এখন পড়ছেন
হোম > রাজ্য > কলকাতা > আজব কান্ড পিএসসিতে! ১ জনের চাকরির জন্য পার্সোনালিটি টেস্টে ডাকা হল ৭৫ জনকে, অভিযোগ চাকরিপ্রার্থীদের

আজব কান্ড পিএসসিতে! ১ জনের চাকরির জন্য পার্সোনালিটি টেস্টে ডাকা হল ৭৫ জনকে, অভিযোগ চাকরিপ্রার্থীদের

একদিকে এসএসসির শিক্ষক নিয়োগের ইন্টারভিউয়ে পেন্সিলে নম্বর দেওয়ার অভিযোগে সরগরম রাজ্য, অপরদিকে জুনিয়র ইঞ্জিনিয়ার নিয়োগে দুর্নীতির জন্য আঙ্গুল উঠল পিএসসির বিরুদ্ধে। পিএসসির বিরুদ্ধে এই অভিযোগ করছেন চাকরিপ্রার্থীদের একাংশ। পাশাপাশি তাঁদের আরো অভিযোগ যে আগাম অনুমতি নিয়ে মিছিল আয়োজন করলেও সেই মিছিল আটকেছে পুলিশ।

প্রসঙ্গত, পিএসসি ২০১৭ সালে রাজ্য সরকারের ইলেকট্রিকাল ব্রাঞ্চে নিয়োগের জন্য বিজ্ঞপ্তি দেয়। প্রায় ১ লাখ চাকরিপ্রার্থী এই পদের জন্য আবেদন করে। কিন্তু চাকরিপ্রার্থীদের অভিযোগ গত তিন বছর ধরে চলতে থাকা নিয়োগ প্রক্রিয়ায় ১২০ টি পদের জন্য ২০৫৩ জনকে পার্সোনালিটি টেস্টে ডাকা হয়। এক্ষত্রে পিএসসি প্রতি একটি সিটের জন্য ৭৫ জনের অনুপাতে পার্সোনালিটি টেস্টে ডেকেছে। যেখানে অন্য চাকরির ক্ষেত্রে প্রতি একই সিটে ২ বা ৩ জনকে ডাকার রেওয়াজ রয়েছে পিএসসিতে। এইখানেই চাকরিপ্রার্থীরা অভিযোগ করছেন সরাসরি পিএসসির দুর্নীতির বিরুদ্ধে। তাঁদের দাবি, কম কাট অফ থাকা পরীক্ষার্থীদের পার্সোনালিটি টেস্টে বেশি নম্বর দিয়ে চাকরি পাওয়ানের জন্যই ১:৭৫ রেশিওতে ডাকা হয়েছে।

ফেসবুকের কিছু টেকনিক্যাল প্রবলেমের জন্য সব আপডেট আপনাদের কাছে সবসময় পৌঁচ্ছাছে না। তাই আমাদের সমস্ত খবরের নিয়মিত আপডেট পেতে যোগদিন আমাদের হোয়াটস্যাপ বা টেলিগ্রাম গ্রূপে।

১. আমাদের Telegram গ্রূপ – ক্লিক করুন
২. আমাদের WhatsApp গ্রূপ – ক্লিক করুন
৩. আমাদের Facebook গ্রূপ – ক্লিক করুন
৪. আমাদের Twitter গ্রূপ – ক্লিক করুন
৫. আমাদের YouTube চ্যানেল – ক্লিক করুন

নিয়োগে দুর্নীতির অভিযোগে চাকরিপ্রার্থীদের একাংশ গত ২৫ শে জুন পিএসসির চেয়ারম্যানকে ডেপুটেশন দিয়েছিলেন। কিন্তু কেন প্রতিকার না হওয়ায় তাঁরা এই নিয়োগের বিরুদ্ধে আদালতে মামলা করেছেন। পাশাপাশি গতকাল প্রশাসনের আগাম অনুমতি নিয়ে শিয়ালদা থেকে রাজভবন অভিযানের পরিকল্পনা করেছিলেন জুনিয়ার ইঞ্জিনিয়র চাকরিপ্রার্থীরা। কিন্তু, মিছিল শুরুর আগেই পুলিশের তরফে তাঁদের বলা হয়, মিছিল করতে দেওয়া হবে না।পুলিশের তরফে জানানো হয়েছে, উল্টোরথ ও বিভিন্ন রাজনৈতিক দলের কর্মসূচি থাকার জন্যই মিছিলের অনুমতি দেওয়া সম্ভব হয়নি। মিছিলের জন্য প্রস্তুত হয়ে দূরদূরান্ত থেকে আসা আন্দলনকারী ইঞ্জিনিয়াররা এরপর শিয়ালদহ স্টেশন চত্বরেই প্রশাসনের বিরুদ্ধে বিক্ষোভ দেখাতে থাকেন।এই বিক্ষোভ থেকে এই হুঁশিয়ারিও দেওয়া হয় যে রাজ্যের শিক্ষিত বেকাররাই মমতা ব্যানার্জীর সরকারকে রাজ্যছাড়া করবে।

এরপর অবশ্য পুলিশের তরফেই উদ্যোগ নিয়ে আন্দলনকারীদের থেকে ৫ জনের প্রতিনিধিদলকে দুপুর ১ টা নাগাদ রাজভবন নিয়ে যাওয়া হয়। তবে রাজ্যপাল রাজভবনে উপস্থিত ছিলেন না তাই ইঞ্জিনিয়ারদের প্রতিনিধিদল রাজ্যপালের দেখা পাননি ।তবে রাজভবন সূত্রে তাদের এই আশ্বাস দেওয়া হয়েছে যে রাজ্যপাল পরে তাঁদের সঙ্গে দেখা করবেন। সেই অনুযায়ী প্রতিনিধিদলের সদস্য দের রাজভবনে ডেকে পাঠানো হবে। রাজভবন থেকে ফিরে এসে বিক্ষোভ কর্মসূচি প্রত্যাহার করেন তাঁরা। তবে, পরবর্তীকালে আরও বৃহত্তর আন্দোলনের হুঁশিয়ারি দেন।

দুর্নীতির পাশাপাশি সংরক্ষণ বিধি নিয়েও আন্দোলনকারীরা ক্ষোভ উগরে দেন। তাঁদের দাবি নিয়োগের ১২০ তা সিটের মধ্যে ১৪ টা জেনারেল। বাকি সব আসন সংরক্ষিত. আন্দোলনকারীদের তরফে গৌরব দাস সাংবাদিকদের জানান “ফ্লাইওভার কেন ভেঙে পড়বে না ? আমাদের নিয়োগের নম্বরের পার্থক্য সেই জন্য দায়ি। একজন জেনেরাল প্রার্থী ১৯৯  নম্বর পেয়ে জেনেরাল ক্যাটাগরিতে নাম তুলছে। আর একজন SC প্রার্থী সেখানে ৫১ নম্বর পেয়ে নাম তুলছে। ১৫০ নম্বরের পার্থক্য ! শুধু ব্রিজ কেন পুরো সমাজই দুর্নীতিতে ভরে গেছে ।”

Top
error: Content is protected !!