এখন পড়ছেন
হোম > রাজ্য > কলকাতা > এদেশের পুলিশের সাথে পাকিস্তানের জঙ্গীযোগে নিয়ে বিস্ফোরক অধীর

এদেশের পুলিশের সাথে পাকিস্তানের জঙ্গীযোগে নিয়ে বিস্ফোরক অধীর

রাষ্ট্রপতির কাছ থেকে সম্প্রতি পুরস্কারে ভূষিত হয়েছিলেন জম্মু-কাশ্মীরের পুলিশের ডিএসপি দেবেন্দ্র সিং। এই দেবেন্দ্র সিংয়ের বিরুদ্ধেই এবার অভিযোগ উঠল সন্ত্রাসবাদীদের সাথে জড়িত থাকার। উঠে এসেছে অনেক পুরনো অভিযোগ। তারই ভিত্তিতে অন্য একটি কথা উঠে এসেছে। যেখানে সংসদ আমলা জড়িত আফজাল গুরু দাবি করেছিলেন, দেবেন্দ্র সিং তাকে আর একজন জঙ্গিকে দিল্লি নিয়ে যাওয়ার জন্য চাপ দিয়েছিলেন। এখন প্রশ্ন উঠছে, এরকম বিতর্কিত চরিত্র রাষ্ট্রপতি পুরস্কার এর জন্য কিভাবে বিবেচিত হলেন? আপাতত সাসপেন্ড করা হয়েছে শ্রীনগরের ডিএসপি দেবেন্দ্র সিংকে।

আর এদিন শ্রীনগরের ডিএসপি দেবেন্দ্র সিংয়ের গ্রেপ্তারের কথা সামনে আসতেই সরাসরি বিজেপিকে আক্রমণ করে বসলেন কংগ্রেস নেতা বহরমপুরের সাংসদ অধীর চৌধুরী। সোশ্যাল মিডিয়ায় একটি টুইট করে তিনি লিখলেন, ‘দেবেন্দ্র যদি সিং না হয়ে খান হত! তাহলে আরএসএস মুসলিমদের বিরোধিতায় নেমে পড়ত। কিন্তু আমি মনে করি সন্ত্রাসের কোনও ধর্ম হয় না।’ মনে করা হচ্ছে, তিনি বিজেপিকে সরাসরি হিন্দু মুসলিম তত্ত্ব নিয়ে আক্রমণ করলেন।

সূত্রের খবর, দেবেন্দ্র সিংকে গ্রেফতার করার পর তাঁর বাড়িতে তল্লাশি চালিয়ে পুলিশের হাতে অনেক তথ্য উঠে আসে। যার মধ্যে চমকপ্রদ তথ্যটি হল দেবেন্দ্র সিং তাঁর নিজের বাড়িতে দুই জঙ্গিকে আশ্রয় দিয়েছিলেন। এই ঘটনাটি সামনে আসার পরেই রীতিমতো নড়েচড়ে বসেছে কেন্দ্রীয় মহল। দেবেন্দ্র সিংয়ের কোয়ার্টার ছিল শ্রীনগরের বাদামিবাগ ক্যান্টনমেন্টে। সূত্রের খবর, এই বাড়িতেই হিজবুল জঙ্গিদের রীতিমতো কড়া নিরাপত্তায় লুকিয়ে রেখেছিলেন এই পুলিশকর্তা। প্রশ্ন উঠছে, কিভাবে দেবেন্দ্র সিং চারিদিকের কড়া নজর এড়িয়ে হিজবুল জঙ্গিদের তাঁর বাড়িতে লুকিয়ে রাখলেন?

