এখন পড়ছেন
হোম > জাতীয় > অধীর চৌধুরীর গুরুত্ব বাড়ছে হাইকমান্ডের কাছে দেওয়া হতে পারে বড়সড় পদ – জোর জল্পনা

অধীর চৌধুরীর গুরুত্ব বাড়ছে হাইকমান্ডের কাছে দেওয়া হতে পারে বড়সড় পদ – জোর জল্পনা



লোকসভা ভোটে বাংলায় কংগ্রেসের ভরাডুবি হয়েছে। শাসক দল তৃণমূলের বিরুদ্ধে তারা লড়তে চাইলেও প্রধান বিরোধী দলের ভূমিকা পালন করেছে বিজেপি। কিন্তু কেন এই খারাপ ফলাফল হল তা নিয়ে শনিবার রাজ্য প্রদেশ কংগ্রেসের কর্মসমিতির বৈঠক ছিল। তবে আশ্চর্যজনকভাবে কলকাতায় উপস্থিত থাকলেও এই বৈঠকে থাকতেই দেখা গেল না বহরমপুর লোকসভা কেন্দ্রের কংগ্রেস সাংসদ তথা প্রদেশ কংগ্রেসের প্রাক্তন সভাপতি অধীর রঞ্জন চৌধুরীকে।

কিন্তু প্রদেশ কংগ্রেসের বৈঠকে উপস্থিত না থাকলেও রবিবার প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদির উপস্থিতিতে সংসদের সর্বদলীয় বৈঠকের কংগ্রেসের তরফে সোনিয়া গান্ধীর সঙ্গে অধীর চৌধুরীর থাকার কথা রয়েছে। জানা গেছে, শনিবার রাতেই দিল্লি চলে গিয়েছেন বহরমপুর লোকসভা কেন্দ্রের এই কংগ্রেস সাংসদ। আর এই সর্বদলীয় বৈঠকেই হাইকমান্ডের পক্ষ থেকে তাকে গুরুত্বপূর্ণ পদ দেওয়া হতে পারে বলে মনে করা হচ্ছে।

সূত্রের খবর, সোনিয়া গান্ধীকে বাদ দিলে বাংলার অধীর রঞ্জন চৌধুরী এবং কেরালার কে সুরেশ কংগ্রেসের প্রতিনিধি হিসেবে সর্বদলীয় বৈঠকে থাকবেন। ফলে এই দুই নেতার মধ্যে অধীর রঞ্জন চৌধুরীকেই লোকসভার হুইপ করা হতে পারে। আর যদি এটাই সত্যি হয়, তাহলে হাইকমান্ডের কাছে যে অনেকটাই গুরুত্বপূর্ণ হয়ে উঠছে অধীর, সেই ব্যাপারে একপ্রকার নিশ্চিত প্রায় প্রত্যেকেই। কিন্তু কলকাতায় থেকেও প্রদেশ কংগ্রেসের কর্মসমিতির নির্বাচনের পর্যালোচনা বৈঠকে কেন রাজি হলেন না তিনি?

এদিন এই প্রসঙ্গে অধীর রঞ্জন চৌধুরী বলেন, “আমি শনিবার বিকেলে বহরমপুর থেকে কলকাতায় এসেছি। মুসলিম ইনস্টিটিউটে একটা সভা ছিল। সভার পর চিকিৎসা ব্যবস্থায় অচলাবস্থার প্রতিবাদে সুবোধ মল্লিক স্কোয়ার থেকে একটি মিছিল ছিল। সেই জন্যই ওই সভায় যেতে পারিনি। তবে কর্মসমিতির বিশেষ আমন্ত্রিত হিসেবে এই বৈঠকের খবর জানতে পারব।”


WhatsApp-এ প্রিয় বন্ধু মিডিয়ার খবর পেতে – ক্লিক করুন এখানে

আমাদের অন্যান্য সোশ্যাল মিডিয়া গ্রূপের লিঙ্ক – টেলিগ্রামফেসবুক গ্রূপ, ট্যুইটার, ইউটিউব, ফেসবুক পেজ

আমাদের Subscribe করতে নীচের বেল আইকনে ক্লিক করে ‘Allow‘ করুন।

এবার থেকে আমাদের খবর পড়ুন DailyHunt-এও। এই লিঙ্কে ক্লিক করুন ও ‘Follow‘ করুন।



আপনার মতামত জানান -

অন্যদিকে রাজ্যে এবারের লোকসভা নির্বাচনে বাম এবং কংগ্রেসের জোট হলে অনেক ভালো হত বলে জানিয়েছেন তিনি। এদিন এই প্রসঙ্গে তিনি বলেন, “2016 সালে বাম ও কংগ্রেসের জোট সাফল্য না পেলেও মানুষ তাতে ভরসা পেয়েছিল। আর তখনই বলেছিলাম শুধু নির্বাচনের দিকে তাকিয়ে নয়, রাজনৈতিক জোট করে আমাদের যৌথ ভাবে লড়তে হবে। আর এখনও আমি সেই কথাই বলছি।”

তবে অধীর রঞ্জন চৌধুরীর পাশাপাশি এদিন মুসলিম ইনস্টিটিউটের সভায় এবং সুবোধ মল্লিক স্কোয়ারের মিছিলে আব্দুল মান্নান উপস্থিত থাকলেও তিনিও প্রদেশ কংগ্রেসের বৈঠকে উপস্থিত হননি। কেন তিনি বৈঠকে গেলেন না? এদিন এই প্রসঙ্গে রাজ্য বিধানসভার কংগ্রেসের বিরোধী দলনেতা আব্দুল মান্নান বলেন, “প্রদেশ কংগ্রেস দপ্তরে গিয়ে আমি অপমানিত হয়েছি। যেখানে আমার কোনো নিরাপত্তা নেই, সেখানে আমি কেন যাব!”

তবে প্রাক্তন প্রদেশ কংগ্রেস সভাপতি তথা বহরমপুর লোকসভা কেন্দ্রের কংগ্রেস সাংসদ অধীর রঞ্জন চৌধুরী প্রদেশ কংগ্রেসের কর্মসমিতির বৈঠকে না গেলেও তিনি যে এবার সংসদে কংগ্রেসের হয়ে বড় ভূমিকা পালন করতে চলেছেন সেই ব্যাপারে আশাবাদী প্রত্যেকেই।

আপনার মতামত জানান -

Top
error: Content is protected !!