এখন পড়ছেন
হোম > রাজ্য > উত্তরবঙ্গ > আলিপুরদুয়ার পুরসভায় পদ্ম ফোটাতে মরিয়া গেরুয়া শিবির, ভোট পিছোতে চায় শাসকদল?

আলিপুরদুয়ার পুরসভায় পদ্ম ফোটাতে মরিয়া গেরুয়া শিবির, ভোট পিছোতে চায় শাসকদল?

আলিপুরদুয়ার পুরসভা নির্বাচনে নিজেদের আসন পাকা করতে মরিয়া গেরুয়া শিবির। আসন্ন পুরসভা নির্বাচনে সাফল্য পাওয়ার লক্ষ্যে আগামী ২৯ জুন জেলায় জেলায় সম্পর্ক অভিযানকে বিশেষ গুরুত্ব দিচ্ছে গেরুয়া শিবির। মনে করা হচ্ছে ঐ সম্পর্ক অভিযানের মাধ্যমেই পুরসভা নির্বাচনের প্রাথমিক প্রচার শুরু করে দেবে বিজেপি। জেলার বীরপাড়া মোড়, শোভাগঞ্জ, জিৎপুর, ভোলারডাবরি এবং রেল জংশন প্রভৃতি পঞ্চায়েত শাসনাধীন শহর সংলগ্ন অঞ্চলকে পুরসভা এলাকার মধ্যে সংযুক্ত করার দাবি বহুদিন ধরেই উঠেছিলো। পুরসভা নির্বাচনের প্রচারে এটাই মুখ্য করা হবে বলে জানা যাচ্ছে। সম্প্রতি তৃণমূল কংগ্রেস পরিচালিত আলিপুরদুয়ার পুরসভার চেয়ারম্যান আশিস দত্ত প্রস্তাবিত সময়ে পুরসভা নির্বাচন হবেনা বলে আশঙ্কা প্রকাশ করেন। চেয়ারম্যানের এই আশঙ্কাকেই অস্ত্র করে নিতে আগ্রহী হয়েছে গেরুয়া শিবির। এদিন আসন্ন পুরসভা নির্বাচন সম্পর্কে বিজেপির জেলা সভাপতি গঙ্গাপ্রসাদ শর্মা বললেন, ” আলিপুরদুয়ার পুরসভার তৃণমূল বোর্ড শহর লাগোয়া পঞ্চায়েত এলাকাগুলিকে আজও পুরসভার সঙ্গে যুক্ত করতে পারেনি।

আরো খবর পেতে চোখ রাখুন প্রিয়বন্ধু মিডিয়া-তে

——————————————————————————————-

 এবার থেকে প্রিয় বন্ধুর খবর পড়া আরো সহজ, আমাদের সব খবর সারাদিন হাতের মুঠোয় পেতে যোগ দিন আমাদের হোয়াটস্যাপ গ্রূপে – ক্লিক করুন এই লিঙ্কে

 

অথচ ওই এলাকাগুলি যুক্ত হলে পুরসভার গুরুত্ব যেমন বাড়ত তেমনি পঞ্চায়েতে থাকা এলাকাগুলির উন্নয়নও হবে। আমরা সম্পর্ক যাত্রায় পুর এলাকার বাড়ি বাড়ি গিয়ে তৃণমূল বোর্ডের এই ব্যর্থতার কথা প্রচারে তুলে ধরব। সময় মতো ভোট হলে আলিপুরদুয়ার পুরসভার ২০টি ওয়ার্ডই আমরা দখল করব। এই ভয় থেকেই তৃণমূল এখন পুরসভায় ভোট করতে চাইছে না। আমরা তৃণমূলের ভোট না করার এই ভীতিকেও প্রচারে তুলে ধরব। ” উল্লেখ্য গত লোকসভা নির্বাচনে পুরসভার ২০টি ওয়ার্ডের মধ্যে ১২ টিতে জয়লাভ করেছিলো বিজেপি শিবির। তবে গত লোকসভা নির্বাচনের পরে বহু দিন অতিক্রান্ত। শহরে রাজনৈতিক চিত্র ধীরে ধীরে পরিবর্তন হয়েছে। এদিকে পুরসভার চেয়ারম্যান আশিস দত্ত তাঁর মন্তব্যের ভুল ব্যাখ্যা করে সেটা নিয়ে বিজেপি শিবিরের রাজনীতি করার সম্ভবনাকে কার্যত ধীক্কার জানিয়ে বললেন, ” আমি কখনই বলিনি পুরভোট সময়ে হবে না। আমি বলেছি, উত্তরবঙ্গের অনেক পুরসভারই মেয়াদ আগামী বছর শেষ হচ্ছে। সেক্ষেত্রে আলিপুরদুয়ার পুরসভার ভোট সময় মতো নাও হতে পারে। সরকার একবছর পরে আলিপুরদুয়ার সহ উত্তরবঙ্গের অন্যসব পুরসভার ভোট করতে পারে। ভোটে আমরা ২০টি ওয়ার্ডেই জিতব। শহরে বিজেপির কোনও অস্তিত্ব নেই। পঞ্চায়েতে থাকা শহর লাগোয়া এলাকাগুলিকে পুরসভার সঙ্গে যুক্ত করার জন্য আমরা পুরদপ্তরে প্রস্তাব পাঠিয়েছি। মানুষকে মিথ্যা বুঝিয়ে বিজেপি কোনওরকম সুবিধা করতে পারবে না।”

Top
error: Content is protected !!