এখন পড়ছেন
হোম > বিশেষ খবর > সবং জিতেই আসন্ন উপনির্বাচনে মন দিতে চলেছে তৃণমূল কংগ্রেস

সবং জিতেই আসন্ন উপনির্বাচনে মন দিতে চলেছে তৃণমূল কংগ্রেস

সারা দেশজুড়ে যখন গেরুয়া ঝড় তখন পশ্চিমবঙ্গ যে দিদিতেই আস্থাশীল তা আবারো প্রমাণিত হয়ে গেল। সবং বিধানসভা উপনির্বাচনে তৃণমূল কংগ্রেসের কাছে খড়কুটোর মতো উড়ে গেল বিজেপি সহ অন্যান্য বিরোধীদলগুলি। সবং উপনির্বাচনে কংগ্রেসের প্রাক্তন বিধায়ক ও বর্তমানে শাসকদলের রাজ্যসভার সাংসদ মানস ভূঁইয়ার পত্নী গীতারানী ভূঁইয়া তৃণমূলের হয়ে ৬৪ হাজার ১৯২ ভোটে জয়ী হলেন। প্রসঙ্গত, কংগ্রেসের শক্ত ঘাঁটি বলেই এতদিন পরিচিত ছিল সবং। কিন্তু তাৎপর্যপূর্নভাবে মানস ভূঁইয়া দলবদল করে শাসকদলে যোগ দিতেই এই নির্বাচনে একেবারে চতুর্থ স্থানে শেষ করেছে কংগ্রেস। সাম্প্রতিককালের অন্যান্য নির্বাচনী ফলাফলকে দূরে সরিয়ে রেখে, খানিকটা অপ্রত্যাশিতভাবেই এখানে বামেদের পিছনে তৃতীয় হয়েই সন্তুষ্ট থাকতে হয়েছে বিজেপিকে।
তবে এই ফলাফল সিপিএম এর দলীয় সংগঠনকে অক্সিজেন যোগাবে বলেই মনে করছেন রাজনৈতিক বিশেষজ্ঞরা। সিপিএম তথাকথিত ‘ভাঙা সংগঠন’ নিয়েও নিজেদের শক্তি জানান দিল বলেই মনে করছেন তাঁরা। প্রসঙ্গত, সিপিএম প্রার্থী রীতা জানা মন্ডল পেয়েছেন ৪১ হাজার ৯৮৭টি ভোট। বিগত কয়েক বছরের বিভিন্ন নির্বাচনে সিপিএমের ‘রক্তক্ষরণের’ দিকে লক্ষ্য রাখলে এই সাফল্য অপ্রত্যাশিত বলেই মনে করছে রাজনৈতিক বিশেষজ্ঞরা। তাঁদের মতে, তৃতীয় হলেও রাজ্য-রাজনীতির বর্তমান ধরা মেনেই বিজেপির পাচঁগুনেরও বেশি ভোটবৃদ্ধি হয়েছে, ফলে অবশ্যই সিপিএমের ঘাড়ে নিঃশ্বাস ফেলছে গেরুয়া শিবির।আগামীদিনে যা সিপিএম-কংগ্রেসের কাছে অশনিসংকেত হয়ে উঠতে চলেছে বলেও মনে করছেন তাঁরা।
একধাপে প্রায় ৩২ হাজার ভোট বৃদ্ধি পেয়েছে বিজেপির, যা পশ্চিমবঙ্গের রাজনীতির পরিপ্রেক্ষিতে বিশেষ তাৎপর্যপূর্ণ বলেই মত রাজনৈতিক মহলের। প্রসঙ্গত ২০১৬ সালে বিধানসভা নির্বাচনে সবংয়ে বিজেপি পেয়েছিল ৫,৬১০ টি ভোট, যা এবার বেড়ে হয়েছে ৩৭ হাজার ৭৪৬। ফলে বিরোধী শিবিরের দিকে তাকালে কংগ্রেস বাদে উল্লাসিত বাকি দুই শিবিরই। তবে তা নিয়ে বিশেষ চিন্তিত নট শাসকদল, কেননা তাঁদের মতে বিজেপি এবং বামফ্রন্টের লড়াই চলছে মূলত দ্বিতীয় হওয়ার জন্য, অন্যদিকে বিরোধীদের সম্মিলিত ভোটব্যাঙ্ক এক করলেও তা ছুঁতে পারছে না শাসকদলকে। ফলে রাজ্য-রাজনীতিতে যতই বিরোধীরা শাসকের বিরুদ্ধে হওয়া গরম করার চেষ্টা করুক, শাসকদল তৃণমূল কংগ্রেস কিন্তু নিঃশব্দে নিজস্ব ভোটব্যাঙ্ক বাড়িয়েই চলেছে, যা রীতিমত স্বস্তিদায়ক। ফলে সবং জিতেই নতুন উৎসাহে আসন্ন উলুবেড়িয়া লোকসভা ও নোয়াপাড়া বিধানসভা নির্বাচনে ঝাঁপিয়ে পড়তে চায় তারা।

আপনার মতামত জানান -
Top
error: Content is protected !!