এখন পড়ছেন
হোম > রাজ্য > স্বচ্ছ প্রশাসন ও সুশাসন প্রতিষ্ঠা করতে দলীয় প্রধান- উপপ্রধানদের নিয়ে নতুন পদক্ষেপ শাসকদলের

স্বচ্ছ প্রশাসন ও সুশাসন প্রতিষ্ঠা করতে দলীয় প্রধান- উপপ্রধানদের নিয়ে নতুন পদক্ষেপ শাসকদলের

গ্রাম পঞ্চায়েতের উন্নয়নে পঞ্চায়েত প্রধানরাই যে মুখ্য ভূমিকা পালন করেন তা বারে বারে দলের পঞ্চায়েত প্রধানদের নির্দেশ দিয়েছেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দোপাধ্যায়। আর সেই গ্রাম পঞ্চায়েতের স্বচ্ছ প্রশাসন এবং সুশাসন প্রতিষ্ঠা করতে উদ্যোগী হচ্ছে রাজ্যের পঞ্চায়েত ও গ্রামোন্নয়ন দপ্তর।

প্রসঙ্গত উল্লেখ্য, বর্তমানে এই রাজ্যের কুড়িটি জেলায় 3207 সাতটি গ্রাম পঞ্চায়েতে 6414 জন প্রধান ও উপপ্রধান রয়েছেন। আর এবারের পঞ্চায়েত নির্বাচনে রাজ্যের প্রায় অনেক জেলাতেই বেশিরভাগ নতুন মুখ পঞ্চায়েত প্রধান এবং উপপ্রধান হিসেবে দায়িত্ব নিয়েছেন। ফলে তারা কিভাবে কাজ করবেন তা তারা নিজেরাও জানেন না। আর তাই সেই সমস্ত নতুন পঞ্চায়েত প্রধান এবং উপপ্রধানকে নিজেদের কাজকর্ম সম্পর্কে অবহিত করতে গত 20 নভেম্বর রাজ্যের প্রতিটি জেলার প্রশাসনের কাছে একটি নির্দেশিকা পাঠিয়েছেন রাজ্যের বিশেষ সচিব দিব্যেন্দু দাস।

জানা গেছে, এই নতুন প্রধান, উপপ্রধানরা দুই দিনের প্রশিক্ষণ শিবিরের আয়োজন করছে রাজ্য সরকার। আর যেখানে যোগদানকারী প্রধান বা উপপ্রধানরা সকালের জলখাবার, দুপুরের মধ্যাহ্নভোজ, টিফিন এবং যাতায়াতের সমস্ত খরচ পাবেন। আর রাজ্য সরকারের এই নির্দেশে সারা দিয়ে ইতিমধ্যেই গত সোমবার থেকে মুর্শিদাবাদ জেলায় শুরু হয়েছে সেই সমস্ত প্রধান এবং উপপ্রধান নিয়ে প্রশিক্ষণ শিবির। যা মঙ্গলবার পর্যন্ত চলবে বলে খবর।

জানা গেছে, জেলা প্রশাসনের এই প্রশিক্ষণ শিবিরে বহরমপুর মহাকুমার পাচটি ব্লকের 61টি পঞ্চায়েতের প্রধান, লালবাগ মহাকুমার পাঁচটি ব্লকের 44 টি পঞ্চায়েত প্রধান, ডোমকলের 4 টি ব্লকের 34 টি পঞ্চায়েত প্রধান, জঙ্গিপুরের সাতটি ব্লকের 61 টি পঞ্চায়েত প্রধান এবং কান্দি মহকুমায় 5 টি ব্লকের 50 টি পঞ্চায়েতের প্রধানরা এতে যোগ দিয়েছেন। এদিন এই প্রসঙ্গে জেলার অতিরিক্ত জেলা শাসক সুদীপ্ত পোড়েল বলেন, “রাজ্য সরকারের নির্ধারিত সময়ের অনেক আগেই শিবির করলাম।

ফেসবুকের কিছু টেকনিকাল প্রবলেমের জন্য সব খবর আপনাদের কাছে পৌঁছেছে না। তাই আরো খবর পেতে চোখ রাখুন প্রিয়বন্ধু মিডিয়া-তে

 

এবার থেকে প্রিয় বন্ধুর খবর পড়া আরো সহজ, আমাদের সব খবর সারাদিন হাতের মুঠোয় পেতে যোগ দিন আমাদের হোয়াটস্যাপ গ্রূপে – ক্লিক করুন এই লিঙ্কে

এতে পঞ্চায়েতের কাজে অনেকটাই গতি আসবে।” কেমন অভিজ্ঞতা হল? এদিন এই প্রসঙ্গে বহরামপুর শিবিরে যোগ দেওয়া নতুন পঞ্চায়েত প্রধানদের একাংশ বলেন, “অনেক কিছু জানলাম ও শিখলাম। শিবিরের আলোচ্য বিষয় অনুসারে পঞ্চায়েতে মানুষের জন্য কাজ করব।” সব মিলিয়ে রাজ্যের পঞ্চায়েতে সুশাসন প্রতিষ্ঠা করতে এক অভিনব পদক্ষেপ শাসকদলের।

Top
error: Content is protected !!