এখন পড়ছেন
হোম > রাজ্য > অমিত শাহের পর এবার আর এক হেভিওয়েট বিজেপি নেতার বিরুদ্ধে আইনি ব্যবস্থায় অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায়

অমিত শাহের পর এবার আর এক হেভিওয়েট বিজেপি নেতার বিরুদ্ধে আইনি ব্যবস্থায় অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায়

বিষমদ নিয়ে তৃণমূলের যুবরাজকে সরাসরি বিদ্ধ করায় আইনি জটিলতায় পড়তে হলো পশ্চিমবঙ্গে বিজেপির অন্যতম পর্যবেক্ষক কৈলাশ বিজয়বর্গীয়কে। বিষমদ কান্ড নিয়ে শুক্রবার শান্তিপুরে এসে, সরাসরি অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায়কে আক্রমণ করেন কৈলাশ বিজয়বর্গীয়। তাঁর সেই মন্তব্যের পরিপ্রেক্ষিতে এবার তাকে আইনি নোটিশ পাঠালেন অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায়।

এর আগেও বিজেপির বহু নেতা-মন্ত্রী অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায়কে নানাভাবে কটাক্ষ করেছেন। এবার শুক্রবারে শান্তিপুরে গিয়ে তৃণমূলের যুবরাজ কে উদ্দেশ্য করে কৈলাশ বিজয় বর্গীয় বলেন,”সরকারি ভাবে মদ বিক্রির টাকা যায় মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের কাছে।আর বেআইনি মদ বিক্রির টাকা যায় তাঁর ভাইপো অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায়ের কাছে। এই মৃত্যুর দায় সম্পূর্ণ ভাবে তাদের।”

স্বাভাবিকভাবেই কৈলাশ বিজয়বর্গীয়র এই মন্তব্যের ফলে নতুন পথে মোড় নেয় তৃণমূল-বিজেপি তরজা। তৃণমূল মহাসচিব পার্থ চট্টোপাধ্যায় কৈলাশ বিজয়বর্গীয়কে চ্যালেঞ্জ করে বলেন,”বিজয় বর্গীয় অভিষেকে বিরুদ্ধে যে অভিযোগ করেছেন, তা প্রমাণ করতে না পারলে মানহানি মামলা করা হবে।”পার্থবাবুর এই মন্তব্যের পরেইঅভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায় এর তরফ থেকে বিজয়পুর কেউকে আইনি চিঠি পাঠিয়ে ৭২ ঘণ্টার মধ্যে নিঃশর্ত ক্ষমা চাইতে বলা হয়েছে।পাশাপাশি সেই চিঠিতে তাঁকে হুঁশিয়ারি দিয়ে বলা হয়েছে ক্ষমা না চাইলে ফৌজদারি মামলা করা হবে।

প্রসঙ্গত, নদীয়ার শান্তিপুরে বিষমদ খেয়ে ইতিমধ্যে ১২ জনের মৃত্যু হয়েছে। পাশাপাশি আরো অনেকেই হাসপাতালে।নিহতদের পরিবারকে ২ লাখ টাকা ক্ষতিপূরণের প্রতিশ্রুতি দিয়েছিল সরকার।গতকাল সেই প্রতিশ্রুতি অনুযায়ী শান্তিপুরে গিয়ে পার্থ চট্টোপাধ্যায় নিহতদের পরিবারের হাতে চেক তুলে দেন।অন্যদিকে এই দিনে নিহতদের পরিবারের সাথে দেখা করতে যান কৈলাশ বিজয় বর্গীয় ও মুকুল রায় সহ বিজেপির একটি প্রতিনিধি দল।

কিন্তু সেখানে পৌঁছে তৃণমূলের বিক্ষোভের মুখে পড়তে হয় তাদেরকে। বিজেপির গাড়ির সামনে গড়াগড়ি খায় তৃণমূলীরা।স্থানীয় তৃণমূলের কর্মীরা বিজেপির বিরুদ্ধে ‘গো ব্যাক’ স্লোগান তোলে। পরে ঘটনাস্থলে তৃণমূল ও তৃণমূলের যুবরাজ অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায় বিরুদ্ধে তোপ দাগেন কৈলাশ বিজয় বর্গীয়। যার পরিপ্রেক্ষিতে তাকে আইনি নোটিশ পাঠান অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায়।

ফেসবুকের কিছু টেকনিকাল প্রবলেমের জন্য সব খবর আপনাদের কাছে পৌঁছেছে না। তাই আরো খবর পেতে চোখ রাখুন প্রিয়বন্ধু মিডিয়া-তে

 

এবার থেকে প্রিয় বন্ধুর খবর পড়া আরো সহজ, আমাদের সব খবর সারাদিন হাতের মুঠোয় পেতে যোগ দিন আমাদের হোয়াটস্যাপ গ্রূপে – ক্লিক করুন এই লিঙ্কে

প্রসঙ্গত উল্লেখ্য, এর আগেও বিজেপির অনেক নেতাকর্মীকে আলগা মন্তব্যের জন্য আইনি জটিলতায় পড়তে হয়েছে।কিছুদিন আগে বাংলায় এসে অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায় কে ব্যক্তিগত আক্রমণ করার জন্য অমিত শাহের বিরুদ্ধে মানহানির মামলা করেন মুখ্যমন্ত্রীর ভাইপো।এবার সেই একই ঘটনার পুনরাবৃত্তি ঘটল কৈলাশ বিজয়বর্গীয়র ক্ষেত্রে।

আপনার মতামত জানান -
Top
error: Content is protected !!