এখন পড়ছেন
হোম > জাতীয় > পাঞ্জাব ন্যাশনাল ব্যাঙ্কে আবার জালিয়াতি! এবার সামনে এল ৩,৮০০ কোটি টাকার ‘ঘোটালা’!

পাঞ্জাব ন্যাশনাল ব্যাঙ্কে আবার জালিয়াতি! এবার সামনে এল ৩,৮০০ কোটি টাকার ‘ঘোটালা’!

আবার ব্যাঙ্ক জালিয়াতি, আবার পাঞ্জাব ন্যাশনাল ব্যাঙ্ক! আর এবার সামনে এল ৩,৮০০ কোটি টাকার ‘ঘোটালা’! সূত্রের খবর, ভূষণ পাওয়ার অ্যান্ড স্টিল লিমিটেড (বিপিএসএল) এর এই ৩,৮০০ কোটি টাকার ব্যাঙ্ক জালিয়াতি সম্পর্কে সম্প্রতি সামনে এসেছে তথ্য। আর সেই তথ্য হাতে আসতেই বিপিএসএল-এর বিরুদ্ধে একটি স্পেশাল নোট আরবিআইকে পাঞ্জাব ন্যাশনাল ব্যাঙ্কের তরফে পাঠানো হয়েছে।

পিএনবির তরফে জানানো হয়েছে, ভূষণ পাওয়ার অ্যান্ড স্টিল লিমিটেড ব্যাঙ্ক থেকে ঋণ নেওয়ার সময় জংলিয়াতি করেছে। আর এই ঋণ পাবার সময়েই নিজেদের ব্যাঙ্ক অ্যাকাউন্টে গড়বড় করেছে। শেয়ার বাজারে প্রদত্ত তথ্যের ভিত্তিতে জানা গেছে, নতুন করে অডিট ও তদন্তের পরে ব্যাঙ্ক ও কোম্পানির শীর্ষকর্তাদের বিরুদ্ধে সিবিআইয়ের একটি এফআইআর জমা পড়েছে। আর তার ভিত্তিতে ভারতীয় রিজার্ভ ব্যাঙ্কের কাছে মোট ৩,৮০৫.১৫ কোটি টাকার জালিয়াতির রিপোর্ট জমা পড়েছে।

ফেসবুকের কিছু টেকনিক্যাল প্রবলেমের জন্য সব আপডেট আপনাদের কাছে সবসময় পৌঁচ্ছাছে না। তাই আমাদের সমস্ত খবরের নিয়মিত আপডেট পেতে যোগদিন আমাদের হোয়াটস্যাপ বা টেলিগ্রাম গ্রূপে।

১. আমাদের Telegram গ্রূপ – ক্লিক করুন
২. আমাদের WhatsApp গ্রূপ – ক্লিক করুন
৩. আমাদের Facebook গ্রূপ – ক্লিক করুন
৪. আমাদের Twitter গ্রূপ – ক্লিক করুন
৫. আমাদের YouTube চ্যানেল – ক্লিক করুন

প্রিয় বন্ধু মিডিয়ায় প্রকাশিত খবরের নোটিফিকেশন আপনার মোবাইল বা কম্পিউটারের ব্রাউসারে সাথে সাথে পেতে, উপরের পপ-আপে অথবা নীচের বেল আইকনে ক্লিক করে ‘Allow‘ করুন।


আপনার মতামত জানান -

সূত্রের খবর, ভূষণ পাওয়ার অ্যান্ড স্টিল লিমিটেড ঋণ নেওয়ার সময় যে জালিয়াতি করেছে তাতে মদত দিতে যে সব নথি ও তথ্যের গরমিল করা হয়েছে তাতে ব্যাঙ্কের অন্দরমহলের একটি বড় অংশ জড়িত থাকতে পারে। এই বিষয়ে আগামী দিনে এনসিএলটি (ন্যাশনাল কোম্পানি ল্য ট্রাইব্যুনাল) যথাযথ তদন্ত করবে এবং তার ভিত্তিতে প্রয়োজনীয় পদক্ষেপ নেবে। তবে সুখবর একটাই, এই তদন্তে এনসিএলটি ইতিমধ্যেই অনেকটা এগিয়ে গেছে এবং খুব তাড়াতাড়িই এই ঋণের টাকা পুনরুদ্ধার করতে চলেছে।

প্রসঙ্গত, ঋণ রিকভারি ট্রাইবুনাল (ডিআরটি) ইতিমধ্যেই হীরা ব্যবসায়ী নীরব মোদিকে সুদ-সহ পাঞ্জাব ন্যাশনাল ব্যাঙ্ক থেকে নেওয়া ৭,২০০ কোটি টাকা ফেরত দেওয়ার নির্দেশ দিয়েছে। নীরব মোদী পিএনবি থেকে ঋণের নামে ১৩,৫০০ কোটি টাকার জালিয়াতি করে দেশ ছেড়ে পালায়। ২০১৮ সালে এই কেলেঙ্কারি ফাঁস হওয়ার কিছুদিন আগেই বিদেশে পালিয়ে যায় নীরব মোদী। আর এরপরেই ভারতে ও বিদেশে নীরব মোদীর ব্যবসার বিভিন্ন শাখা থেকে সম্পত্তি বাজেয়াপ্ত করে বাকি টাকা উদ্ধার হলেও এখনও বাকি ৭,২০০ কোটি টাকা।

আপনার মতামত জানান -
Top
error: Content is protected !!