এখন পড়ছেন
হোম > জাতীয় > আদালতের রায়ে পাওয়া মসজিদের জমিতে কার নামে হতে পারে মসজিদ

আদালতের রায়ে পাওয়া মসজিদের জমিতে কার নামে হতে পারে মসজিদ

গত শনিবার ঐতিহাসিক অযোধ্যা মামলার রায় দান সম্পন্ন করেছে সুপ্রিম কোর্ট। বিতর্কিত 2.77 একর জমিতে রামমন্দির তৈরি করার নির্দেশ দিয়েছেন সুপ্রিম কোর্টের নির্দেশ দেওয়া হয়েছে অন্যদিকে সুপ্রিম কোর্টের নির্দেশ অনুযায়ী সুন্নি ওয়াকফ বোর্ডের পক্ষ থেকে পাঁচ একর জমি মসজিদ প্রকল্পে নেওয়া হবে কিনা সে সম্পর্কে সিদ্ধান্ত নেওয়ার জন্য 15 দিন সময় চাওয়া হয়েছে।

অযোধ্যার মামলার রায় প্রসঙ্গে মুসলিমদের মধ্যে মিশ্র প্রতিক্রিয়া দেখা গেছে। তবে এবার প্রশ্ন উঠেছে 5 একর জমিতে মসজিদ হলে তা কার নামে হবে? 1992 সালের 6 ডিসেম্বর বাবরি মসজিদ সম্পূর্ণরূপে ধ্বংস করে দিয়েছিল করসেবকরা। এবার সেই মসজিদ নতুন করে কার নামে হবে তা নিয়ে শুরু হয়েছে জল্পনা।

সুপ্রিম কোর্টের নির্দেশ অনুযায়ী সুন্নি ওয়াকফ বোর্ডকে যে 5 একর জমি দেওয়া হবে, তা কোথায় দেওয়া হবে সে ব্যাপারে উত্তরপ্রদেশ সরকারকে 15 দিনের সময়সীমা দেওয়া হয়েছিল জানাবার জন্য। মসজিদ কার নামে হবে সে নিয়ে উঠেছে এখন প্রশ্ন। সূত্রের খবর, বাবরি মসজিদ ধ্বংস হবার পর নতুন মসজিদ মহম্মদের নামে তৈরি করার সুপারিশ করা হয়েছে।সুপ্রিম কোর্টের নির্দেশে যে জমিতে রামমন্দির তৈরি হবে, তার প্রস্তুতিও শুরু হয়ে গেছে।

অন্যদিকে মসজিদের জন্য প্রস্তাবিত পাঁচ একর জমি কোথায় পাওয়া যাবে এবং মসজিদ কার নামে তৈরি হবে তা নিয়ে চূড়ান্ত আলোচনা চলছে। এ বিষয়ে মহন্ত পরমহংস দাস জানিয়েছেন, বাবরি মসজিদের নামে মসজিদ না হয়ে বরং মুসলিম ধর্মের প্রতিষ্ঠাতা মহম্মদের নামে মসজিদ হলে তা অনেক বেশি গুরুত্ব পাবে। তিনি আরও জানিয়েছেন, মসজিদে আল্লাহর বাস তাই মুসলিম ধর্মের প্রতিষ্ঠাতার নামেই এই মসজিদ তৈরি হওয়া উচিত।

ফেসবুকের কিছু টেকনিক্যাল প্রবলেমের জন্য সব আপডেট আপনাদের কাছে সবসময় পৌঁচ্ছাছে না। তাই আমাদের সমস্ত খবরের নিয়মিত আপডেট পেতে যোগদিন আমাদের হোয়াটস্যাপ বা টেলিগ্রাম গ্রূপে।

১. আমাদের Telegram গ্রূপ – ক্লিক করুন
২. আমাদের WhatsApp গ্রূপ – ক্লিক করুন
৩. আমাদের Facebook গ্রূপ – ক্লিক করুন
৪. আমাদের Twitter গ্রূপ – ক্লিক করুন
৫. আমাদের YouTube চ্যানেল – ক্লিক করুন

প্রিয় বন্ধু মিডিয়ায় প্রকাশিত খবরের নোটিফিকেশন আপনার মোবাইল বা কম্পিউটারের ব্রাউসারে সাথে সাথে পেতে, উপরের পপ-আপে অথবা নীচের বেল আইকনে ক্লিক করে ‘Allow‘ করুন।


আপনার মতামত জানান -

অন্যদিকে, মহন্ত পরমহংস দাস দাবি জানিয়েছেন, অযোধ্যা মামলার রায়ে মুসলিমরাও তাঁদের খুশি প্রকাশ করেছে। তিনি আরো বলেন, বেশ কয়েকজন মুসলিম তাঁকে জানিয়েছেন, বিতর্কিত জমিতে কখনো মসজিদ তৈরি করা যায় না এবং সেখানে আল্লাহকে ডাকা যায়না।

যদিও এখনো পর্যন্ত সুন্নি ওয়াকফ বোর্ড ও উত্তর প্রদেশ সরকার পাঁচ একর জমির ব্যাপার নিয়ে কোনো আলোচনায় বসেননি। সুপ্রিম কোর্টের নির্দেশ মেনে মসজিদ তৈরীর জন্য 5 একর জমি সুন্নি ওয়াকফ বোর্ড নেবেন কিনা সে বিষয়েও তাঁরা কোনো সিদ্ধান্ত গ্রহণ করেননি এখনো পর্যন্ত।

গত শনিবার শীর্ষ আদালতের রায় বেরোনোর পর সুন্নি ওয়াকফ বোর্ডের তরফ থেকে জানানো হয়, 15 দিনের মধ্যে তাঁরা জমি সংক্রান্ত যাবতীয় সিদ্ধান্ত জানাবেন। যদিও 15 দিন এখনো অতিবাহিত হয়নি। তবে অযোধ্যা রায় নিয়ে মিশ্র প্রতিক্রিয়া হলেও সাম্প্রদায়িক সম্প্রীতি বজায় রাখতে দুই তরফেই যথেষ্ট উদ্যোগী হয়েছে।

আপাতত শীর্ষ আদালতের রায় নিয়ে পরবর্তী সিদ্ধান্ত কি নেবে সুন্নি ওয়াকফ বোর্ড তা জানতে আরও কিছুদিন অপেক্ষা করতে হবে। তবে পাঁচ একর জমিতে কার নামে মসজিদ তৈরি হবে তা নিয়ে রাজনৈতিক মহলেও জল্পনা শুরু হয়েছে। আপাতত সমগ্র বিষয়টির ওপর নজর রাখছে দেশের ওয়াকিবহাল মহল।

আপনার মতামত জানান -
Top
error: Content is protected !!