এখন পড়ছেন
হোম > বিশেষ খবর > স্বাস্থ্য দপ্তরের নতুন নির্দেশিকায় আর খোলা জায়গায় মশার ধোঁয়া দেওয়া চলবে না

স্বাস্থ্য দপ্তরের নতুন নির্দেশিকায় আর খোলা জায়গায় মশার ধোঁয়া দেওয়া চলবে না

ডেঙ্গুর আক্রমন থেকে রাজ্যের রাজধানীকেই বাচাঁতে গিয়ে টানাপোড়েন শুরু হলো স্বাস্থ্য দফতর এবং পুরসভার মধ্যে। শনিবার স্বাস্থ্য দফতর থেকে পুরসভার প্রতিটি বরোর এগজিকিউটিভের মাধ্যমে মেয়র পারিষদ ও পুর কাউন্সিলরদের চিঠি পাঠিয়ে স্পষ্ট জানানো হয় যে খোলা জায়গায় মশার ধোঁয়া ছড়ানো কোনোমতেই বিজ্ঞান সম্মত উপায় নয়, কারণ বাইরে থেকে খোলা জায়গায় বা রাস্তায় ধোঁয়া দিলে মশা ঘরে ঢুকে পড়ার আশঙ্কা থাকে। এই প্রসঙ্গে ব্যাখ্যা দিতে গিয়ে পুরসভার মশা দমন টিমের মুখ্য পতঙ্গবিদ দেবাশিস চট্টোপাধ্যায় বলেন, ডেঙ্গুর জীবনুবাহী মশা ঘরের থেকে বাইরেই বেশি কামরায়, হিসেব করে দেখা গিয়েছে ৭০-৮০% ক্ষেত্রে এই মশা কামরায় ঘরের বাইরে। আর তাই যখন কোন বাড়িতে ডেঙ্গি আক্রান্তের খবর আসে, কেবল তখনই পুরসভার টিম গিয়ে ওই বাড়ির ভিতরে মশার ধোঁয়া দেয়।
কিন্তু বাস্তবে দেখা গেছে, পুর-কর্মীরা দুপুর বারোটায় অটো বা যন্ত্রের মাধ্যমে দেদার মশার ধোঁয়া দিচ্ছেন। আর তাই প্রশ্ন উঠে গেছে, এগুলি কি তাহলে সবই ‘লোক দেখানো’ কর্মসূচী? যা নিয়ে প্রশ্ন তুলছেন বিরোধীরাও। তবে বিতর্ক উড়িয়ে আপাতত সবার লক্ষ্য মশা-দমন। আর তাই স্বাস্থ্য দফতরের এই চিঠিতে কাউন্সিলরদের স্পষ্ট ভাবে জানানো হয়েছে যে মশা মারার ব্যাপারে বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার নির্দেশিকা অবশ্যই মানতে হবে এবং শীতকাল চলে এলেও মশা মারার কাজে একই ভাবে স্বাস্থ্য দফতর কে সাহায্য করতে হবে।

আপনার মতামত জানান -
Top
error: Content is protected !!