এখন পড়ছেন
হোম > রাজ্য > মালদা-মুর্শিদাবাদ-বীরভূম > মেয়াদ শেষের পুরসভায় বসছে প্রশাসক – চাকরি হারানোর ভয়ে চিন্তায় ঘুম উড়েছে ১,৩০০ অস্থায়ী কর্মীর

মেয়াদ শেষের পুরসভায় বসছে প্রশাসক – চাকরি হারানোর ভয়ে চিন্তায় ঘুম উড়েছে ১,৩০০ অস্থায়ী কর্মীর

অবশেষে গতকালই শেষ হল তৃণমূল কংগ্রেস পরিচালিত বহরমপুর পৌরসভার বর্তমান বোর্ডের মেয়াদ। সূত্রের খবর, আজ এই বোর্ডের দায়িত্বভার গ্রহণ করবেন বহরমপুর সদরের মহকুমা শাসক দীপাঞ্জন মুখোপাধ্যায়। আর এই বোর্ডের মেয়াদ শেষ হওয়ার ঘনঘটা বাজতে না বাজতেই চিন্তায় ভাঁজ পড়েছে পুরসভার অস্থায়ী ১,৩০০ কর্মীর কপালে।

প্রসঙ্গত উল্লেখ্য, গত ২০১৩ সালের ১২ ই ডিসেম্বর এই বহরমপুর পৌরসভায় বোর্ড গঠন করে কংগ্রেস। আর এরপরই কংগ্রেসের ১৭ জন কাউন্সিলরকে নিয়ে তৃণমূলে যোগ দেন সেই বোর্ডের চেয়ারম্যান নীলরতন আঢ্য। আর তার জেরেই এই বোর্ড শাসক দলের দখলে আসে। বর্তমানে, ২৮ আসনবিশিষ্ট এই বহরমপুর পুরসভার ২০ টি আসন তৃণমূলের দখলে এবং বাকি আটটা আসন কংগ্রেসের দখলে রয়েছে।

এদিকে পুরসভার ক্ষমতা দখলের পরেই প্রায় তেরোশো অস্থায়ী কর্মী ডিএলবির অনুমোদন ছাড়াই এখানে নিয়োগ করা হয়েছে বলে অভিযোগ। আর কদিন আগে ডিএলবি’র পক্ষ থেকে স্পষ্ট ভাষায় জানিয়ে দেওয়া হয়েছে যে, এই অনুমোদনহীন কর্মীদের দায়িত্ব তারা কোনোমতেই নেবে না। আর এহেন একটা পরিস্থিতিতে পুরসভার বর্তমান বোর্ডের মেয়াদ শেষ হয়ে যাওয়ায় এবং তা প্রশাসকের হাতে যাওয়ার ঠিক আগের মুহূর্তে সেই কর্মীদের কি হবে তা নিয়ে চিন্তায় রয়েছেন অনেকেই।

ফেসবুকের কিছু টেকনিকাল প্রবলেমের জন্য সব খবর আপনাদের কাছে পৌঁছেছে না – তাই আরো খবর পেতে চোখ রাখুন প্রিয়বন্ধু মিডিয়া-তে

এবার থেকে প্রিয় বন্ধুর খবর পড়া আরো সহজ, আমাদের সব খবর সারাদিন হাতের মুঠোয় পেতে যোগ দিন আমাদের হোয়াটস্যাপ গ্রূপে – ক্লিক করুন এই লিঙ্কে

অনেকেরই আশঙ্কা, যে প্রশাসক এই অনুমোদনহীন কর্মীদের মান্যতাই দেবেন না। ফলে এই মান্যতার অভাবে যদি তাঁদের কাজ চলে যায় তাহলে প্রবল সমস্যার সম্মুখীন হবেন এই মানুষগুলো। এদিন এই প্রসঙ্গে বহরমপুর পৌরসভার বর্তমান চেয়ারম্যান নীলরতন আঢ্য সংবাদমাধ্যমকে বলেন, “মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় সর্বদাই সর্বস্তরের মানুষের পাশে থাকেন। পুরসভার অস্থায়ী কর্মীদের কোনো সমস্যা হবে না বলেই আশা করছি”।

অন্যদিকে, প্রশাসক নিয়োগের পরও তিনি সপ্তাহে তিন-চার দিন পুরসভায় আসবেন বলেও এদিন জানান বর্তমান চেয়ারম্যান। এদিকে, যেহেতু নতুন সংশোধনী এনে রাজ্য সরকার প্রশাসক দিয়ে পুরসভা চালানোর মেয়াদ এক বছর করে দিয়েছে, তাই এখানে পুর-নির্বাচন কবে হবে কেউ জানেন না। তবুও সেই অনিশ্চয়তার মধ্যে বর্তমান বোর্ডের মেয়াদ শেষ হয়ে গেলেও পুরভবনে উৎসবের মেজাজ। মেয়াদ শেষের দিন তৃণমূল পরিচালিত মুর্শিদাবাদ জেলার পুর কর্মচারী ইউনিয়নের পক্ষ থেকে দলীয় কাউন্সিলর চেয়ারম্যানকে সংবর্ধনা দেওয়ারও সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে।

এদিন এই প্রসঙ্গে পুর কর্মচারী ইউনিয়নের জেলা সভাপতি নাড়ুগোপাল মুখোপাধ্যায় বলেন, “নাগরিকদের সঙ্গে নিয়ে দক্ষতার সঙ্গে আমাদের কাউন্সিলররা পুরসভা পরিচালনা করেছেন। তাই তাঁদের পুষ্পস্তবক দিয়ে সংবর্ধনা দেওয়া হবে”। তবে বিদায়লগ্নেও তৃণমূল পরিচালিত বহরমপুর পৌরসভার অনেক কাউন্সিলরদের কপালেই রয়েছে চিন্তার ভাঁজ। কেননা প্রশাসক ক্ষমতায় বসলে ডিএলবি অনুমোদনহীন অস্থায়ী কর্মীর ভবিষ্যৎ নিয়ে তিনি আদৌ কোনো রকম সিদ্ধান্ত নেন কিনা এখন সেদিকেই তাকিয়ে সকলে।

আপনার মতামত জানান -
Top
error: Content is protected !!