এখন পড়ছেন
হোম > রাজ্য > মুড়ির টিনেই পঞ্চায়েতের ভাগ্য নির্ধারণ, সঙ্গে দোসর ‘গোদরেজ’ আর ‘বাঙ্গো’

মুড়ির টিনেই পঞ্চায়েতের ভাগ্য নির্ধারণ, সঙ্গে দোসর ‘গোদরেজ’ আর ‘বাঙ্গো’

মুড়ির টিনেই পঞ্চায়েতের ভাগ্য নির্ধারণ, সঙ্গে দোসর ‘গোদরেজ’ আর ‘বাঙ্গো’
আগামী ত্রিস্তরীয় পঞ্চায়েত নির্বাচনে ভোটের ব্যালট জমা পড়ার জন্য ব্যবস্থা করা হলো মুড়ির টিনের। যদিও পঞ্চায়েতের অন্য ক্ষেত্র পঞ্চায়েত সমিতিতে ভোটের ব্যালট জমা পড়বে গোদরেজ বক্সে এবং জেলা পরিষদের ভোট ব্যালট জমা পড়বে ‘বাঙ্গো ব্যালট বক্স’-এ। কিন্তু এই দুই বক্সের তুলনায় মুড়ির টিন অনেক কম শক্তপোক্ত। তবে কোনো এমন সিদ্ধান্ত? জানা গেছে, মুড়ির টিনের আকার অনেকটা বড়ো এবং রাজ্যের প্রায় ৪৯ হাজার গ্রাম পঞ্চায়েত আসনের জন্য অনন্য বক্স অনেকটাই ব্যয় বহুল। তাই সাশ্রয়ের কথা মাথায় রেখেই এমন সিদ্ধান্ত গ্রহণ। বিষয়টি নিয়ে এক পঞ্চায়েত কর্মকর্তা জানিয়েছেন,”মুড়ির টিন দিয়ে এটি তৈরি হলেও আমাদের খাতাতে ইম্প্রোভাইজড বক্স হিসাবেই নথিভুক্ত হয়।” জানা গেছে মোট ৬ টি ব্যালট বক্স বরাদ্দ থাকে। তার মধ্যে গ্রাম পঞ্চায়েত ও পঞ্চায়েত সমিতিতে একটিই বক্স লাগে। আর ‘বাঙ্গো ব্যালট বক্স’-এ মোট ৮০০ টি ব্যালট জমা করা সম্ভব হয়। এক একটি বক্স প্রায় পনেরো কুড়ি বছর চালানোর পর তা বদল করা হয়। আগামী পঞ্চায়েত নির্বাচনের জন্য প্রায় ৪০ হাজার ব্যালট বক্স তৈরী করা হচ্ছে যার খাতে খরচ হবে প্রায় ১০ কোটি টাকা। নবান্ন সূত্রের খবর, সার্কের অন্তর্গত দেশ গুলির যেখানে ব্যালটে ভোট হয় রাজস্থানের একটি সংস্থা সেখানে ব্যালট সরবরাহ করে, আর তারাই আগামী ত্রিস্তরীয় পঞ্চায়েত নির্বাচনের ব্যালট বক্স তৈরী করছে।

আপনার মতামত জানান -
Top
error: Content is protected !!