদত দেবে। অন্যদিকে, তিনি যদি হঠাৎ করে নিজের মত বদলান তাহলে চাপে পড়তে পারে মোদীজি-অমিতশাহরা। এমনটাই মনে করছেন রাজনৈতিক ওয়াকিবহাল মহল। তাই বিজেপির দলীয় অন্দরে এই বিষয়কে কেন্দ্র করে তীব্র চাপানউতোর চলছে বর্তমানে।

আপনার মতামত জানান -
Top
error: Content is protected !!