এখন পড়ছেন
হোম > রাজ্য > উত্তরবঙ্গ > সব বুথে এজেন্ট দেওয়া দূরে থাক, তৃণমূলের সংগঠনের সামনে দাঁড়াতে পারছে না বিজেপি – আশা – আশঙ্কায় দুই দলই

সব বুথে এজেন্ট দেওয়া দূরে থাক, তৃণমূলের সংগঠনের সামনে দাঁড়াতে পারছে না বিজেপি – আশা – আশঙ্কায় দুই দলই

গতকাল রাজ্যের প্রথম দফায় লোকসভা নির্বাচন কোচবিহার এবং আলিপুরদুয়ার লোকসভা কেন্দ্র দিয়ে শুরু হয়েছিল। কিন্তু এই নির্বাচনে শুরু হয়ে বেলা যত গড়িয়েছে, ততই শাসকদল তৃনমূলের বিরুদ্ধে ছাপ্পা দেওয়ার অভিযোগ তুলে সরব হয়েছে বিজেপি। আর ভোট পর্ব শেষ হওয়ার সাথে সাথেই কোচবিহারের পলিটেকনিক কলেজের ডিসিআরসিতে কোচবিহার লোকসভা কেন্দ্রের বিজেপি প্রার্থী নিশীথ প্রামাণিক ধরনায় বসে পড়ার ঘটনায় তীব্র চাঞ্চল্যের সৃষ্টি হয়।

এদিকে বিজেপি প্রার্থীর এই ধরনা তুলতে গেলে রাজ্য পুলিশের সাথে সেই নিশীথ প্রামাণিকের দেহরক্ষীদের তুমুল বচসা বেধে যায়। শুরু হয় ধস্তাধস্তিও। এদিকে গোটা পরিস্থিতি আয়ত্তে আনতে জেলা প্রশাসনের আধিকারিকরা জেলা পুলিশ এবং সিআইএসএফের জওয়ানদের মাঝখানে দাঁড়িয়ে পড়ে সংবাদমাধ্যমকে বের করে দেয় বলে জানা গেছে।

আর এরপরই বিজেপি প্রার্থী নিশীথ প্রামাণিক জেলাশাসকের সঙ্গে পৃথকভাবে আলোচনায় বসে শুক্রবার ফের তার সঙ্গে জেলাশাসক আলোচনায় বসবেন বলে আশ্বাস দিলে শেষ পর্যন্ত ধরনা তুলে নেন বিজেপি প্রার্থী। কিন্তু কেন হঠাৎ ভোট পর্ব শেষ হওয়ার পরেই জেলাশাসকের দপ্তরে ধর্নায় বসলেন নিশীথ প্রামাণিক?

বিজেপির অভিযোগ, কোচবিহার লোকসভা কেন্দ্রের দিনহাটায় বেশ কিছু বুথে তাদের এজেন্টকে ঢুকতে দেওয়া হয়নি। আর এটা দেখেই রীতিমতো ক্ষিপ্ত হয়ে ওঠেন নিশীথ প্রামাণিক। একসময় তৃণমূলে থাকার সময় নিশীথের যারা অনুগামী বলে পরিচিত ছিলেন, তারাই এদিন সেই নিশীথের বিরুদ্ধে তৃণমূলের হয়ে বাইকে করে বিভিন্ন জায়গায় দাপিয়ে বেড়ান বলে জানা গেছে।

ফেসবুকের কিছু টেকনিক্যাল প্রবলেমের জন্য সব আপডেট আপনাদের কাছে সবসময় পৌঁচ্ছাছে না। তাই আমাদের সমস্ত খবরের নিয়মিত আপডেট পেতে যোগদিন আমাদের হোয়াটস্যাপ বা টেলিগ্রাম গ্রূপে।

১. আমাদের Telegram গ্রূপ – ক্লিক করুন
২. আমাদের WhatsApp গ্রূপ – ক্লিক করুন
৩. আমাদের Facebook গ্রূপ – ক্লিক করুন
৪. আমাদের Twitter গ্রূপ – ক্লিক করুন
৫. আমাদের YouTube চ্যানেল – ক্লিক করুন

প্রিয় বন্ধু মিডিয়ায় প্রকাশিত খবরের নোটিফিকেশন আপনার মোবাইল বা কম্পিউটারের ব্রাউসারে সাথে সাথে পেতে, উপরের পপ-আপে অথবা নীচের বেল আইকনে ক্লিক করে ‘Allow‘ করুন।


আপনার মতামত জানান -

এদিন বিজেপি প্রার্থী নিশীথ প্রামানিকের বিরুদ্ধে তোপ দেগে গীতালদহ ওয়ান গ্রাম পঞ্চায়েতের নির্দল প্রধান আবুআল আজাদ বলেন, “কমবয়সী নিশীথবাবু রাজনীতিতে খুব ভুল পদক্ষেপ নিয়েছেন। 34 বছর বয়সে বিজেপিতে যোগদান না করে তিনি যদি অপেক্ষা করতেন তাহলেই ভালো হতো।” কিন্তু বিজেপি প্রার্থী যেখানে তৃণমূলের বিরুদ্ধে তাদের এজেন্টকে ভয় দেখানোর অভিযোগ তুলে যখন সরব হচ্ছে, তখন এই ব্যাপারে কি বলছেন কোচবিহার জেলা তৃণমূল সভাপতি তথা মন্ত্রী রবীন্দ্রনাথ ঘোষ?

এদিন তিনি বলেন, “বিজেপি নির্বাচনী এজেন্ট দিতে পারবে না বলেই কেন্দ্রীয় বাহিনীর দাবি করছে। যতগুলি বুথে কোচবিহারে কেন্দ্রীয় বাহিনী ছিল ওরা সেখানে এজেন্টই দিতে পারেনি। আসলে কেন্দ্রীয় বাহিনীই বিজেপি নির্বাচনী এজেন্ট হিসেবে কাজ করছে।” তাহলে কি তৃণমূলের এই অভিযোগ সত্যি?

যদিও বা এই ব্যাপারে তৃণমূলের দাবিকে মানতে নারাজ গেরুয়া শিবির। তাদের বক্তব্য, আসলে এবারের নির্বাচনে কোচবিহারে পদ্ম ফুল ফুটতে চলেছে। তাই জোর করে বিজেপির এজেন্টদেরকে বুথে ঢুকতে না দিয়ে তৃণমূল অশান্তি তৈরি করার চেষ্টা করছে। তবে কার দাবি সত্যি, আর কার দাবির মধ্যেই বা লুকিয়ে আছে প্রকৃত যুক্তি! তা দেখা যাবে আগামী 23 মে ভোটবাক্স খোলার পরই।

আপনার মতামত জানান -
Top
error: Content is protected !!