এখন পড়ছেন
হোম > বিশেষ খবর > অধীর চৌধুরীর বাজিমাত হাইকোর্টে, পঞ্চায়েত নির্বাচন নিয়ে বড় সিদ্ধান্ত বিচারপতিদের

অধীর চৌধুরীর বাজিমাত হাইকোর্টে, পঞ্চায়েত নির্বাচন নিয়ে বড় সিদ্ধান্ত বিচারপতিদের

সকালেই সুপ্রিম কোর্ট রাজ্য বিজেপির করা মামলার পরিপ্রেক্ষিতে জানিয়ে দিয়েছিল নির্বাচন প্রক্রিয়া শুরু হয়ে যাওয়ায় আর তাতে হস্তক্ষেপ করতে চায় না আদালত। কিন্তু নির্বাচনে লড়তে ইচ্ছুক প্রার্থীদের নির্বাচনে লড়ার ব্যবস্থা করতে হবে রাজ্য নির্বাচন কমিশনকে। আর তাই নিয়ে বিজেপি নেতারা নিজেদের ও অন্যান্য বিরোধী দলের ইচ্ছুক প্রার্থীদের মনোনয়ন জমা নিয়ে ক্রমশ চাপ বাড়াচ্ছে রাজ্য নির্বাচন কমিশনে। অন্যদিকে পঞ্চায়েত নির্বাচন নিয়ে প্রদেশ কংগ্রেস সভাপতি অধীর চৌধুরীর করা মামলার পরিপ্রেক্ষিতে আজ বড় সিদ্ধান্ত নিল কলকাতা হাইকোর্ট। আইনজীবীদের কর্মবিরতি চলায় নিজেই সওয়াল করে অধীরবাবু জানান, হাইকোর্টের নির্দেশকে তোয়াক্কা করছে না রাজ্যের পুলিশ, রাজ্যজুড়ে মনোনয়ন পেশের নামে দুষ্কৃতীদের তাণ্ডবে অরাজকতা চলছে, পুলিশের বিরুদ্ধে আদালত অবমাননার মামলা হওয়া উচিত।

আরো খবর পেতে চোখ রাখুন প্রিয়বন্ধু মিডিয়া-তে

আর তাঁর এই আবেদনের ভিত্তিতে কলকাতা হাইকোর্ট আদালত অবমাননার মামলা করার অনুমতি দিল প্রদেশ কংগ্রেস সভাপতিকে। ফলে মুর্শিদাবাদের এসপি, কান্দি থানার আইসি এবং রাজ্য নির্বাচন কমিশনের বিরুদ্ধে আদালত অবমাননার মামলা করতে চলেছে প্রদেশ কংগ্রেস। অধীরবাবু গত ৬ তারিখ আদালতে জানিয়েছিলেন, নির্বাচনে অংশ নেওয়ার জন্য মনোনয়ন পেশ করা প্রার্থীর গণতান্ত্রিক অধিকার। প্রত্যেককে তার গণতান্ত্রিক অধিকার প্রয়োগ করতে দেওয়া উচিত। কিন্তু, আমার দলের প্রার্থীরা নির্বিঘ্নে মনোনয়ন জমা দিতে পারছে না, কারণ দুষ্কৃতীরা বিডিও অফিসের সামনে প্রার্থীদের প্রবেশে বাধা দিচ্ছে। মুর্শিদাবাদে গিয়ে আমাকেও দুষ্কৃতীদলের হেনস্থার শিকার হতে হয়েছে। কংগ্রেস প্রার্থীদের ভয় দেখানো হচ্ছে, বাধা দেওয়া হচ্ছে মনোনয়ন পেশে। পুলিশের কাছে গেলেও পুলিশ গুরুত্ব দেয়নি। আর তাঁর এই বক্তব্যের পরিপ্রেক্ষিতেই মনোনয়ন পাশে বাধা এলে পুলিশি সাহায্যের পাশাপাশি, সেই নির্দেশ মণ না হলে আদালত অবমাননার মামলা করার অনুমতি দেওয়া হয় প্রদেশ কংগ্রেস সভাপতিকে।

Top
Close
error: Content is protected !!