প্রিয় বন্ধু মিডিয়ার খবর আরও সহজে হাতের মুঠোয় পেতে যোগ দিন আমাদের যে কোনও এক্সক্লুসিভ সোশ্যাল মিডিয়া গ্রূপে। ক্লিক করুন এখানে – টেলিগ্রাম, হোয়াটস্যাপ, ফেসবুক গ্রূপ, ট্যুইটার, ইউটিউবফেসবুক পেজ

প্রিয় বন্ধু মিডিয়ায় প্রকাশিত খবরের নোটিফিকেশন আপনার মোবাইল বা কম্পিউটারের ব্রাউসারে সাথে সাথে পেতে, উপরের পপ-আপে অথবা নীচের বেল আইকনে ক্লিক করে ‘Allow‘ করুন।


আপনার মতামত জানান -

অন্যদিকে সূত্রের খবর, পুলিশের জেরায় দেবেন্দ্র সিং স্বীকার করেছেন যে তিনি জঙ্গিদের বাড়িতে রাখার জন্য 12 লক্ষ টাকা পেয়েছিলেন। ঘটনাসূত্রে এবার সামনে আসছে নানান প্রশ্ন। তার মধ্যে সবথেকে উল্লেখযোগ্য যেটি, সেটি হলো গত বছর ফেব্রুয়ারি মাসে পুলওয়ামায় যে জঙ্গি হামলাটি হয়েছিল, তার পেছনেও কি দেবেন্দ্র সিংয়ের কোন হাত আছে? উত্তর এখনো পাওয়া যায়নি। কিন্তু এই নিয়ে চাপানউতোর চলছে। এদিকে, অধীর চৌধুরীও একটি টুইটের মাধ্যমে এই প্রশ্নটি তুলেছেন।

তিনি বলেছেন, ‘এত উচ্চপদস্থ একজন পুলিশ আধিকারিকের জঙ্গি যোগ নতুন প্রশ্নের জন্ম দিয়েছে। তাই পুলওয়ামাতে হাওয়া জঙ্গি হামলার তদন্ত নতুন করে করা উচিত।’ অধীর চৌধুরী আরো বলেন এ প্রসঙ্গে, ‘দেবেন্দ্র সিংয়ের গ্রেফতারির পর একটি নতুন প্রশ্নের জন্ম হয়েছে। তাহল পুলওয়ামাতে জঙ্গি হামলার সময় সিকিউরিটি ইনচার্জ কে ছিল? সংসদে হামলার সঙ্গেও কী যোগ ছিল ধৃত ওই ডিএসপির ? এই বিষয়ে দেশের স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী অমিত শাহ কী ভাবছেন সেটাও আমরা জানতে চাই।’ রীতিমত কড়া প্রশ্ন নিয়ে তিনি এ ব্যাপারে সরাসরি কেন্দ্রীয় সরকারকে আক্রমণ চালিয়েছেন।

ইতিমধ্যে খবর পাওয়া গেছে, দেবেন্দ্র সিং পাকিস্তানের চর হিসেবে কাজ করতেন। জঙ্গিদের ভারতবর্ষে নিরাপত্তা বলয় প্রদান করার জন্য তাঁকে মোটা টাকা দিত হিজবুল জঙ্গিরা। অন্যদিকে, রাজনৈতিক বিশেষজ্ঞদের দাবি, এই মুহূর্তে দেবেন্দ্র সিং এর কাছ থেকে রাষ্ট্রপতি পুরস্কার কেড়ে নেওয়া উচিত। তবে এর পাশাপাশি এই প্রশ্নও উঠেছে, যেখানে দেবেন্দ্রর সঙ্গে সন্ত্রাসবাদের অভিযোগ উঠেছিল আগেই, সেখানে সাহসিকতার জন্য রাষ্ট্রপতি পুরস্কার প্রাপক হিসাবে তাঁর নাম ওঠার আগে আরও সর্তকতা কেন নেওয়া হলো না? উত্তর পাওয়ার অপেক্ষায়। আপাতত সম্পূর্ণ বিষয়টির ওপর নজর রেখেছে দেশের ওয়াকিবহাল মহল।

আপনার মতামত জানান -
Top
error: Content is protected !!